পাঞ্জাবের মাটিতে অস্ত্র ফেলেছে পাক ড্রোন, জানাল সূত্র

পাকিস্তানের (Pakistan) ড্রোন (Drone) থেকে প্রচুর একে-৪৭ ও গ্রেনেড ফেলা হল পাঞ্জাবের (Punjab) অমৃতসরে, সীমান্তের পরেই। জ

এই পাক ড্রোনগুলি ৫ কেজি পর্যন্ত বস্তু বহনে সক্ষম। (প্রতীকী)

হাইলাইটস

  • পাক ড্রোন থেকে প্রচুর একে-৪৭ ও গ্রেনেড ফেলা হল পাঞ্জাবে
  • এই ড্রোনগুলি ৫ কেজি পর্যন্ত বস্তু বহনে সক্ষম
  • এদের সনাক্ত করাও কঠিন
চণ্ডীগড়, পঞ্জাব:

পাকিস্তানের (Pakistan) ড্রোন (Drone) থেকে প্রচুর একে-৪৭ ও গ্রেনেড ফেলা হল পাঞ্জাবের (Punjab) অমৃতসরে, সীমান্তের পরেই। জম্মু ও কাশ্মীরে জঙ্গি হানার জন্যই ওই অস্ত্র ফেলা হয়েছে বলে পাঞ্জাব পুলিশের একটি সূত্র NDTV-কে জানিয়েছে। গত ১০ দিনে ওই ড্রোন আটবার হানা দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্র জানাচ্ছে, ড্রোন থেকে স্যাটেলাইট ফোনও ফেলা হয়েছে। এই ড্রোনগুলি ৫ কেজি পর্যন্ত বস্তু বহনে সক্ষম। তাছাড়া এগুলি খুব দ্রুত উড়তে পারে। এদের সনাক্ত করাও কঠিন বলে ওই সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানাচ্ছে, স্যাটেলাইট ফোন সাধারণ নাগরিকদের ব্যবহারের জন্য নিষিদ্ধ। সুতরাং এই ফোনগুলি ফেলার অর্থ ওগুলি জঙ্গিদের জন্যই ফেলা হয়েছে। যাতে তারা জম্মু ও কাশ্মীরে হানা দিতে পারে।

‘‘অসমের নাগরিক পঞ্জি থেকে হিন্দুরা বাদ কেন?'': বিজেপিকে আক্রমণ তৃণমূলের

এক বর্ষীয়ান পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‘ওই ড্রোন প্রায় ১০ বার হানা চালিয়েছে এই সব সামগ্রী ভারতের মাটিতে ফেলতে। এবং তাকে এখনও ধরা যায়নি। এর মধ্যে পাঁচটি স্যাটেলাইট ফোন ছিল। এর থেকে ইঙ্গিত মেলে জম্মু ও কাশ্মীরের জন্যই ওগুলি ফেলা হয়েছে। জম্মু ও কাশ্মীরে মোবাইল ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে বহু দিন।''

সোমবার পাঞ্জাবে গ্রেফতার করা হয়েছে ‘খালিস্তান জিন্দাবাদ' দলের চারজনকে। তাদের কাছ থেকে সমস্ত অস্ত্রশস্ত্র  ও ১০ লক্ষ টাকার জাল নোট উদ্ধার করা হয়েছে।

‘হাউডি মোদি'-র ফ্রেমে বাঁধানো ছবি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী

Newsbeep

পাঞ্জাবের নম্বর লাগানো মারুতি সুজুকি করে পালাচ্ছিল ওই জঙ্গিরা। তাদের ধরে ফেলার পাশাপাশি একটা অর্ধদগ্ধ ড্রোনও ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। সূত্রানুসারে জানা যায়, ওই ড্রোন পাকিস্তানে উড়ে ফেরত যেতে পারছিল না বলে জঙ্গিরাই ওই ড্রোন আগুন লাগিয়ে দেয়।

পুলিশ জানাচ্ছে, লক্ষ করা গিয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে সরকারের পদক্ষেপের পরেই পাকিস্তান থেকে অস্ত্র চোরাচালানের ঘটনা বেশি চোখে পড়ছে।

রাজ্য পুলিশ জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে ওই মামলার তদন্ত করতে বলেছে।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে এই সমস্যার নিয়ন্ত্রণের আবেদন করেন।