বাংলাতেও চালু হবে NRC , বললেন দিলীপ ঘোষ

এবারের লোকসভা নির্বাচনে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী এবং এনআরসি কার্যকর ছিল একটি ভোটপ্রচারের একটি অন্যকম বড় ইস্যু।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
বাংলাতেও চালু হবে NRC , বললেন দিলীপ ঘোষ

দিলীপ ঘোষ বলেন, নাগরিকত্ত্ব সংশোধনী বিলের মাধ্যমে হিন্দু শরণার্থীদের স্বার্থ রক্ষায় বদ্ধপরিকর বিজেপি।


কলকাতা: 

শনিবার সকালে অসমের জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর  (NRC) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এদিনই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) বললেন, দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার কথা ভেবে, বাংলাদেশী মুসলিমদের তাড়াতে এরাজ্যেও চালু করা হবে এনআরসি। তিনি বলেন, নাগরিকত্ত্ব সংশোধনী বিলের মাধ্যমে হিন্দু শরণার্থীদের স্বার্থ রক্ষায় বদ্ধপরিকর বিজেপি। তাঁর অভিযোগ, সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্ক ধরে রাখতে, সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে বাংলাদেশী মুসলিমদের অনুপ্রবেশে সহায়তা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। সাংবাদিকদের বিজেপির (BJP) রাজ্য সভাপতি বলেন, “আমাদের দাবি, অসমের মতোই, বাংলাতেও জাতীয় নাগরিকপঞ্জী চালু করা হোক। তৃণমূল সরকার এই কাজ করতে ইচ্ছুক না হয়, আমরা এটাকে কার্যকর করব এবং ২০২১-এ ক্ষমতায় এলে রাজ্য থেকে বাংলাদেশী মুসলিমদের তাড়াব”।

অসম NRC-এর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত, ঠাঁই পেলেন ৩.১ কোটি মানুষ: ১০ টি তথ্য

বিজেপির বঙ্গ ব্রিগেডের ক্যাপ্টেন আরও বলেন, ধর্মীয় নির্যাতন বা অন্যান্য কারণে বাংলাদেশ বা অন্যান্য দেশ থেকে যে সমস্ত হিন্দু শরণার্থীদের দেশ ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে, নাগরিকত্ত্ব বিলের মাধ্যমে তাঁদের ভারতের নাগরিকত্ত্ব দেওয়া হবে। তাঁর কথায়, “হিন্দু শরণার্থীদের আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। বিজেপি তাঁদের সঙ্গে রয়েছে এবং তাঁদের নাগরিকত্ত্ব দেওয়া হবে”।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী এবং এনআরসি কার্যকর ছিল একটি ভোটপ্রচারের একটি অন্যকম বড় ইস্যু। মে মাসে সমাপ্ত হওয়া লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ৪২ আসনের মধ্যে ১৮টি জয়ী হয় বিজেপি। সেখানে ২২ আসনে ফোটে জোড়াফুল।

নাগরিকত্ত্বের তালিকায় বাদ প্রাক্তন সেনাকর্মী, “অবাক হননি” তিনি

শনিবার সকালে প্রকাশ করা হয় এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা। এই তালিকায় অসমের বাসিন্দা ভারতীয় নাগরিকদের চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রায় ১৯ লক্ষ মানুষ এই তালিকার বাইরে থাকায় তাঁদের ভবিষ্যত অনিশ্চিত।

এনআরসির রাজ্য কো-অর্ডিনেটরের দফতরের তরফে একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জাতীয় নাগরিকপঞ্জীতে নাম তোলার আবেদন করেছিলেন অসমের ৩,৩০,২৭,৬৬১ জন মানুষ। তারমধ্যে চূড়ান্ত তালিকায় নাম উঠেছে ৩,১১,২১,০০৪ জনের, তালিকার বাইরে রয়েছেন ১৯,০৬,৬৫৭ জন।

তালিকার বাইরে থাকা ব্যক্তিরা ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইবুনালে আবেদন করতে পারবেন।

“হিন্দুদের বিতাড়িত করার ষড়যন্ত্র”, NRC তালিকা নিয়ে অখুশী বিজেপি নেতা

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, পর্যাক্রমে ১০০০ সেবা কেন্দ্র খোলা হবে। আপাতত, ১০০ সেবা কেন্দ্র চালু রয়েছে। সেপ্টেম্বরের শুরুতে সেই সংখ্যা ২০০ করা হবে। NRC-এর চূড়ান্ত তালিকায় নাম না থাকলে কেউ ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালের পর হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টেও আবেদন করতে পারেন। সেই রায় না বের হওয়া পর্যন্ত  কাউকে ডিটেনশন সেন্টারে পাঠানো হবে না।

 



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................