This Article is From Oct 09, 2019

ফের পাকিস্তানের দিক থেকে পাঞ্জাবে প্রবেশ করল ড্রোন, তল্লাশি শুরু

Jammu and Kashmir: পাকিস্তানের পাঠানো ড্রোনগুলি গত মাসে সন্ত্রাসবাদীদের ব্যবহারের জন্য প্রচুর একে -47 অ্যাসল্ট রাইফেল, স্যাটেলাইট ফোন ও গ্রেনেড ফেলে।

ফের পাকিস্তানের দিক থেকে পাঞ্জাবে প্রবেশ করল ড্রোন, তল্লাশি শুরু

সোমবার মধ্যরাতে Pakistan থেকে ড্রোনটি ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছিল বলে জানা গেছে। (প্রতিনিধিত্বমূলক)

হাইলাইটস

  • ড্রোনটি ভারতীয় ভূখণ্ডের এক কিলোমিটার ভিতরে এসেছিল বলে জানা গেছে
  • বিএসএফ এর আগে পাকিস্তানের দিকে সন্দেহজনকভাবে ড্রোন ঘোরাফেরা করতে দেখে
  • তরণ তারণ জেলায় ড্রোন অস্ত্র ফেলে যাওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই ফের এই ঘটনা
চণ্ডীগড়:

সোমবার রাতে পাঞ্জাবের ফিরোজপুর জেলার হুসেনিওয়ালা সীমান্ত দিয়ে পাকিস্তানের (Pakistan) একটি ড্রোনকে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করার খবর পেয়ে তল্লাশি অভিযান শুরু হয়। কয়েক সপ্তাহ আগে রাজ্যের তরণ তারণ জেলায় ড্রোন (Drone) মারফৎ সন্ত্রাসবাদীদের  (Terrorist) ব্যবহারের জন্য প্রচুর একে -47 অ্যাসল্ট রাইফেল, স্যাটেলাইট ফোন ও গ্রেনেড ফেলা হয়। মনে করা হচ্ছে জম্মু ও কাশ্মীরে (Jammu and Kashmir) আতঙ্ক ছড়াতেই ওই প্রয়াস। তারপরেই ফের পাকিস্তানের দিক থেকে আসা একটি ড্রোন ভারতে প্রবেশ করায় চিরুণী তল্লাশি চলছে। "সোমবার রাতে সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনী (বিএসএফ) দেখতে পায় যে ফিরোজপুরের হুসেনিওয়ালা সীমান্ত চৌকিতে পাকিস্তানের দিক থেকে একটি ড্রোন ভারতীয়  সীমান্তে প্রবেশ করছে", বিএসএফ সূত্রে এই খবর পেয়ে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই । সোমবার মধ্যরাতে ড্রোনটি অদৃশ্য হওয়ার আগে সেটিকে সীমান্ত চৌকির নিকটবর্তী ভারতীয় ভূখণ্ডের  প্রায় এক কিলোমিটার ভিতরে এসেছিল বলে জানা গেছে।

এর আগের রাতে, ওই অঞ্চলে বিএসএফ সদস্যরা রাত দশটা থেকে সাড়ে দশটার মধ্যে চারবার আন্তর্জাতিক সীমান্তের আশেপাশে পাকিস্তান থেকে সন্দেহজনকভাবে  ড্রোন উড়তে দেখে।

পাকিস্তানের পাঠানো ড্রোনগুলি গত মাসে সন্ত্রাসবাদীদের ব্যবহারের জন্য প্রচুর একে -47 অ্যাসল্ট রাইফেল, স্যাটেলাইট ফোন ও গ্রেনেড ফেলে গিয়েছিল বলে জানায় পাঞ্জাব পুলিশ।

"প্রতিরোধের জন্যে, আক্রমণের জন্য নয়", রাফাল পেয়ে বললেন রাজনাথ সিং

আধিকারিকরা মনে করছেন, এই অস্ত্রগুলি জম্মু ও কাশ্মীরের সন্ত্রাসবাদীদের জন্য ছিল, যাতে তাঁরা সেখানে আতঙ্ক ছড়াতে পারে। গত ৫ অগাস্ট কেন্দ্রীয় সরকার ৩৭০ অনুচ্ছেদের অধীনে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে সরিয়ে দেওয়ার পরেই বারবার আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা করছে সন্ত্রাসবাদীরা, যদিও সফল হয়নি তাঁরা। মোদি সরকারের কাশ্মীর পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা করে পাকিস্তান এবং রাষ্ট্রসংঘের সামনে বিষয়টি তুলেও ধরে তাঁরা।

পাঞ্জাবের মাটিতে অস্ত্র ফেলেছে পাক ড্রোন, জানাল সূত্র

গোয়েন্দা সংস্থাগুলি  জানিয়েছে যে কেন্দ্রীয় পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর তার সমস্ত সন্ত্রাসবাদী শিবিরগুলিকে ফের সক্রিয় করেছে এবং শীত শুরুর আগেই ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশের তীব্র চেষ্টা করতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে। এই মাসের শুরুতেই জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ প্রধান দিলবাগ সিং দাবি করেন যে উপত্যকায় এখনও ২০০-৩০০ জন সন্ত্রাসবাদী ঘাঁপটি মেরে রয়েছে ।

দেখুন সিঁদুর খেলার ভিডিও: