This Article is From Jan 14, 2020

কেন হস্টেলে ঢুকবে, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পুলিশেরই কাছে এএমইউ

যদিও উপাচার্যের লিখিত অনুমতি পেয়েই ইউপি পুলিশ ক্যাম্পাসে ঢুকেছিল, দাবি তাদের। জর করে হস্টেলে ঢোকার অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে পুলিশ।

কেন হস্টেলে ঢুকবে, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পুলিশেরই কাছে এএমইউ

পড়ুয়া- পুলিশ সংঘর্ষে এএমইউ ক্যাম্পাসে ছড়িয়েছিল উত্তেজনা। (ফাইল)

হাইলাইটস

  • পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পুলিশের দ্বারস্থ এএমইউ
  • অনুমতি ছাড়া হস্টেলে ঢুকেছিল পুলিশ, এই অভিযোগ জানাতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয়
  • ১৫ ডিসেম্বর হস্টেলে ঢোকার অভিযোগ খারিজ করেছে ইউপি পুলিশ
আলিগড়:

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পুলিশেরই দ্বারস্থ আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় (এএমইউ)। ১৫ ডিসেম্বর কর্তৃপক্ষের অনুমতি (Permission) ছাড়া হস্টেলে ঢুকেছিল উত্তর প্রদেশ পুলিশ। এই অভিযোগই লিখিত আকারে দাখিল করতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয় (AMU) কর্তৃপক্ষ। অভিযোগে উল্লেখ করা হচ্ছে, সিএএ-র (CAA) প্রতিবাদে আয়োজিত পড়ুয়াদের মিছিল প্রতিরোধে বাড়াবাড়ি (Excessive) করেছিল পুলিশ। মূলত ক্যাম্পাস (Campus) ছেড়ে হস্টেলে কেন ঢুকেছিল ইউপি (UP) পুলিশ, সেটাই অভিযোগের সারবত্তা। যদিও উপাচার্যের লিখিত অনুমতি পেয়েই ইউপি পুলিশ ক্যাম্পাসে(Campus) ঢুকেছিল, দাবি তাদের। জোর করে হস্টেলে ঢোকার অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে পুলিশ।

এই বিষয়ে এএমইউ-র একটা সূত্র বলেছে, আমরা প্ৰতিবাদী পড়ুয়ারা যেখানে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন, সেই এলাকা ফাঁকা করে দিতে পুলিশকে অনুমতি দিয়েছিলাম। কিন্তু ওরা হস্টেলে ঢুকে পড়ে। এতে অনেক পড়ুয়া আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন। ওদের এই অভিযোগের বিহিত হওয়া প্রয়োজন।  জানা গেছে, জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়াতে ১৫ ডিসেম্বর একটা প্রতিবাদ মিছিল আয়োজন করেছিল এএমইউ'র পড়ুয়ারা। সেই মিছিল প্রতিরোধে পুলিশি 'বাড়াবাড়ি'র জেরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে পুলিশ ও পড়ুয়া। সেই সময় ক্যাম্পাস ছেড়ে হস্টেলে গিয়েও অভিযান করতে দেখা গিয়েছিল ইউপি পুলিশকে। সেই বাড়াবাড়ির বিহিত চেয়ে এবার পুলিশেরই দ্বারস্থ কর্তৃপক্ষ।