ল্যরা জানালেন, নীল আর্মস্ট্রং চাঁদের মাটি উপহার দিয়েছিলেন, নাসা পারলো না ফেরত নিতে

মুরে, যিনি এখন ল্যরা সিক্কো, আটোগ্রাফটা নিজের কাছে রেখে দিলেও বহুদিন সেই শিশিটা খুঁজে পাননি। পাঁচ বছর আগে তাঁর মা- বাবার মৃত্যুর পর তাঁদের জিনিসপত্র দেখতে গিয়ে তিনি শিশিটা আবার খুঁজে পান।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
ল্যরা জানালেন, নীল আর্মস্ট্রং চাঁদের মাটি উপহার দিয়েছিলেন, নাসা পারলো না ফেরত নিতে

নীল আর্মস্ট্রং-এর উপহার দেওয়া চাঁদের মাটি ফেরত নিতে পারবে না নাসা, ল্যরা সিক্কো নিজের কাছেই রাখতে পারবেন।

এক শনিবার বছর দশেকের ছোট্ট মেয়ে ল্যরা মুরে তাঁর ন্যানির সঙ্গে তাঁর বাড়ির বাইরে ঘুরছিল। তাঁর মা উৎসাহ সহকারে মেয়ের হাতে একটা ছোট কাঁচের শিশিতে করে কিছুটা ধুলো তাঁর হাতে তুলে দিয়ে জানান ওটা চাঁদের মাটি।   

এর সঙ্গে হাতে লেখা একটা নোট ছিল।

"টু ল্যরা আন মুরে- বেস্ট অফ লাক- নীল আর্মস্ট্রং অ্যাপোলো 11।"

মুরে, যিনি এখন ল্যরা সিক্কো, আটোগ্রাফটা নিজের কাছে রেখে দিলেও বহুদিন সেই শিশিটা খুঁজে পাননি। পাঁচ বছর আগে তাঁর মা- বাবার মৃত্যুর পর তাঁদের জিনিসপত্র দেখতে গিয়ে তিনি শিশিটা আবার খুঁজে পান।

সিক্কো জানিয়েছেন নীল আর্মস্ট্রং তাঁর বাবার বন্ধু ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন তাঁরা একসঙ্গে ইউএস আর্মি ক্রপ এবং ফেডারাল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভে কাজ করেছিলেন। নীল আর্মস্ট্রং চাঁদের মাটি তাঁর বন্ধুর ছোট্ট মেয়েকে উপহার দেন।
 
neil armstrong letter wp 650

নাসা সিক্কোর বিরুদ্ধে বেআইনি ভাবে সরকারি সম্পত্তি রেখে দেওয়ার জন্য মামলা করে। কিন্তু মামলার শুনানিতে বলা হয়, সিক্কো ওই মাটি উপহার পেয়েছিলেন ফলে তিনি বেআইনি কোনও কাজ করেননি। তাই নাসা পারবে না ওই মাটি ফেরত নিতে।

সাধারণ মানুষ চাঁদের মাটি নিজেদের কাছে রাখতে পারবে না এমন কোনও আইন নেই। সিক্কোর আইনজীবি ম্যাকহাঘ জানান, সিক্কো ওই মাটির আইনত যোগ্য মালিক। আর্মস্ট্রং-এর হাতে লেখা নোট বিশেষজ্ঞদের দ্বারা পরীক্ষা করানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

চাঁদের সেই মাটি পরীক্ষার পর বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, “চাঁদের মাটি আলাদা করে বোঝা সম্ভব নয়। হতে পারে পৃথিবীর মাটির সঙ্গে চাঁদের মাটি কিছুটা মেশানো হয়েছে”।

Comments
সিক্কো জানিয়েছেন তাঁর কাছে এই মুহূর্তে শিশিটা আর রাখা নেই। তাঁর উকিল জানিয়েছেন শিশিটা এবার সাবধানে রাখা হবে।
 

 



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................