This Article is From Dec 04, 2019

পি চিদাম্বরম জামিন পেতেই ব্যঙ্গ করে টুইট বিজেপির

চিদাম্বরম বলেন, এজেন্সি এভাবে তাঁর কেরিয়ার ও ভাবমূর্তি নষ্ট করতে পারে না ভিত্তিহীন‌ অভিযোগ করে।

পি চিদাম্বরম জামিন পেতেই ব্যঙ্গ করে টুইট বিজেপির

৭৪ বছরের পি চিদাম্বরম জামিন পেলেন ১০০ দিন হেফাজতে থাকার পরে।

নয়াদিল্লি:

বুধবার সকালে আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় জামিন পেলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম (P CHidambaram)। এরপরই বিজেপি (BJP) আক্রমণ করল চিদাম্বরম ও তাঁর দল কংগ্রেসকে। বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র সম্বিৎ পাত্র চিদাম্বরমের জামিন পাওয়ার খবর পেয়ে তাঁকে ব্যঙ্গাত্মক সুরে অভিনন্দন জানান ‘‘জামিন ক্লাবে'' যোগ দেওয়ার জন্য। তাঁর ইঙ্গিত ছিল অন্য কংগ্রেস নেতা সনিয়া গান্ধি বা রাহুল গান্ধির দিকেও। প্রসঙ্গত, এঁরাও অন্যান্য মামলায় জামিনে রয়েছেন। ওই টুইট করার খানিক পরে সম্বিৎ পাত্র কংগ্রেসের একটি টুইটকে রিটুইট করেন। কংগ্রেস টুইট করেছিল ‘‘সত্য অবশেষে প্রকাশ হল''। এটি রিটুইট করে সম্বিৎ পাত্র লেখেন, দুর্নীতি উদযাপনের ক্ষেত্রে এটি ‘‘ক্লাসিক কেস''।

প্রথম টুইটে সম্বিৎ মনে করিয়ে দেন কংগ্রেসের কোন কোন নেতারা জামিনে ছাড়া পেয়েছেন। নামগুলি হল- সনিয়া গান্ধি, রাহুল গান্ধি, রবার্ট ভঢরা, মোতিলাল ভোহরা, ভুপিন্দর হুডা, শশী থারুর। এরপর অবশ্য তিনি ‘‘ইত্যাদি'' যোগ করেছেন।

বুধবার ৭৪ বছরের পি চিদাম্বরম জামিন পান। ১০০ দিন হেফাজতে থাকার পরে অবশেষে জামিন পেলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যের বেঞ্চ, যার নেতৃত্বে বিচারপতি আর বনুমাথি, জামিন দেয় চিদাম্বরমকে। গত মাসে তাঁর জামিনের আবেদন নাকচ করে দেয় দিল্লি হাইকোর্ট।

চিদাম্বরম জামিন পাওয়ার পরে কংগ্রেসের পাশাপাশি উচ্ছ্বসিত হয়ে টুইট করেন তাঁর পুত্র কার্তি চিদাম্বরমও। তিনি টুইট করে জানান, ‘‘অবশেষে ১০৬ দিন পরে।''

বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় শুনানি শুরু হয়। সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টকে ভর্ৎসনা করে এবং জানায় ‘‘ট্রিপল টেস্ট''-এর ফল চিদাম্বরমের অনুকূলেই রয়েছে। এই তিনটি বিষয় হল— তিনি দেশ ছেড়ে পালাননি, প্রমাণ নষ্ট করেননি এবং তদন্তকারীদের সঙ্গে সহযোগিতা করছেন।

শীর্ষ আদালতে শুনানি চলার সময় ইডি দাবি করে, চিদাম্বরম গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীদের প্রভাবিত করছেন এমনকী হেফাজতে থেকেও। চিদাম্বরম এর আপত্তি করে বলেন, এজেন্সি এভাবে তাঁর কেরিয়ার ও ভাবমূর্তি নষ্ট করতে পারে না ভিত্তিহীন‌ অভিযোগ করে।

গত ২১ আগস্ট সিবিআই গ্রেফতার করে পি চিদাম্বরমকে।