১০ বছরে সবচেয়ে খারাপ হল রেলের অপারেটিং অনুপাত

রাজস্বের অনুপাতে খরচ ছাড়াও অপারেটিং অনুপাত বলতে বোঝায় কতটা ভালভাবে চলছে রেলওয়ে এবং তার আর্থিক হাল কতটা ভাল

১০ বছরে সবচেয়ে খারাপ হল রেলের অপারেটিং অনুপাত

যাত্রী পরিষেবা চালু রাখার খরচ তুলতেও ব্যর্থ রেল

নয়াদিল্লি:

২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে রেলের অপারেটিং অনুপাত (Operating Ratio) ৯৮.৪৪ শতাংশ, গত ১০ বছরে যা সবচেয়ে খারাপ, সোমবার সংসদে পেশ করা রিপোর্টে এমনটাই জানাল কন্ট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল (CAG) । রাজস্বের অনুপাতে খরচ ছাড়াও অপারেটিং অনুপাত বলতে বোঝায় কতটা ভালভাবে চলছে রেলওয়ে এবং তার আর্থিক হাল কতটা ভাল। ৯৮.৪৪ শতাংশ অপারেটিং অনুপাত হওয়ার অর্থ, ১০০ টাকা আয় করতে রেলকে খরচ করতে হয় ৯৮.৪৪ টাকা। রেলের আর্থিক ব্যবস্থা নিয়ে তৈরি করা রিপোর্টে দেশের অডিটরের তরফে জানানো হয়েছে, ১,৬৬৫.৬১ কোটি টাকার সারপ্লাসের পরিবর্তে ৫,৬৭৬ কোটিতে থামতে পারে রেল, তবে তা এনটিপিসি এবং আইআরসিওএন এর অগ্রিমের জন্য।

১৫০টি ট্রেন ও ৫০টি স্টেশনের পরিচালনার দায়িত্ব বেসরকারি সংস্থাকে দেবে রেল

সোমবার সংসদে পেশ হওয়া রিপোর্টে কন্ট্রোলার অ্যান্ড এডিটর জেনারেল জানিয়েছেন, “২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে ভারতীয় রেলের ৯৮.৪৪ শতাংশ অপারেটিং অনুপাত গত ১০ বছরে সবচেয়ে খারাপ”। তিনি জানান, “এই অগ্রিম বাদ দিলে অপারেটিং অনুপাত বাড়ে পারত ১০২.৬৬ শতাংশ”।

যাত্রী পরিষেবা এবং অন্যান্য কোচ পরিষেবার খরচ তুলতেও ব্যর্থ রেল। রিপোর্টে বলা হয়েছে, পণ্য পরিবহন থেকে আসা লভ্যাংশের ৯৫ শতাংশই খরচ হয়েছে যাত্রী পরিষেবা এবং অন্যন্য কোচ পরিষেবায় ক্ষতিপূরণ করতে।

রেলের আর্থিক অবস্থার বিশ্লেষণে প্রকাশ পেয়েছে, রাজস্ব সারপ্লাস ক্রমাগত কমতে থাকা এবং মূলধনের ব্যয়ের ক্ষেত্রে অভ্যন্তরীণ সম্পদের পরিমাণ কমে যাওয়া। গড় রাজস্ব সারপ্লাস ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে ছিল ৪,৯১৩.০০ কোটি টাকা, সেখান থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে ৬৬.১০ শতাংশ কমে হয়েছে ১,৬৬৫.৬১ কোটি টাকা।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন: 

২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে মূলধনী ব্যয়ে অভ্যন্তরীণ সম্পদের হার কমেছে ৩.০১ শতাংশ।

সিএজি জানিয়েছেন, “এর ফলে, গড় বাজেট আশ্রয় এবং বাজেট অতিরিক্ত সম্পদের ওপর নির্ভরতা বেড়েছে”।

সিএজির তরফে এও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে যে, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বৃদ্ধিতে পদক্ষেপ করতে হবে রেলকে, যাতে গড় এবং অতিরিক্ত বাজেট সম্পদে নির্ভরতা নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

রিপোর্টে রেলকে “উপযুক্ত কারণ” ছাড়া নতুন তহবিল তৈরি করা থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

More News