উন্নাওয়ের ধর্ষিতার গ্রামে এসে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রীরা

Unnao Rape case: মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ তাঁর মন্ত্রিসভার দু'জন মন্ত্রী কমল রানি বরুণ এবং স্বামী প্রসাদ মৌর্যকে উন্নাও যাওয়ার নির্দেশ দেন

উন্নাওয়ের ধর্ষিতার গ্রামে এসে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রীরা

Unnao case: যোগী আদিত্যনাথের সরকারকে সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন বিরোধী নেতারা

হাইলাইটস

  • উন্নাওয়ের ধর্ষিতার গ্রামে এসে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী
  • যোগী আদিত্যনাথের নির্দেশ ওই গ্রামে আসেন ২ মন্ত্রী
  • শুক্রবার রাতে দিল্লির হাসপাতালে মৃত্যু হয় উন্নাওয়ের ওই নিগৃহীতার
লখনউ:

উন্নাওয়ের (Unnao) ধর্ষিতার গ্রামে এসে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রীরা। শনিবার মৃত নিগৃহীতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এসে এলাকার মানুষের রোষের মুখে পড়তে হয় তাঁদের। শুক্রবার রাত ১১ টা ৪০ নাগাদ দিল্লির হাসপাতালেই মৃত্যু হয় ২৩ বছরের ওই তরুণীর। উন্নাওয়ের ওই ধর্ষণ ও হত্যার (Unnao Rape) ঘটনায় ক্ষোভ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ তাঁর মন্ত্রিসভার দু'জন মন্ত্রী কমল রানি বরুণ এবং স্বামী প্রসাদ মৌর্যকে নির্দেশ দেন রাজ্যের রাজধানী লখনউ থেকে ৬৫ কিলোমিটার দূরে উন্নাওয়ের গ্রামে গিয়ে নিগৃহীতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য। এর আগে শনিবারই এক বিবৃতিতে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন যে "ওই মহিলার মৃত্যুর খবর শুনে অত্যন্ত মর্মাহত"। "এই মামলাটির দ্রুত বিচারের লক্ষ্যে ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে শুনানি করা হবে এবং দোষীদের কঠোরতম শাস্তি দেওয়া হবে", জানান উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার উন্নাওয়ের ওই নিগৃহীতা যখন আদালতে যাচ্ছিলেন, সেই সময়েই তাঁর উপর হামলা করে ৫ দুষ্কৃতী, যাঁদের মধ্যে ধর্ষণে অভিযুক্ত ২ ব্যক্তিও ছিলেন। তাঁর গায়ে আগুন লাগিয়ে ঘটনাস্থলেই মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয় তাঁকে। ৯০ শতাংশ পুড়ে যান ওই ধর্ষিতা, আশঙ্কাজনক অবস্থায় দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। শুক্রবার রাতে ওই হাসপাতালেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর।

"এখন কেন?" মন্ত্রীদের গাড়ি গ্রামে প্রবেশ করার পরেই সেই গাড়ি ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয়রা; পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন সেখানকার পুলিশ কর্মীরা।

উন্নাওয়ে গেলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি, দেখা করলেন মৃত ধর্ষিতার পরিবারের সঙ্গে

যোগী আদিত্যনাথ সরকারকে সমালোচনার তিরে বিদ্ধ করেন সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদব, কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ভদরা এবং বহুজন সমাজ পার্টির প্রধান মায়াবতী সহ অন্যান্য বিরোধী নেতারা ।

প্রিয়াঙ্কা গান্ধি শনিবারই উন্নাওতে গিয়ে মৃত তরুণীর পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং বলেন যে তিনি মনে করেন "এই রাজ্যে মহিলাদের কোনও নিরাপত্তা নেই"। তিনি বলেন যে, "মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলছেন যে, রাজ্যে অপরাধীদের কোনও স্থান নেই তবে তিনি কেন স্বীকার করছেন না যে তিনিই এই রাজ্যকে এই অবস্থায় নিয়ে এসেছেন, আমি মনে করি এখানে নারীদের কোনও নিরাপত্তা নেই।"

যেভাবে উত্তরপ্রদেশে মহিলাদের উপর নির্যাতনের সংখ্যা বাড়ছে তার বিরুদ্ধে সরব হয়ে রাজ্য বিধানসভার বাইরে অবস্থান বিক্ষোভে বসেন সে রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবও। উন্নাওয়ের বাসিন্দা ২৩ বছরের এক তরুণীর ধর্ষণের পর অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনায় তিনি উত্তরপ্রদেশ মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করেন। 

উন্নাও মামলার প্রতিবাদ জানিয়ে অবস্থান বিক্ষোভে অখিলেশ যাদব

বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর অভিযোগ, "উত্তরপ্রদেশে এখন এমন একটি দিনও যায় না যখন মহিলাদের বিরুদ্ধে কোনও অপরাধ হয় না"।

বৃহস্পতিবার উন্নাওয়ের বছর ২৩-এর ওই তরুণীর উপর প্রাণঘাতী হামলা চালানো হয়। তাঁকে ঘিরে ধরে গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ৫ দুষ্কৃতী। প্রথমে এলাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও পরে ৯০ শতাংশ অগ্নিদগ্ধ ওই তরুণীকে দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। যদিও তারপরেও বাঁচানো যায়নি নিগৃহীতাকে। 

দেখুন এই ভিডিও:

More News