রাজনৈতিক হিংসা নিয়ে রাজ্যের থেকে রিপোর্ট চাইল কেন্দ্র: সূত্র

গত সপ্তাহে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে অ্যাডভাইসারি পাঠায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক(Home Ministry)।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
রাজনৈতিক হিংসা নিয়ে রাজ্যের থেকে রিপোর্ট চাইল কেন্দ্র: সূত্র

রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ


নিউ দিল্লি: 

লোকসভা নির্বাচনের আবহেই রাজনৈতিক হিংসায় (Political Violence) উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল রাজ্য। তার রেশ অব্যাহত নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরেও। রাজ্যের রাজনৈতিক হিংসা নিয়ে গত সপ্তাহেই অ্যাডভাইজারি পাঠায় কেন্দ্রীয় সরকার, এবার রাজ্যের রাজনৈতিক হিংসা নিয়ে কী পদক্ষেপ করা হয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) সরকারের থেকে তা জানতে চাইল কেন্দ্র, সূত্রের খবর এমনই। সূত্রের খবর, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের (Home Ministry) তরফে বলা হয়েছে, “কয়েকবছর ধরে লাতাগার ঘটে চলা হিংসার ঘটনা, একটি গভীর উদ্বেগের বিষয়”। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রের খবর, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের (Home Ministry) রিপোর্ট অনুসারে, ১০২৬-এ পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক হিংসার (Political Violence) ঘটনার সংখ্যা ছিল ৫০৯, সেখানে ২০১৮ এ তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে, ১০৩৫। প্রায় ৮০০ রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা ঘটেছে ২০১৯-এ। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, “একইভাবে, মৃতের সংখ্যা ২০১৬-এ ৩৬ থেকে বেড়ে ২০১৮-এ হয়েছে  ৯৬, ২০১৯-এ এখনও পর্যন্ত  মৃতের সংখ্যা ২৬”।

গুলিতে নিহত রাজ্যের বিজেপি কর্মী, অভিযোগের তির ‘তৃণমূলের গুন্ডা'দের দিকে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের(Home Ministry) পাঠানো অ্যাডভাইজারিতে বলা হয়েছে, “২০১৬ থেকে ২০১৯, পর্যন্ত লাগাতার রাজনৈতিক হিংসা (Political Violence) , ওপরের তথ্যই রাজ্যের আইনবিভাগের ব্যর্থতা প্রমাণ দেয়”। পাশাপাশি আরও বলা হয়েছে, “দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করতে রাজ্য সরকার এবং আইনবিভাগ সন্ত্রাসের ঘটনায় কী ব্যবস্থা নিয়েছে, এবং সন্ত্রাসের ঘটনা কমাতে কী পদক্ষেপ করা হয়েছে, তা নিয়ে মন্ত্রকে একটি রিপোর্ট পাঠাতে হবে”। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের(Home Ministry) পাঠানো অ্যাডভাইজারির উত্তরে রাজ্য সরকার জানিয়েছে, “কয়েকটি ভোটপরবর্তী হিংসার” ঘটনা ঘটেছে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে”। মুখ্যসচিব লিখেছেন, কোনওরকম দেরী না করেই “কঠোর এবং যথোপযুক্ত পদক্ষেপ” করা হয়েছে প্রতিটি ঘটনাতেই।

সন্দেশখালির ঘটনায় এনআইএ তদন্তের দাবি করল বিজেপি

এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পদে এসেছেন বিজেপি (BJP) সভাপতি অমিত শাহ, তারপরেই অ্যাডভাইজারি পাঠানো হয়। গত সপ্তাহে তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) কর্মীদের হাতে তাঁদের দলের তিন কর্মী খুন হয়েছেন বলে দাবি করেছেন তিনি। সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ৪২ আসনের মধ্যে গতবারের ২ থেকে বেড়ে এবার বিজেপি পেয়েছে ১৮টি  আসন, সেখানে গতবারের ৩৪ থেকে কমে তৃণমূল কংগ্রেসের আসনসংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ২২।

২০২১-এ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচননে পাখির চোখ করেছে বিজেপি (BJP), অন্যদিকে, এক ইঞ্চিও জমি ছাড়ত নারাজ রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) । এবারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে তাঁদের দাবি করা খুন হওয়া ৫২ জন কর্মীর পরিবারকে হাজি করানো হবে বলে জানিয়েছিল গেরুয়া শিবির, তারপরেই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান এড়ান মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল  সুপ্রিমো  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................