নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে আজ বিরোধীদের বৈঠক, থাকছেন না মমতা

গত সপ্তাহে ধর্মঘটের নামে যেভাবে বামফ্রন্ট-কংগ্রেস কর্মীরা সহিংসতা ও ভাঙচুর চালান তার প্রতিবাদেই বৈঠকে যোগ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন Mamata Banerjee

Opposition Meet: বিরোধী দলগুলিকে নিয়ে ওই বৈঠকের আহ্বান জানান কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি

হাইলাইটস

  • গত সপ্তাহেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে তিনি বিরোধী বৈঠকে যোগ দেবেন না
  • সূত্রের খবর, বিরোধীদের ডাকা বৈঠকে থাকছেন না মায়াবতীও
  • সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির বিরোধিতায় বৈঠকে বসছে কংগ্রেস সহ বিরোধীরা
নয়া দিল্লি:

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জিকরণের প্রতিবাদের পটভূমিতে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধির (Sonia Gandhi) আহ্বানে সাড়া দিয়ে আজ (সোমবার) বৈঠকে বসছে বিরোধী দলগুলি (Opposition)। সিএএ ও এনআরসির প্রতিবাদে দেশ জুড়ে বিক্ষোভের ঝড় আছড়ে পড়ে, বিরোধীরাও ওই দুইয়ের বিরুদ্ধে সরব হয়। তবে দেশের বিভিন্ন বিরোধী দলের নেতারা এই বৈঠকে অংশ নিলেও যোগ দিচ্ছেন না তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। সূত্রের খবর, ওই বৈঠকে না থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রধান মায়াবতীও। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (CAA) বিরুদ্ধে সুর চড়া করলেও এই আইনের বিরোধিতায় হওয়া দেশের অন্য বিরোধী দলগুলির বৈঠকে থাকবে না তৃণমূল কংগ্রেস, আগেই জানিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ নিয়ে "নোংরা রাজনীতি হচ্ছে" বলে মতপ্রকাশ করেন তিনি।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "গত বুধবার পশ্চিমবঙ্গে বাম ও কংগ্রেস বনধের নামে যে সহিংসতা চালিয়েছে আমি সেগুলোকে একেবারেই সমর্থন করি না, আর তার জন্য়েই আমি ১৩ জানুয়ারি নয়া দিল্লিতে সনিয়া গান্ধির ডাকা বৈঠক বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।"  তিনি আরও বলেন,"আমিই প্রথম সিএএ, এনআরসির বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেছি। কিন্তু সিএএ-এনআরসি-র নামে বাম ও কংগ্রেস যা করছে তা কোনও আন্দোলন নয়, বরং ভাঙচুর।"

"নোংরা রাজনীতি হচ্ছে":নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিরোধী দলগুলির বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

এদিকে মায়াবতীও রাজস্থানের কোটায় একটি হাসপাতাল শিশুমৃত্যুর বিষয়ে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ভদরাকে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, "কংগ্রেসের সভানেত্রী" যদি যে মায়েরা সন্তানহারা হয়েছেন তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে কোটা না যান, তবে উত্তরপ্রদেশের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলির সঙ্গে তাঁর বৈঠককেও "রাজনৈতিক স্বার্থে করা নাটক" হিসাবে বিবেচিত হবে।

এবার গানে-গানে এনআরসি-সিএএ বিরোধিতা, মুখ্যমন্ত্রীর লেখা গান গাইলেন ইন্দ্রনীল

শনিবার কংগ্রেস প্রধান সনিয়া গান্ধি নাগরিকত্ব আইনকে ফের একবার "বৈষম্যমূলক এবং বিভেদ সৃষ্টিকারী" আইন বলে উল্লেখ করে তোপ দেগে বলেন যে এই আইনের আসল উদ্দেশ্য হল ধর্মের ভিত্তিতে মানুষকে বিভক্ত করা। কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে তিনি বলেন," সিএএ একটি বৈষম্যমূলক ও বিভেদ সৃষ্টিকারী আইন। এই আইনের কু-উদ্দেশ্য প্রতিটি দেশপ্রেমিক, সহনশীল এবং ধর্মনিরপেক্ষ ভারতীয়দের কাছে স্পষ্ট: এটি ভারতীয় জনগণকে ধর্মীয় ভিত্তিতে বিভক্ত করে"। ইতিমধ্যেই কংগ্রেস অবিলম্বে সিএএ প্রত্যাহার এবং এনপিআরের কাজ বন্ধ করার দাবি জানিয়েছে।

More News