‘‘কতজন মুসলিম ও দলিত?’’ ১২৭ জনকে আধার কর্তৃপক্ষের নোটিস প্রসঙ্গে আসাদুদ্দিন ওয়াইসি

আধার কর্তৃপক্ষ টুইট করে জানায়, হায়দরাবাদে ১২৭ জনের সন্ধান মিলেছে যাঁরা বেআইনি অনুপ্রবেশকারী। এঁরা মিথ্যে বা জাল তথ্য দিয়ে আধার ‌নম্বর পেয়েছেন।

আধার কর্তৃপক্ষকে আক্রমণ করলেন আসাদুদ্দিন ওয়াইসি

হাইলাইটস

  • তেলেঙ্গানায় ১২৭ জনকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে আধার কর্তৃপক্ষের তরফে
  • এই নোটিসের বিরোধিতা করলেন আসাদুদ্দিন ওয়াইসি
  • তাঁর দাবি, এটা করার অধিকার আধার কর্তৃপক্ষের নেই
হায়দরাবাদ:

হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসি ( Asaduddin Owaisi) অভিযোগ আনলেন আধার সংস্থা UIDAI-র বিরুদ্ধে। UIDAI তেলেঙ্গানায় ১২৭ জনকে আইনি নোটিস পাঠিয়েছে। সেই নোটিসে জানানো হয়েছে, ওই ১২৭ জন জাল তথ্য দিয়ে আধার কার্ড তৈরি করেছেন। এবার আসাদুদ্দিন প্রশ্ন তুললেন, ‘‘ওই ১২৭ জ‌নের মধ্যে কতজন মুসলিম ও দলিত?'' এভাবেই আধার কর্তৃপক্ষ ও তেলেঙ্গানা পুলিশকে আক্রমণ করলেন তিনি। আধার কর্তৃপক্ষ একাধিক টুইটের মাধ্যমে বুধবার সকালে জানায়, হায়দরাবাদে ১২৭ জনের সন্ধান মিলেছে যাঁরা বেআইনি অনুপ্রবেশকারী। এঁরা মিথ্যে বা জাল তথ্য দিয়ে আধার ‌নম্বর পেয়েছেন। প্রাথমিক তদন্ত থেকে তেমনটাই জানা গিয়েছে বলে জানানো হয় টুইটে।

রাজ্য পুলিশের কাছ থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পর ওই ১২৭ জনকে নোটিস পাঠিয়ে ব্যক্তিগত শুনানির জন্য দেখা করতে বলা হয়েছে।  

এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ওই ব্যক্তিদের উত্তর পরীক্ষা করে দেখা হবে। যদি প্রমাণিত হয়, তাঁরা জাল নথিপত্র দিয়ে আধার নম্বর পেয়েছেন, তাহলে তাঁদের আধার বাতিল বা স্থগিত করা হবে সীমালঙ্ঘনের তীব্রতা বিচার করে।

পাশাপাশি জানানো হয়েছে, এর সঙ্গে নাগরিকত্বের কোনও সম্পর্ক নেই।

এরপরই আসাদুদ্দিন ওয়াইসি অভিযোগ তোলেন আধার কর্তৃপক্ষ তাঁদের ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন। তিনি জানান, ‘‘আমি UIDAI ও তেলেঙ্গানা পুলিশের কাচে জানতে চাইব ওই ১২৭ জনের মধ্যে কতজন মুসলিম ও দলিত তা আমাদের জানানো হোক। তেলেঙ্গানা পুলিশ, দয়া করে অনুসন্ধানের সময় আধার চাইবেন না। আইনত এটা আপনারা করতে পারবেন না।''

পরের পোস্টে ৫০ বছরের নেতা দাবি করেন, ‘‘নোটিসে নাগরিকত্বের যাচাইয়ের কথা বলা হয়েছে। তাহলে কি UIDAI ডেপুটি ডিরেক্টরকে বরখাস্ত করবে ওই নোটিস জারি করার জন্য। তাঁরা তাঁদের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন এই নোটিস জারি করে। এটা ক্ষমতার পক্ষপাতিত্বমূলক অপব্যবহার।''

আসাদুদ্দিন আরও দাবি করেন, এই ধরনের নোটিস জনসাধারণের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি করবে। আধার কর্তৃপক্ষের যে এমন কোনও ক্ষমতা নেই সেই দাবিও করেন তিনি।

যাঁদের নোটিস পাঠানো হয়েছে, তাঁদের ২০২০ সালের মে মাসের মধ্যে দেখা করতে বলা হয়েছে।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com