This Article is From Dec 04, 2019

"উফ...", কার্তি চিদাম্বরমের জামিনের পর কী প্রতিক্রিয়া দিলেন তাঁর পুত্র?

INX Media Case: ২ লক্ষ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে তাঁকে জামিন দেয় সুপ্রিম কোর্ট, পাশাপাশি তিনি এই দেশ ছেড়ে বাইরে কোথাও যেতে পারবেন না, জানায় আদালত

P Chidamabaram's Bail: আদালত জামিনের আদেশ দেওয়ার পরেই টুইট করেন কার্তি চিদাম্বরম

নয়া দিল্লি:

শেষ পর্যন্ত জামিন পেলেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম। সুপ্রিম কোর্ট তাঁর (P Chidamabaram) জামিনের নির্দেশ দেওয়ার পরেই প্রতিক্রিয়া দেন তাঁর পুত্র কার্তি চিদাম্বরম (Karti Chidambaram)। বিচারপতি আর বানুমাথির নেতৃত্বে তিন সদস্যের শীর্ষ আদালতের বেঞ্চের দেওয়া আদেশটি শোনার কয়েক মিনিটের পরেই টুইট করেন তিনি। একটি স্মাইলি দিয়ে চিদাম্বরম পুত্র টুইট করেছেন, "উফ! শেষ পর্যন্ত ১০৬ দিন পরে..." । কংগ্রেস টুইট করে: "অবশেষে সত্যের জয় হল # সত্যমেবজয়তে"। জামিনের শর্ত হিসাবে, পি চিদাম্বরমকে অবশ্যই দুটি  ২ লক্ষ টাকার বন্ড জমা দিতে হবে। পাশাপাশি প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী আদালতের অনুমতি ছাড়া দেশ ছেড়ে অন্য কোথাও ভ্রমণ করতে পারবেন না।  চিদাম্বরম যদিও এর আগে নিজের পাসপোর্ট জমা রেখেছিলেন। জামিন দেওয়ার সময় আদালত এ কথাও বলে যে যখনই প্রয়োজন হবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে হাজিরা দিতে হবে।

কংগ্রেসের প্রবীণ এই নেতা জনসমক্ষে কোনও বিবৃতি বা  সাক্ষাৎকার দিতে বা কোনও সাক্ষীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন না, বলেও নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

এর আগে দিল্লি হাইকোর্ট প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর জামিনের আবেদন প্রত্যাখ্যান করলে সেই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন চিদাম্বরম। প্রবীণ কংগ্রেস নেতার দায়ের করা ওই আবেদনের বিষয়ে ২৮ নভেম্বর রায়দান স্থগিত রাখে সুপ্রিম কোর্ট।

পি চিদাম্বরমকে জামিন দিল সুপ্রিম কোর্ট, ১০৫ দিন জেলবন্দি থাকার পর আপাত স্বস্তি

এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টর (ইডি) -এর হয়ে সওয়াল-জবাব করতে উঠে  সলিসিটার-জেনারেল তুষার মেহতা শীর্ষ আদালতে বলেন যে, চিদাম্বরম হেফাজত থেকেও গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের উপর "যথেষ্ট প্রভাব" বিস্তার করেছেন।

তবে পি চিদাম্বরমের দলীয় সহকর্মী এবং প্রবীণ আইনজীবী কপিল সিব্বল এবং এএম সিংভি বলেন যে, চিদাম্বরম যে ওই অপরাধের সঙ্গে জড়িত তার কোনও প্রমাণ নেই বা তিনি সাক্ষীদের প্রভাবিত করেছেন বা কোনও প্রমাণ নষ্টের চেষ্টা করেছেন এমন ঘটনারও নজির নেই।

জামিনের আবেদনের শুনানির আগে জেলে গিয়ে চিদাম্বরমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন রাহুল-প্রিয়াঙ্কা

গত ২১ আগস্ট সিবিআই গ্রেফতার করে পি চিদাম্বরমকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকার তহবিল পাওয়ার জন্য আইএনএক্স মিডিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন তিনি, বিনিময়ে তাঁর ছেলে কার্তি চিদাম্বরমের সংস্থাকে বিরাট অঙ্কের ঘুষ দেয় আইএনএক্স মিডিয়া।

সিবিআইয়ের পাশাপাশি ওই মামলার সঙ্গে জড়িত অর্থ পাচারের অভিযোগে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট তাঁকে ১৬ অক্টোবর গ্রেফতার করে।