কেজি প্রতি পেঁয়াজের দাম ছুঁতে পারে ১৫০ টাকা! দাবি ব্যবসায়ীদের

পেঁয়াজের দাম (Onion price) মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ার উপক্রম। এরই মধ্যে আরও খারাপ খবর। প্রতি কেজি পেঁয়াজের মূল্য ছুঁতে পারে ১৫০ টাকা!

কেজি প্রতি পেঁয়াজের দাম ছুঁতে পারে ১৫০ টাকা! দাবি ব্যবসায়ীদের

পেঁয়াজের দাম আরও বাড়তে বলে আশঙ্কা ব্যবসায়ী মহলে।

পেঁয়াজের দাম (Onion price) বাড়তে বাড়তে মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ার উপক্রম। এরই মধ্যে আরও খারাপ খবর। আরও বাড়তে পারে পিঁয়াজের (Onion) দাম! প্রতি কেজির মূল্য ছুঁতে পারে ১৫০ টাকা। মঙ্গলবার শহরের বাজার, ব্যবসায়ী মহলের তরফে এমনটাই জানা যাচ্ছে। এদিনই পাইকারি বাজারে ১১০-১৩০ টাকার মধ্যে ঘোরাফেরা করেছে পিঁয়াজের দাম। এই দামকে যদি ইঙ্গিত হিসেবে ধরা যায়, তাহলে পেঁয়াজের দাম ১৫০ টাকা প্রতি কেজি পৌঁছতে আর দেরি নেই বলেই জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কৃষি বিশ্লেষক শিবু মালাকার জানাচ্ছেন, ‘‘নাসিকে পাইকারি বাজারে ৪০ কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫,৪০০ টাকায়। অর্থাৎ ১৩৫ টাকা কেজিতে।''

কতদিন পর্যন্ত এমন দামি থাকবে পেঁয়াজ। এক ব্যবসায়ী জানাচ্ছেন, জানুয়ারির শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই। সেই সময় নাসিক ও বেঙ্গালুরু থেকে নতুন শস্য বাজারে এলে হয়তো পড়তে শুরু করতে পারে পেঁয়াজের দাম।

জল মেশানো দুধের পর Mid-Day Meal-এ ডালে মরা ইঁদুর

এদিকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে ভর্তুকিযুক্ত পেঁয়াজ বিক্রি করছে ‘সুফল বাংলা' স্টোর্স ও মোবাইল ভ্যানে।

মঙ্গলবার সেখানে ৫৯ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে বলে জানাচ্ছেন এক কর্মী।

কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ আমদানি নিষিদ্ধ করেছে এরই মধ্যে। পাশাপাশি ১.২ লক্ষ টন পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। লক্ষ্য একটাই। পেঁয়াজের বাজারের আগুন দামকে প্রশমিত করা।

সৈকতে দূষণের ফেনা! আশঙ্কাকে হেলায় উড়িয়ে সেলফির মেলা

সূত্রানুসারে রবিবার জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকারের বাণিজ্য ফার্ম এমএমটিসি, যারা কেন্দ্রের তরফে পেঁয়াজ আমদানি করছে, তারা ১১,০০০ টন পেঁয়াজ আনানোর অর্ডার দিয়েছে তুর্কি থেকে।

বহু ব্যবসায়ী অবশ্য দাবি করছেন, সীমান্ত এলাকা দিয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশে পেঁয়াজ বেআইনি ভাবে রফতানি করা হচ্ছে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News