আদবানীর মতো মহান মানুষ বিজেপিকে শক্তিশালী করেছেন গর্ব হচ্ছেঃ মোদী

বিজেপির প্রবীণ নেতা দেশের প্রাক্তন উপপ্রধানমন্ত্রী লালকৃষ্ণ আদবানীর ব্লগ ঘিরে চর্চা শুরু হয়েছে। একেবারে প্রথম দিন থেকে বিজেপি কীভাবে পরিচালিত হয়েছে তা নিয়ে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছন আদবানী।

আদবানীর মতো মহান মানুষ বিজেপিকে শক্তিশালী করেছেন গর্ব হচ্ছেঃ মোদী

গুজরাটের গান্ধীনগর আসন  থেকে লড়াই করা হচ্ছে না  আদবানীর।

হাইলাইটস

  • আদবানীর মতো মহান মানুষ বিজেপিকে শক্তিশালী করেছেন গর্ব হচ্ছেঃ মোদী
  • আদবানীজি দারুণ ভাবে বিজেপির মূল মন্ত্রটি তুলে ধরেছেনঃ মোদী
  • এই বিজেপির সদস্য হতে পেরে আমি গর্বিতঃ মোদী
নিউ দিল্লি:

বিজেপির প্রবীণ নেতা দেশের প্রাক্তন উপপ্রধানমন্ত্রী (EX Deputy Prime Minister) লালকৃষ্ণ আদবানীর ব্লগ ঘিরে চর্চা শুরু হয়েছে। একেবারে প্রথম দিন থেকে বিজেপি কীভাবে পরিচালিত হয়েছে তা নিয়ে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছন আদবানী। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক থেকে শুরু করে অনেকেই মনে করছেন তিনি আসলে বিজেপির বর্তমান নেতৃত্বকেই নিশানা করেছেন। এমনই জল্পনার মাঝে টুইট করলেন প্রধানমন্ত্রী। তাতে তিনি লেখেন, আদবানীজি দারুণ  ভাবে বিজেপির মূল মন্ত্রটি তুলে ধরেছেন । বিজেপি বিশ্বাস করে সবার আগে দেশ, তারপর দল আর নিজের কথা আসে সবচেয়ে পরে। এই বিজেপির সদস্য হতে পেরে আমি গর্বিত। আর আদবানীর মতো  মানুষ  বিজেপিকে শক্তিশালী করার কাজ করেছেন ভেবেও গর্ব হচ্ছে ।           

অভিষেকের স্ত্রীকে নোটিশ পাঠাল কেন্দ্র

আদবানি লেখেন, “গণতন্ত্র এবং গণতন্ত্রের বিরাট ঐতিহ্যকে দল এবং দেশের জন্য রক্ষা করাই বিজেপির চিরকালীন ঐতিহ্য। ভারতীয় গণতন্ত্রের বীজ লুকিয়ে রয়েছে সব ধরনের মতামতকে সম্মান করা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় গভীরভাবে বিশ্বাস করার মধ্যে। বিজেপির একেবারে জন্মলগ্ন থেকেই সেটা বিশ্বাস করে এসেছে। রাজনৈতিক মতাদর্শের ফারাক রয়েছে এমন কাউকেই ‘শত্রু' বলে দাগিয়ে দেয়নি বিজেপি। বরং, তাঁদের ভিন্নমতাবলম্বী হিসেবেই শ্রদ্ধা করে এসেছে আমাদের দল”।

Newsbeep

তিনি আরও বলেন, “ভারতের জাতীয়তাবাদের যে ধারণা, সেই ধারণার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই ভিন্ন রাজনৈতিক মতাবলম্বীদের কখনওই ‘ভারত-বিরোধী' বলে দাগিয়ে দেওয়ার রাজনীতি করিনি আমরা। ব্যক্তিগত এবং রাজনৈতিক স্তরেও প্রতিটি নাগরিকের মতপ্রকাশের অধিকারের স্বপক্ষেই কথা বলে এসেছে বিজেপি”।  

এবার লোকসভা নির্বাচনে গুজরাটের গান্ধীনগর আসন  থেকে লড়াই করা হচ্ছে না  আদবানীর।  সেখান থেকে ভোটে লড়বেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। এই ঘটনায় ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদবানী। বিজেপির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এবং অতীতে সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসা  আদবানীর মনে হয়েছিল বাড়তি বয়সের কারণে দল যে তাঁকে ভোটে লড়তে দিতে চায় না সেকথা শীর্ষ নেতৃত্বের জানানো উচিত ছিল তাঁকে।সেটা হয়নি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদবানী।