এইমসের কাছ থেকে চিদাম্বরমের স্বাস্থ্যপরীক্ষার রিপোর্ট তলব করল আদালত

INX Media Case: দিল্লি হাইকোর্ট জানিয়েছে, শুক্রবার বিকেলের মধ্যে এইমসকে এই রিপোর্ট জমা দিতে হবে

এইমসের কাছ থেকে চিদাম্বরমের স্বাস্থ্যপরীক্ষার রিপোর্ট তলব করল আদালত

সোমবার এইমস হাসপাতালে ভর্তি হল ৭৪ বছরের কংগ্রেস নেতা P Chidambaram

নয়া দিল্লি:

দিল্লি হাইকোর্ট বৃহস্পতিবার অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্সেস অর্থাৎ এআইএমএসকে (AIIMS) একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় জেলবন্দি প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদাম্বরমের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করতে বলেছে। শুক্রবার বিকেলের মধ্যে ওই বোর্ডকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট জমা দিতে হবে বলে আদালত (Delhi High Court) জানিয়েছে। আদালতে নিজের অন্তর্বর্তী জামিনের জন্য অনুরোধ করেন ওই প্রবীণ কংগ্রেস নেতা (P Chidambaram)।  ৭৪ বছরের চিদাম্বরম সোমবার এইমস-এ ভর্তি হন এবং পেটের অসুস্থতার চিকিৎসার প্রয়োজনে হায়দরাবাদে যাওয়ার জন্য আদালতের কাছে নিজের জামিনের আবেদন করেছিলেন।

উচ্চ আদালত বলেছে যে হায়দরাবাদের বিখ্যাত গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজিস্ট নাগেশ্বর রেডিকে বর্তমানে তিহার জেলে বন্দি পি চিদাম্বরমের স্বাস্থ্যের বিষয়ে মতামত দেওয়ার জন্য এইমস বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। বুধবার, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের হেফাজত শেষ হওয়ার পরে দিল্লির একটি আদালত ওই কংগ্রেস নেতাকে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকার জন্যে ফের তিহার জেলেই স্থানান্তরিত করে।

পেটের যন্ত্রণা, এআইআইএমএসে ভর্তি করা হল পি চিদাম্বরমকে

তিহার কারাগারে প্রবীণ কংগ্রেস নেতার পৃথক সেল, পশ্চিমী কায়দার শৌচাগার, ঘর থেকে আনা রান্না করা খাবার ও ওষুধ পাওয়ার সুবিধা থাকবে বলেও জানায় আদালত।

আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় গ্রেফতার হওয়া প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী নিজের চিকিৎসার জন্যে অন্তর্বর্তী জামিন চান, তিনি বলেন যে জেলে থেকে তাঁর অবস্থা আরও খারাপ হচ্ছে এবং সুস্থ থাকতে হলে তাঁকে জীবাণুমুক্ত পরিবেশে থাকতে হবে।

পি চিদাম্বরমের আইনজীবী ও প্রবীণ কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বাল বৃহস্পতিবার আদালতে বলেছেন, "আমার একমাত্র অনুরোধ তাঁকে এখনই জীবাণুমুক্ত পরিবেশ দেওয়া হোক। যদি এইমস বোর্ড বলে যে তাঁর এটির দরকার নেই তবে আপনি তাঁকে ফেরত পাঠাতে পারেন"।

তদন্তকারীসংস্থার আর্জি খারিজ, ফের তিহার জেলেই পি চিদাম্বরম

তার প্রধান জামিনের আবেদন শুনানি হবে আগামী ৪ নভেম্বর।

গত ২১ আগস্ট সিবিআই গ্রেফতার করে পি চিদাম্বরমকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকার তহবিল পাওয়ার জন্য আইএনএক্স মিডিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন তিনি, বিনিময়ে তাঁর ছেলে কার্তি চিদাম্বরমের সংস্থাকে বিরাট অঙ্কের ঘুষ দেয় আইএনএক্স মিডিয়া।

এরপর গত ১৬ অক্টোবর তাঁকে গ্রেফতার করে ইডি। তিহার জেল থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

গত সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্ট চিদাম্বরমকে জামিন দেয়। জানিয়ে দেয়, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দেশ ছেড়ে পালানোর কোনও সম্ভাবনা নেই। কোনও সাক্ষীকে প্রভাবিত করতে পারেন, তেমন কোনও প্রমাণও পাওয়া যায়নি। আদালত তাঁকে ১ লক্ষ টাকার বন্ডে জামিন দিয়েছিল।

সিবিআইয়ের চার্জশিটে, পি চিদাম্বরম, কার্তি চিদাম্বরমসহ একাধিক পদস্থ আমলা এবং বেসরকারি সংস্থার বিরুদ্ধে সরকারের ক্ষতির কারণ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। পি চিদাম্বরম ৯.৯৬ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

More News