অযোধ্যা নিয়ে মন্তব্যে নাম না করে উদ্ধব ঠাকরেকে তিরস্কার প্রধানমন্ত্রীর

Ayodhya Case: সুপ্রিম কোর্টে এই মন্দির-মসজিদ বিরোধ সংক্রান্ত মামলাটির বর্তমানে দৈনিক ভিত্তিতে শুনানি চলছে, ১৮ অক্টোবরের আগে শেষ করতে হবে প্রক্রিয়া।

অযোধ্যা নিয়ে মন্তব্যে নাম না করে উদ্ধব ঠাকরেকে তিরস্কার প্রধানমন্ত্রীর

Ayodhya Case: নেতাদের একাংশ অযোধ্যাতে রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন।

নাসিক:

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ (বৃহস্পতিবার) অযোধ্যা (Ayodhya) রাম মন্দির ইস্যুতে বুঝে শুনে মন্তব্য করার কথা বললেন। পাশাপাশি বর্তমানে এই নিয়ে চলা আইনি প্রক্রিয়াটির প্রতিও শ্রদ্ধা রাখার পরামর্শ দেন তিনি (Narendra Modi)। বৃহস্পতিবার মহারাষ্ট্রে নির্বাচনী প্রচার শুরু করে ওই মন্তব্য করেন তিনি। ওই সভামঞ্চ থেকেই বিজেপির জোট সঙ্গী শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে (Uddhav Thackeray) আস্থা প্রকাশ করে বলেন যে প্রধানমন্ত্রী মোদির আমলেই রাম মন্দিরটি নির্মিত হবে বলে মনে করছেন তিনি। নির্বাচনী প্রচার মঞ্চ থেকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, "আমি এই 'বেশি কথা বলা লোকজনকে বলতে চাই' যে তাঁরা যেন দেশের আইনি ব্যবস্থা এবং আদালতের প্রতি কিছুটা শ্রদ্ধা রাখেন"।

সুপ্রিম কোর্টে বর্তমানে ৬০ বছরের পুরানো এই মন্দির-মসজিদ বিরোধ সংক্রান্ত মামলাটির বিষয়ে প্রতিদিন শুনানি হচ্ছে, এবং আদালত বলেছে যে প্রক্রিয়াটি ১৮ অক্টোবরের আগে শেষ করতে হবে। কেননা প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে ১৭ নভেম্বর তাঁর অবসর গ্রহণের আগে রায় দিতে হবে। না হলে পুরো প্রক্রিয়াটি আবার নতুন করে শুরু করতে হবে। এমনকী প্রয়োজনে এ বিষয়ে মধ্যস্থতা প্রক্রিয়ার বিষয়েও সায় দিয়েছে শীর্ষ আদালত। যদিও অনেক পক্ষই এই মধ্যস্থতার সম্ভাবনাকে নাকচ করেছে।

Ayodhya Case:১৮ অক্টোবরের মধ্যে শেষ করতে হবে শুনানি, প্রয়োজনে মধ্য়স্থতাও, বলল সুপ্রিম কোর্ট

তবে আইনি প্রক্রিয়া চলা সত্ত্বেও, নেতাদের একাংশ রাম মন্দির নির্মাণ বিষয়ে সোচ্চার ছিলেন। উদ্ধব ঠাকরে, যিনি মন্দিরের নির্মাণ কাজ শুরু করতে আইনী প্রক্রিয়াকে পাশ কাটিয়ে অর্ডিন্যান্স জারি করার জন্য সরকারকে চাপ দিয়ে আসছিলেন, তিনিও বারবার আস্থা প্রকাশ করেন যে প্রধানমন্ত্রী মোদির আমলে রাম মন্দির গড়ে উঠবেই।

"সরকার যেভাবে কাজ করছে, lতাতে অযোধ্যাতে রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়ে আমাদের আশা বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন আর অপেক্ষা করার কোনও মানে নেই," বলেন শিবসেনা প্রধান। বুধবারও তিনি জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করে রাজ্যটিকে দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে ভাগ করার বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সুস্পষ্ট পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেছিলেন।

সুরক্ষা দিক Supreme Court,শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ অযোধ্যা মামলার বিচারক

তবে বৃহস্পতিবার অযোধ্যা মামলা প্রসঙ্গে কারও নাম না করে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, "আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি এবং হাত জোড় করে আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি যেন এ জাতীয় অপরিণত ও অপ্রয়োজনীয় মন্তব্য না করা হয়.. বিষয়টি দেশের শীর্ষ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। বিশ্বাস রাখুন এবং আদালতকে যথাযথ হিসাবে বিবেচনা করে এই প্রক্রিয়া চলতে দিন।"

লোকসভা নির্বাচনের আগে রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে লাগাতার চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল কেন্দ্রের মোদি সরকারের উপর তখনও প্রধানমন্ত্রী মোদি সংযমের পরামর্শ দিয়েছিলেন, বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন বলে উল্লেখ করেছিলেন তিনি।

বিজেপির এই অবস্থান সম্পর্কে তখন অভিযোগ ওঠে যে দল মন্দির নির্মাণ সম্পর্কে অনিচ্ছুক এবং কেবল নির্বাচনের সময় ভোট পেতেই রাম মন্দির ইস্যুটি ব্যবহার করছে তাঁরা। সেইসময় উদ্ধব ঠাকরেই মোদি সরকারের অন্যতম সমালোচক ছিলেন।