"ঐতিহাসিক অবিচারকে সংশোধন করতেই CAA আনা হয়েছে", বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

Citizenship Amendment Act: এই আইনে আফগানিস্তান, পাকিস্তান, বাংলাদেশ থেকে ২০১৫ সালের আগে এ দেশে আসা অ-মুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে

Citizenship Amendment Act : দিল্লির সভা থেকে জোর গলায় সিএএ-র পক্ষে কথা বললেন মোদি

হাইলাইটস

  • সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পক্ষ নিয়ে জোর সওয়াল নরেন্দ্র মোদির
  • "এই আইন সংশোধন করে বহু অবিচারের জবাব দেওয়া গেছে", বলেন প্রধানমন্ত্রী
  • সিএএ-র বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে বিক্ষোভ আন্দোলন চলছে
নয়া দিল্লি:

দিল্লিতে এনসিসি সমাবেশ থেকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (CAA) পক্ষে জোর গলায় সওয়াল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। "ঐতিহাসিক অবিচারকে সংশোধন করতে এবং প্রতিবেশী দেশগুলি থেকে বিতাড়িত হয়ে এ দেশে আশ্রয় নেওয়া সংখ্যালঘুদের প্রতিশ্রুতি পূরণ করতেই সিএএ বা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (Citizenship Amendment Act) আনা হয়েছে", বলেন তিনি (Narendra Modi)। ওই সভায় বক্তব্য রাখার সময় যে সব রাজনৈতিক বিরোধীরা সিএএ-র সমালোচনা (CAA Protest) করছেন তাঁদেরও নিশানা করেন মোদি। "যারা সংবিধানের কথা বলছে তাঁরাই একদিন সংবিধানকে বাতিলের দলে ফেলে দিয়েছিল", বলেন তিনি । দেশভাগের সময় ঘটে যাওয়া অন্যায়ের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেই সময় "ভারত জুড়ে একটি বিভেদ রেখা টানা হয়েছিল" যা মানুষকে বিভক্ত করে ছিল।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে আফগানিস্তান, পাকিস্তান, বাংলাদেশ থেকে ২০১৫ সালের আগে এ দেশে আশ্রয় নেওয়া শুধুমাত্র অ-মুসলিম শরণার্থীদেরই নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। যদিও এই আইনটি পাস হওয়ার পর এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন অনেকেই। বিরোধীদের মতে, এই আইন বৈষম্যমূলক এবং সংবিধানে বর্ণিত দেশের ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তির পরিপন্থী। দেশের বিরোধী দলগুলি কেন্দ্রকে এই আইন প্রত্যাহার করার কথাও বলেছে।

CAA-বিরোধী প্রস্তাবকে "অনুপযুক্ত" বলে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে লিখলেন লোকসভার স্পিকার

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি আসলে "ভোটব্যাঙ্ক রাজনীতি" করছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। "ওঁরা কেন সেই অত্যাচারের কথা মনে রাখছে না, যখন এ দেশে এসে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছিল নিপীড়িতরা। বিরোধীদের মধ্যে কেউ কেউ আবার দলিতদের কণ্ঠস্বর হিসাবেও কাজ করছে। অথচ সেই একই একই লোক যারা পাকিস্তানে দলিতদের উপর হওয়া অত্যাচারকে উপেক্ষা করছে, ওঁরা ভুলে যাচ্ছেন যে সব নির্যাতিত মানুষ পাকিস্তান ছেড়ে ভারতে এসেছেন তঁদের মধ্যে বেশিরভাগই হলেন দলিত", বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, "বিরোধীরা প্রচার চালাচ্ছে যে আমাদের সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে গোটা বিশ্বে আমার সুনাম প্রভাবিত হয়েছে", একথা বলেও বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে আক্রমণ করেন মোদি। "এই গুজব যাঁরা ছড়াচ্ছেন তাঁদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে আমি আমার খ্যাতির জন্য কাজ করি না, আমি ভারতের সুনামের জন্যেই কাজ করি"। 

''একদলীয় শাসনের রাজ্যগুলিই CAA-বিরোধী প্রস্তাব পাস করেছে": অজিত পাওয়ার

যেভাবে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সংসদে ৬টি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে, তার পটভূমিতেই ওই কথা বলতে শোনা যায় প্রধানমন্ত্রীকে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন উদ্বেগ প্রকাশ করে যে  ভারতেই এই ঘটনা "বিশ্বের অন্যান্যদের মধ্যেও বৃহত্তম রাষ্ট্রহীনতা সঙ্কট" তৈরি করবে। পাশাপাশি, ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের ডেমোক্রেসি ইনডেক্সে ভারত আরও ১০ ধাপ পিছিয়ে গেছে। বিরোধীদের দাবি মোদি সরকারের কার্যকলাপেই ভারতের সুনাম গোটা বিশ্বের কাছে নষ্ট হচ্ছে।

More News