চলন্ত ট্রেনে ভয়াবহ স্টোভ বিস্ফোরণ! প্রাণ বাঁচাতে মরণ ঝাঁপ যাত্রীদের, নিহত ৬৫

নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে এবং ইতিমধ্যেই এই আগুনে ১৫ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

চলন্ত ট্রেনে ভয়াবহ স্টোভ বিস্ফোরণ! প্রাণ বাঁচাতে মরণ ঝাঁপ যাত্রীদের, নিহত ৬৫

সাম্প্রতিক দশকে পাকিস্তানের উপনিবেশিক যুগের রেলপথ পরিবহন বেশ সমস্যা জর্জরিত অবস্থায় রয়েছে

ইসলামাবাদ:

ট্রেনের মধ্যেই আগুন জ্বালিয়ে রান্না করছিলেন যাত্রীরা! হঠাৎই পরপর ২ টি স্টোভ (gas canister) ফেটে গিয়ে মর্মান্তিক দুর্ঘটনার সাক্ষী রইল পাকিস্তান রেলওয়ে। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের একটি ট্রেনের মধ্যেই গ্যাসের স্টোভ জ্বেলে যাত্রীরা প্রাতঃরাশ রান্না করতে ব্যস্ত ছিলেন। আচমকাই ওই স্টোভে বিস্ফোরণ হয়। আগুন থেকে বাঁচতে গিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ মারেন অনেক যাত্রী। জেলা পুলিশ সুপার আমির তৈমুর খান জানিয়েছেন, সব মিলিয়ে এখনও অব্দি এই ঘটনায় প্রাণ গিয়েছে ৬৫ জন মানুষের। আগুনে দক্ষিণে পাঞ্জাব প্রদেশের রহিম ইয়ার খান (Rahim Yar Khan) শহরের কাছে ট্রেনের তিনটি কামরা ধ্বংস হয়ে যায়।

রেলমন্ত্রী (Minister for Railways) শেখ রশিদ আহমেদ (Sheikh Rashid Ahmed) জিও টেলিভিশনকে জানিয়েছেন, “দুটি রান্নার স্টোভ ফেটে গিয়েছে। ওরা রান্না করছিলেন, তাঁদের কাছে রান্না করার তেল ছিল যার ফলে ওই আগুন আরও ছড়িয়ে পড়ে। বেশিরভাগ মৃত্যুই ঘটেছে আগুন থেকে বাঁচতে ট্রেন থেকে ঝাঁপ দেওয়ার কারণে।” জেলার উদ্ধারকর্মীদের প্রধান বাকির হোসেন বলেন, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে এবং ইতিমধ্যেই এই আগুনে ১৫ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, দীর্ঘ ভ্রমণের সময় খাবার রান্না করার জন্য মানুষজন ট্রেনে রান্নার স্টোভ নিয়ে উঠে পড়েন, এটা পাকিস্তানের একটি সাধারণ সমস্যা।

দীর্ঘকাল ধরে বিনিয়োগের অভাব ও দুর্বল রক্ষণাবেক্ষণের কারণে সাম্প্রতিক দশকে পাকিস্তানের উপনিবেশিক যুগের রেলপথ পরিবহন বেশ সমস্যা জর্জরিত অবস্থায় রয়েছে।

জুলাই মাসে এক দুর্ঘটনায় এগারো জন এবং সেপ্টেম্বরে আরও একটি দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হন।

২০০৫ সালে সিন্ধু প্রদেশের একটি স্টেশনে একটি ট্রেনে অন্য ট্রেনে ধাক্কা মারলে এবং তৃতীয় আরেকটি ট্রেন এসে তার মধ্যে পড়ে গেলে প্রায় ১৩০ জন মারা গিয়েছিলেন।

More News