নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় বনধ উত্তর-পূর্বে! কী এই ILP, কেনই বা বিরোধিতা?

Protest against Citizenship Amendment Bill 2019: বিকেল চারটে পর্যন্ত উত্তর-পূর্ব ছাত্র সংগঠন (এনইএসও) এই বিলের বিরোধিতায় বনধ ডেকেছে, যার জেরে ইতিমধ্যেই ব্যহত জনজীবন।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় বনধ উত্তর-পূর্বে! কী এই ILP, কেনই বা বিরোধিতা?

Citizenship Amendment Bill 2019: অসমে বিলের বিরুদ্ধে চলছে বিক্ষোভ

হাইলাইটস

  • লোকসভায় পাস নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল
  • অসমে ব্যাপক বিক্ষোভ বিলের বিরুদ্ধে
  • মণিপুরে স্থগিত আন্দোলন
নয়াদিল্লি:

মঙ্গলবার ভোর ৫ টা থেকে শুরু হয়েছে বনধ! নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলের (Citizenship Amendment Bill 2019) বিরুদ্ধে উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলিতে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন সম্মিলিতভাবে ১১ ঘন্টার বনধ ডেকেছে। বিকেল চারটে পর্যন্ত উত্তর-পূর্ব ছাত্র সংগঠন (এনইএসও) এই বিলের বিরোধিতায় বনধ ডেকেছে, যার জেরে ইতিমধ্যেই ব্যহত জনজীবন। অন্যান্য সংগঠন এবং রাজনৈতিক দলগুলিও এটি সমর্থন করেছে। এই বনধের কারণে অসম, অরুণাচল প্রদেশ, মেঘালয়, মিজোরাম এবং ত্রিপুরাতে সুরক্ষা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে। নাগাল্যান্ডে এখন চলছে হর্নবিল উৎসব। সেই কারণে বনধের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে এই রাজ্যটিকে। উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলির বাসিন্দাদের মূলত ভয়ের জায়গা এটিই যে এই বিলটির পরে বাইরে থেকে আসা মানুষদের প্রভাবে তাদের পরিচয় এবং জীবিকা দুই সংকটে পড়বে। এই বিলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংগঠন যেমন কংগ্রেস, এআইইউডিএফ, অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতি এবং অরুণাচল প্রদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, খাসি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন এবং নাগা স্টুডেন্টস ফেডারেশনের মতো সংগঠন এই বনধের সমর্থনে জুড়ে গিয়েছে এনইএসও-র সঙ্গে। গুয়াহাটি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ডিব্রুগড় বিশ্ববিদ্যালয় আগামীকাল হতে চলা সমস্ত পরীক্ষা বাতিল করেছে।

আরও পড়ুনঃ দেশের স্বার্থেই সমর্থন: নাগরিকত্ব বিল নিয়ে অবস্থান বদলে সরকারকে সমর্থন শিবসেনার!

কী বলা হয়েছে এই নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলে

নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলে আফগানিস্তান, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান থেকে ধর্মীয় নিপীড়নের কারণে ভারতে চলে আসা হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি এবং খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। লোকসভায় ম্যারাথন আলোচনার পরে বিলের পক্ষে সোমবার ভোট পড়ে ৩১১ টি এবং মাত্র ৮০ টি ভোট পড়ে বিপক্ষে।

আরও পড়ুনঃ  "আশাহত": নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলকে জেডিইউ-র সমর্থন বিষয়ে প্রশান্ত কিশোর

আন্তঃসীমান্ত পারমিটের কারণে মণিপুরে স্থগিত আন্দোলন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মণিপুরকে ইনার লাইন পারমিটের (আইএলপি) আওতায় আনার কথা বলার পরেই এই রাজ্যে আন্দোলনের নেতৃত্ব দেওয়া মণিপুর পিপল আগেইন্সট CAB তাদের ডাকা বনধ স্থগিতের ঘোষণা করে।

অরুণাচল প্রদেশ, নাগাল্যান্ড এবং মিজোরামে কেন প্রয়োগ হবে না এই বিল?

অরুণাচল প্রদেশ, নাগাল্যান্ড এবং মিজোরামে এই বিলের প্রয়োগ হবে না কারণ এখানে আইএলপি লাগু রয়েছে। পাশাপাশি সংবিধানে ছয় নম্বর অনুচ্ছেদ অনুসারে শাসিত অসম, মেঘালয় এবং ত্রিপুরাও এই বিলের আওতার বাইরে রইবে।

কী এই আন্তঃসীমান্ত পারমিট বা ‘আইএলপি'

এই নিয়মটি তৈরি করেছিল ব্রিটিশ সরকার এবং স্বাধীনতার পরে অনেকগুলি বদলও এসেছে এই নিয়মে। এই নিয়মের প্রধান ২ টি দিক হ'ল; বসবাসের জন্য আইএলপি এবং চাকরি বা উপার্জনের জন্য আইএলপি

More News