বাবার উর্দি গায়ে শহিদের কফিনে চুমু ২ বছরের সন্তানের...চোখে বিস্ময়, ভবিষ্যৎ অজানা

শিবচন্দ্রনের স্ত্রী গান্ধীমথি, পেটে যার দ্বিতীয় সন্তান, শিবমুনিয়ানকে কোলে জাপটে রয়েছেন। শিবমুনিয়ানকে পরানো হয়েছে তাঁর বাবার পোশাক। শিবমুনিয়াম যদিও জানে না কেন পরানো হয়েছে এই পোশাক, হয় জানেও না, বাবা নেই মানে, বাবা আর সত্যিই নেই।

বাবার উর্দি গায়ে শহিদের কফিনে চুমু ২ বছরের সন্তানের...চোখে বিস্ময়, ভবিষ্যৎ অজানা

Pulwama Attack: সি শিবচন্দ্রনের ২ বছরের সন্তান, ও সন্তান সম্ভবা স্ত্রী

হাইলাইটস

  • গতকাল তামিলনাড়ুতে সমাহিত করা হল শহিদ সি শিবচন্দ্রনকে
  • পরিবারকে সামলাতে ২০১০ সালে সিআরপিএফে যোগ দেন তিনি
  • বৃহস্পতিবার পুলওয়ামাতে বিস্ফোরণে নিহত হন সি শিবচন্দ্রন
আরিয়ালুর, তামিলনাড়ু:

বৃহস্পতিবার পুলওয়ামার সন্ত্রাসী হামলায় নিহত সৈন্য সি শিবচন্দ্রনের ছেলে শিবমুনিয়ানের বয়স মাত্র দুই। বাবার মৃতদেহ ঘিরে যখন শেষ শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীথারমনসহ অজস্র মানুষ, শিবমুনিয়ান তখন প্রায় ভ্যাবাচ্যাকা অবস্থায়। কী হচ্ছে, কেনই বা হচ্ছে, বাবা কেন মরে গেল, কারাই বা মারল এত প্রশ্ন মাথায় আসছে না তাঁর। পরিস্থিতির ভিড়ে বুঝতেও পারছে না, বাবার কফিনে কেনই বা তেরঙ্গা পতাকা, কেনই বা সবার মতোই বাবার শুয়ে থাকা শরীর ছুঁয়ে চুমু খেল সে। তবু, শিবচন্দ্রনের স্ত্রী গান্ধীমথি, পেটে যার দ্বিতীয় সন্তান, শিবমুনিয়ানকে কোলে জাপটে রয়েছেন। শিবমুনিয়ানকে পরানো হয়েছে তাঁর বাবার পোশাক। শিবমুনিয়াম যদিও জানে না কেন পরানো হয়েছে এই পোশাক, হয় জানেও না, বাবা নেই মানে, বাবা আর সত্যিই নেই। সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ) জওয়ান সি শিবচন্দ্রনের টুকরো, বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া দেহ শনিবার পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তামিলনাড়ুর আরিয়ালুর জেলায় সমাহিত করা হয়। 

আবার রক্ত ঝরল কাশ্মীরে, কাশ্মীরের রাজৌরিতে আইইডি নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে মৃত্যু সেনা আধিকারিকের

হয়ত স্রেফ ছবি হয়েই রয়ে যাবেন ছোট ছেলের মনে। বড় হতে হতে বাবার ছবিও ঝাপসা হয়ে যাবে। প্রথাগত সিল্ক শাড়ি পরে শোকাহত গান্ধীমথিও ছিলেন এই অনুষ্ঠানে। বাড়িতে ছুটি কাটিয়ে গত শনিবারই জম্মু ও কাশ্মীরে ফিরে যান তাঁর স্বামী।

mbb2db48

পুলওয়ামার সন্ত্রাসী হামলায় নিহত সিআরপিএফ জওয়ান সি শিবচন্দ্রন

 

গান্ধীমথি একজন যোগ্যতাসম্পন্ন নার্স। তাঁর পরিবার ও স্থানীয় মানুষের দাবি সরকার তাঁকে নিরাপদ, ভালো মাইনের চাকরি দিক। তামিলনাড়ু সরকার ঘোষণা করেছে নিহতদের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা এবং পরিবারের সদস্যকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে। 

জঙ্গি হানায় শহিদ জওয়ান বাবলুর মৃত্যুর বিচার চাইছে উলুবেড়িয়া

শিবচন্দ্রনের বাবা, চিন্নায়নের এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না ছেলের মৃত্যুর খবর। দুই বছর আগেই চেন্নাইয়ের কর্মস্থলে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন তাঁর ছোট ছেলে। ছেলের একটি পুরানো ইউনিফর্ম পরে একা ভিড়ের মাঝে সব হারিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন নিঃস্ব বাবা। এক কোণে নিহত সৈনিকের বোন জয়চিত্রাও ফুঁপিয়ে কেদেছে সারাক্ষণ। কথা বলতে আর শুনতে সমস্যা হয় তাঁর, বোনের নিয়মিত যত্ন নিতেন শিবচন্দ্রন। নিজের ভবিষ্যৎ ভেবেই হয়ত গুমরে কাঁদছেন একমাত্র আদরের বোন। পরিবারের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য মাথার ঘাম পায়ে ফেলে নিরবিচ্ছিন্ন কঠোর পরিশ্রম করেছেন শিবচন্দ্রন। স্নাতকোত্তর এবং বি.এদ পাশ শিবচন্দ্রন স্থানীয় স্কুলে পড়াতেন। ২০১০ সালে তিনি সিআরপিএফে যোগ দেন, কুঁড়েঘর থেকে পরিবারকে নিয়ে যান নিজেদের পাকা বাড়িতে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)