পুজোয় নুসরতের ঢাক, নাচে তোপ মৌলবীর, ট্যুইটার দুনিয়ার প্রশংসা

দুর্গাপুজোয় শাড়ি পড়ে ঢাক বাজানোর ছবি ইন্সাগ্রামে পোস্ট করেন নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan) স্বা্মী নিখিল জইন

পুজোয় নুসরতের ঢাক, নাচে তোপ মৌলবীর, ট্যুইটার দুনিয়ার প্রশংসা

স্বামী নিখিল জইনের সঙ্গে পুজো কাটান নুসরত জাহান

কলকাতা:

রবিবার মহাষ্টমীর (Mahashtami 2019) দিন কলকাতার একটি পুজোমণ্ডপে (Kolkata Durga  Puja) উৎসবে যোগ দেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহান (Nusrat Jahan) । সেখানে শাড়ি পরিহিতা নুসরতকে ঢাক বাজাতে দেখা যায়। সেই ছবি আবার ইন্সাগ্রামে পোস্ট করেন তাঁর স্বামী নিখিল জইন (Nikhil Jain) । এরপরেই নুসরতের নিন্দা করেন উত্তরপ্রদেশের এক মৌলবী। তাঁর অভিযোগ, “ইসলাম এবং মুসলিমদের অসম্মান করেছেন” নুসরত জাহান, পাশাপাশি ওই মৌলবীর দাবি, নিজের ধর্মকে অপমান করেছেন নুসরত জাহান, এবং যেহেতু তিনি হিন্দু ব্যবসায়ী নিখিল জইনকে বিয়ে করেছেন, সেই কারণে, নিজের নাম পাল্টে নেওয়া উচিত নুসরতের।

সংবাদসংস্থা পিটিআই ওই মৌলবী মুফতি আসাদ কাসমিকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, “এটা নতুন কিছু নয়। ইসলামে নির্দেশ আছে, শুধুমাত্র আল্লাহকে স্মরণ করার, তারপরেও, তিনি হিন্দু দেবীর পুজো করছেন। তিনি যা করছেন, তা “হারাম (পাপ)”। তিনি ইত্তেহাস-উলেমায়ে হিন্দের ভাইস-প্রেসিডেন্ট। তিনি আরও বলেন, “তিনি ভিন ধর্মে বিয়ে করেছেন। তিনি নিজের ধর্ম এবং নাম পরিবর্তন করে নিতে পারেন। যিনি মুসলিম নামের অমর্যাদা করেন এবং ইসলাম ও মুসলিমদের অমর্যাদা করেন, তেমন কাউকে ইসলাম সম্প্রদায়ের প্রয়োজন নেই”।

বিয়ের পর, শাঁখা সিন্দুর পরার কারণেও তোপের মুখে পড়েছিলেন নুসরত জাহান।

ওই মৌলবীর জবাবে, উত্তরপ্রদেশের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভি বলেন, সিন্দুর এবং মঙ্গলসূত্র পড়ায় সম্পূর্ণ স্বাধীন নুসরত জাহান। তাঁর কথায়, “সমস্ত সামগ্রি পড়তে ইসলামে বাধা নেই। কোনও সমস্যা নেই। কোনও ইসলাম সম্প্রদায়ের  মানুষ যদি অন্য কোনও ধর্মে যেতে চান, তাঁরা তা করতে পারেন, ইসলাম থেকে কেউ কাউকে তাড়াতে পারে না”।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের টিকিটে জয়ী হন নুসরত জাহান। সুরুচি সংঘের পুজোয় প্রার্থনা করা এবং ঢাক বাজানোয় প্রশংসা পান সাংসদ এবং তাঁর স্বামী।

পুজোর দিন নুসরত জাহানের পড়নে ছিল লাল শাড়ি, মহাষ্টমীর দিন ঢাক বাজাতে দেখা যায় তাঁকে।

নিখিল জইনের ইন্সাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়, সঙ্গে ছিল একটি মেসেজ, “এই প্রথমবার স্ত্রী @nusratchirps সঙ্গে ঢাক বাজালাম”।

পুজোর পর, সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময়  নুসর জাহান বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতিকে তুলে ধরতে চান তিনি। তাঁর কথায়, “আমি মনে করি, সমস্ত ধর্মের মধ্যে সম্প্রীতি বজায় রাখার আমার নির্দিষ্ট পদ্ধতি আছে। বাংলায় জন্ম এবং বড় হয়েছি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে অনুসরণ করে আমি ঠিক করছি বলেই মনে করি। আমরা এখানে সব ধর্মের উৎসব পালন করি”।

একই  সুর শোনা যায় তাঁর স্বামী নিখিল জইনের গলাতেও। তিনি বলেন, “ভিন ধর্মের বিয়ে বহু মানুষ সমস্যায় পড়ছেন। ভারতে, নুসরতের হিন্দু অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া একটি ইতিবাচক বার্তা। আমি মনে করি, ভারতের একজন নাগরিক হিসেবে, নিজের ধর্ম ছাড়াও, সব ধর্মকেই মেনে নেওয়া উচিত”।

উত্তরপ্রদেশের ওই মৌলবীর সমালোচনার পরেই, নুসর জাহানের পাশে দাঁড়িয়েছে নেটপাড়া তথা সোশ্যাল মিডিয়া। ধর্মনিরপেক্ষতাকে তুলে ধরার জন্য অভিনেত্রীর প্রশংসাও করেন তিনি। একজন সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, “আপনি খুব সহজেই এবং সাধারণভাবে জাতীয়তাবাদী এবং হিন্দুদের মন জয় করে ফেললেন। নুসরত, আপনাকে আমরা সবাই ভালবাসি”।

“উঠে দাঁড়িয়ে” তাঁকে সম্মান জানানো উচিত বলে মন্তব্য আরেকজনের।

হিন্দুরা ইদ পালন করলে, সেই ভিন্নমতের কথা তুলে ধরেন আরেকজন।

আরেকজন লেখেন, “আপনার আরও শক্তি হোক”।

এর আগে, আসে মা দুর্গা আসে, পুজোর গান গেয়েছিলেন নুসরত জাহান এবং তাঁর বন্ধু মিমি চক্রবর্তী। ফেসবুকে ভিডিটি প্রায় কয়েক মিলিয়ন নেটিজেন দেখেন।

এর আগে জুনে সিন্দুর পড়ায়, মুসলিম মৌলবীর সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন নুসরত জাহান।

 IANS, PTI এর তথ্য  সংযোজিত হয়েছে

More News