মেহবুবা মুফতি ভাল নেই, দাবি কন্যার, ভাল জায়গায় স্থানান্তরের দাবি

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে আটক করার পর থেকেই, তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলটি সামলান সানা ইলতিজা জাভেদ

মেহবুবা মুফতি ভাল নেই, দাবি কন্যার, ভাল জায়গায় স্থানান্তরের দাবি

অগস্ট থেকে আটক রয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি

নয়াদিল্লি:

অগস্ট থেকে জেলেই রয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের (Jammu and Kashmir) প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি (Mehbooba Mufti), তাঁকে ভালভাবে রাখা হয়নি বলে দাবি করলেন মুফতি কন্যা সানা ইলতিজা জাভেদ (Sana Iltija Javed) । বর্তমানে তাঁকে যে জায়গায় রাখা হয়েছে, সেখান থেকে স্থানান্তরতিত করারও দাবি করলেন তিনি, এবং কোনও অবাঞ্ছিত ঘটনা ঘটলে, সরকারই দায়ী থাকবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন সানা ইলতিজা জাভেদ। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে আটক করার পর থেকেই, তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলটি সামলান সানা ইলতিজা জাভেদ, সেখানেই তিনি লেখেন, “আমার মায়ের ভালোর জন্য আমি বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করেছি। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় থাকার উপযুক্ত জায়গায় তাঁকে স্থানান্তরিত করার জন্য  একমাস আগে আমি শ্রীনগরের ডিসিকে লিখেছি। যদি তাঁর কিছু হয়, ভারত সরকার দায়ী থাকবে”।

আসছে শীত, হোটেলে আটক জম্মু ও কাশ্মীরের নেতাদের স্থানান্তকরণের ভাবনা

শ্রীনগরের ডেপুটি কমিশনারকে লেখা চিঠিও পোস্ট করেছেন মেহবুবা মুফতির কন্যা। সেই চিঠিতে, তিনি লেখেন, তিনি ভাল নেই, ফলে একজন চিকিৎসক ৬০ বছর বয়সী এই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর একাধিক পরীক্ষা করেন। পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, তাঁর ভিটামিন ডি, হিমোগ্লোবিন এবং ক্যালসিয়ামের পরিমাণ কম রয়েছে। 

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, “যে জায়গায়, তাঁকে রাখা হয়েছে, তা কাশ্মীরের প্রচণ্ড ঠাণ্ডার উপযু্ক্ত নয়...আরও ভাল উপযুক্ত জায়গায় তাঁকে স্থানান্তরের জন্য আমি আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি”।

৪  অগস্ট মেহবুবা মুফতিকে আটক করা হয়, তারপরদিনই, জম্মু ও কাশ্মীরকে দেওয়া সংবিধানের ৩৭০ ধারা অনুযায়ী, বিশেষ সুবিধা প্রত্যাহার করে কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে। সরকারের এই পদক্ষেপে যাতে কোনও অশান্তি না ছড়ায়, তার জন্য যে ৪০০ জন রাজনৈতিক নেতাকে আটক করা হয়, তাঁদের মধ্যে অন্যতম মেহবুবা মুফতি।

কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি "টেকসই নয়", অবশ্যই পরিবর্তন দরকার, বললেন অ্যাঞ্জেলা মর্কেল

তাঁকে শ্রীনগরের একটি গেস্ট হাউজে রাখা হয়।

গতমাসে, সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়, ধাপে ধাপে আটক বা বন্দি থাকা রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তি দেওয়া হবে। যদিও সেই মুক্তির কোনও সময় জানানো হয়নি। আটক রয়েছেন আরও দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লা এবং ফারুক আব্দুল্লা।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন:

ভাল ব্যবহার এবং শান্তিরক্ষার বন্ডে স্বাক্ষর করে কাশ্মীরি নেতাদের মুক্তি দেওয়া হবে বলে খবর রটে যায়। সেই সময় ট্যুইটে ইলতিজা জাভেদ লেখেন, এই ধরণের বন্ডে স্বাক্ষর করতে চাননি তাঁর মাসহ অন্যান্যরা।

রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক রসিকতা করেন, কারাবাস লাভজনক, কারণ, এতে ভোট বাড়বে মেহবুবা মুফতি ও ওমর আব্দুল্লার।

More News