সর্বদল বৈঠকে অর্থনীতি, কাশ্মীরে আটক করে রেখার বিষয় তুলল বিরোধীরা

রবিবার সকালে সর্বদলীয় বৈঠক ডাকেন সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশি, পরে তিনি জানান, ৩৭টি দল যোগ দিয়েছিল সর্বদল বৈঠকে

সর্বদল বৈঠকে অর্থনীতি, কাশ্মীরে আটক করে রেখার বিষয় তুলল বিরোধীরা

সর্বদল বৈঠকে বিরোধী নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মোদি

নয়াদিল্লি:

সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের  (Parliament's Winter Session) আগে, রবিবার সর্বদল বৈঠকে অর্থনীতি, বেকারত্ত্ব এবং কাশ্মীরে নেতাদের আটক করে রাখার ইস্যু তুলে ধরল বিরোধীরা, এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সোমবার শুরু হচ্ছে  সংসদের শীতকালীন অধিবেশন, চলবে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত। কংগ্রেসের লোকসভার নেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী বলেন, “বেকারত্ত্ব, অর্থনৈতিক সঙ্কট...সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগ রয়েছে এমন ইস্যুগুলি আমরা তুলে ধরেছি। অনেক সাংসদই ফারুক আবদুল্লার বিষয়টিও তুলে ধরেছেন। তাঁকে সংসদের আলোচনায় যোগ দিতে অনুমতি দিতে হবে”। বৈঠকের পর, কংগ্রেস সাংসদ ও নেতা গুলাম নবি আজাদ সাংবাদিকদের বলেন, “ফারুক আবদুল্লাকে বেআইনিভাবে আটক করে রাখা হয়েছে।  তাঁকে সংসদের অধিবেশনে যোগ দেওয়ার অনুমতি দিতে হবে”। পাশাপাশি জেলে থাকা প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমকেও সংসদের অধিবেশনে যোগ দেওয়ার অনুমতি দেওয়ার দাবি তুলে ধরা হয়েছে বলে জানান তিনি।

কঠিন জন নিরাপত্তা আইনে আটক ফারুক আবদু্ল্লা

রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদ বলেন, “কীভাবে একজন সাংসদকে অবৈধভাবে আটক করে রাখা যায় ? তাঁকে সংসদের অধিবেশনে আসতে দিতে হবে”। রাজ্যসভারই সদস্য ফারুক আবদুল্লা।

জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার বা ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়া এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করার সময় থেকে যে তিনজন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে আটক করা হয়, তাঁদের মধ্যে একজন ফারুর আবদুল্লা।

রবিবার সকালে সর্বদলীয় বৈঠক ডাকেন সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশি, পরে তিনি জানান, ৩৭টি দল এই বৈঠকে অংশ নিয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, গতবারের মতোই এবারের অধিবেশন ফলপ্রসূ হতে হবে। প্রহ্লাদ জোশি জানান, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “সংসদের নিয়মকানুন মতো, সব ইস্যুতেই আলোচনায় রাজি সরকার”।

মার্চের মধ্যেই বিক্রি করে দেওয়া হবে এয়ার ইন্ডিয়া ও ভারত পেট্রোলিয়াম: নির্মলা সীতারামন

সংসদের বাজেট অধিবেশনে, রেকর্ড সংখ্যক বিল পেশ এবং পাশ করায় সরকার...মোট ২৮টি  বিল পাশ করানো হয়, তারমধ্যে রয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের পুনর্গঠন বিলও। তবে এবারে সেই রাস্তা বিজেপির পক্ষে অনেকটাই কঠিন হবে, যেখানে বিরোধী বেঞ্চে রয়েছে শিবসেনা।

বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাম বিলাশ পাশোয়ানের লোকজনশক্তি পার্টি। দলের অন্যতম নেতা চিরাগ পাশোয়ান বলেন, “এনডিএ-র সবচেয়ে পুরানো জোটসঙ্গী শিবসেনা। আমরা এনডিএ জোটসহ সমস্ত ইস্যুই তুলে ধরব”।

এবারের অধিবেশনে সংসদে ২৭টি বিল পেশ করার কথা। সর্বশেষে রয়েছে  গুরুত্বপূর্ণ নাগরিকত্ত্ব সংশোধনী বিলটি, যারমাধ্যমে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, এবং আফগানিস্তানের হিন্দু, জৈন, খ্রিশ্চান, শিখ বৌদ্ধ এবং পার্সিদের নাগরিকত্ত্ব দেওয়া হবে, যদি তাঁরা তাঁদের ধর্মে আঘাতের কারণে দেশ ছাড়েন।

আগের অধিবেশনেও বিলটি পেশ করেছিল বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার, তবে বিরোধীদের প্রবল বিক্ষোভের মাঝে তা পাশ করানো যায়নি।

More News