বাংলায় এনআরসি বা নাগরিকত্ব আইন কোনটাই হবে না, উত্তেজনা ছড়াবেন না: মুখ্যমন্ত্রী

Citizenship Act: শনিবারও নানা জায়গায় বিক্ষোভ-আন্দোলন চলে, তবে সাম্প্রদায়িক উস্কানিতে পা না দেওয়ার জন্যে রাজ্যবাসীর প্রতি আবেদন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

বাংলায় এনআরসি বা নাগরিকত্ব আইন কোনটাই হবে না, উত্তেজনা ছড়াবেন না: মুখ্যমন্ত্রী

West Bengal: বিক্ষোভকারীরা উলুবেড়িয়া রেলস্টেশন অবরোধ করে, এলাকায় তৈরি হয় উত্তেজনা

হাইলাইটস

  • কেউ আইন হাতে তুলে নেবেন না, বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
  • শান্তিপূর্ণ উপায়ে প্রতিবাদ করার কথা বললেন মুখ্যমন্ত্রী
  • নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল বাংলাও
কলকাতা:

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে উত্তপ্ত গোটা বাংলা (West Bengal)। জায়গায় জায়গায় রেল ও সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন উত্তেজিত জনতা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের মানুষকে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ-আন্দোলন করার বিষয়ে আবেদন জানালেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। ভুল বোঝাবুঝি তৈরি করবেন না, উত্তেজনা বা আতঙ্ক ছড়াবেন না, সাম্প্রদায়িক উস্কানিতে পা দেবেন না, এভাবেই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আবেদন করতে দেখা যায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে। রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "বাংলায় কোনও নাগরিকত্ব আইন বা এনআরসি প্রয়োগ হবে না। কারণ আমরা এখানে সরকারে রয়েছি। কেন্দ্র একটি আইন পাস করতেই পারে তবে তার বাস্তবায়ন নির্ভর করছে রাজ্য সরকারের উপর। আমরা ইতিমধ্যেই বলেছি যে আমরা এটির প্রয়োগ করতে দেবো না। সুতরাং আশ্বস্ত থাকুন, ভাল থাকুন, চিন্তা করবেন না" ।

বাংলায় নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অব্যাহত সড়ক ও রেল অবরোধ

পাশাপাশি নাগরিকত্ব আইনের (Citizenship Act) বিরুদ্ধে যাঁরা প্রতিবাদ করছেন তাঁদের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, "দয়া করে রাস্তা আটকাবেন না, আইন নিজের হাতে নেবেন না, কারণ এতে সাধারণ মানুষ ভুক্তভোগী হন। আমরা এটা চাই না। আসুন আমরা একত্রিত হয়ে গণতান্ত্রিক পদ্ধতির মাধ্যমে ক্যাব এবং এনআরসির বিরোধিতা করি। আমাদের মধ্যে কোনও মতপার্থক্য হওয়া উচিত নয়না। এটাই আপনাদের কাছে আমার আবেদন"।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করেও টুইট করেন তিনি। রাজ্যপাল বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর উচিত সংবিধানের প্রতি বিশ্বাস ও আনুগত্য বজায় রাখা। 

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের আবেদনকে উপেক্ষা করেই নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা রাজ্য। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস জানিয়েছে, মুর্শিদাবাদ জেলার পোড়াডাঙা, জঙ্গিপুর এবং ফারাক্কা স্টেশন এবং হাওড়া জেলার দক্ষিণ পূর্ব রেলপথে বাউরিয়া ও নলপুর স্টেশনগুলিতে দফায় দফায় রেল অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা । পাশাপাশি তাঁরা আগুন লাগিয়ে দেয় রাজ্য পরিবহন দফতরের অধীনস্থ তিনটি সরকারি বাস সহ পনেরোটি বাসে। প্রবল উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়।

Protest Over Citizenship Act: রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্ষোভ, ট্রেন চলাচলে বিঘ্ন শিয়ালদহ শাখায়

ওদিকে হাওড়ায় সাঁকরাইল রেলস্টেশন ও এর আশেপাশে কয়েকশো মানুষ রাস্তা অবরোধ করার পাশাপাশি কয়েকটি দোকানে আগুন লাগিয়ে দেয়। স্টেশন কমপ্লেক্সে প্রবেশ করে টিকিট কাউন্টারেও আগুন লাগিয়ে দেয় তাঁরা।

এই পরিস্থিতিতে কড়া বার্তা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "রাস্তা ও রেল অবরোধ করবেন না। সাধারণ জনগণের হয়রানি সরকার সহ্য করবে না। যাঁরা বাসে আগুন লাগিয়ে, ট্রেন অবরোধ করে এবং জনসাধারণের সম্পত্তির ক্ষতি করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

দেখুন এই ভিডিও:

More News