‘পরীক্ষা পে চর্চা’-তে পড়ুয়াদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ আলোচনার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘হাজার হোক, আমিও তোমাদের পরিবারের অংশ, তাই না?’’

দিল্লির তালকোটরা স্টেডিয়ামে পড়ুয়াদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী।

নয়াদিল্লি:

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi) তাঁর বার্ষিক ‘পরীক্ষা পে চর্চা' (Pariksha Pe Charcha 2020) নিয়ে হাজার হাজার স্কুলপড়ুয়াকে বন্ধুত্বপূর্ণ আলোচনার জন্য আহ্বান করলেন। প্রসঙ্গত, এই অনুষ্ঠানে পরীক্ষার চাপ কমানো নিয়ে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। দিল্লির তালকোটরা স্টেডিয়ামে পড়ুয়াদের উদ্দেশে তিন‌ি বলেন, ‘‘কথা বলা শুরু করা যাক। ‘ফিল্টার' ছাড়াই। আমরা বন্ধুর মতো কথা বলব। ভুল হতেই পারে। এবং আমার ক্ষেত্রে যদি আমি কোনও ভুল করি তাহলে সংবাদমাধ্যমের বন্ধুরাও সেটা নিয়ে খুব খুশি হয়।'' তিনি আরও বলেন, ‘‘আমি মনে করি এই অনুষ্ঠান আমার সঞ্চালনা করা উচিত তোমাদের অভিভাবকদের হাত থেকে কিছু দায়িত্ব ভাগ করে নিতে। হাজার হোক, আমিও তোমাদের পরিবারের অংশ, তাই না?''

প্রথম প্রশ্ন করে এক ছাত্র। সে স্বীকার করে নেয় বোর্ডের পরীক্ষার কথা ভাবলে তার মুড অফ হয়। // সেই ছাত্রকে তাঁর প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী উদাহরণ দেন চন্দ্রযানের ল্যান্ডার চাঁদে নামতে ব্যর্থ হওয়ার পর কীভাবে সেই ব্যর্থতাকে সামলে উঠেছিলেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা। তিনি বলেন, ‘‘ব্যর্থতা থেকেও আমরা সাফল্যের পাঠ নিতে পারি। হতাশা আমাদের হারিয়ে দেবে, তা আমরা হতে দিতে পারি না।''

তাঁর আলোচনা শুরু করার পর প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাচ্চাদের সঙ্গে কথোপকথন তাঁর হৃদয় ছুঁয়েছে। // এবারের ‘পরীক্ষা পে চর্চা' এই অনুষ্ঠানের তৃতীয় সংস্করণ। সব মিলিয়ে ২,০০০ পড়ুয়া ও শিক্ষক এতে যোগ দেন। জানা গিয়েছে, পড়ুয়াদের মধ্যে ১,০৫০কে বেছে নেওয়া হয়েছে এক রচনা পরীক্ষার ফলাফল থেকে। সেই পরীক্ষায় নানা বিষয়ে রচনা ‌লিখতে দেওয়া হয়েছিল। তার অন্যতম ‘আমাদের কর্তব্য', ‘পরীক্ষার পরীক্ষা' ইত্যাদি। অনুষ্ঠানের আগে একটি টুইটে সকলকে এই অনুষ্ঠানের বিষয়ে জানান প্রধানমন্ত্রী। 

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com