কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের জের! শহরের একাধিক এটিএমে নগদ ঘাটতির অভিযোগ

অনন্যা দাশগুপ্তার দাবি, "আজ রাখি। ভেবেছিলাম ভাইয়ের জন্য রাতের এলাহি আয়োজন করবো। গত দুদিন ধরে এটিএমে টাকার জন্য ঘুরছি। কিন্তু পর্যাপ্ত নগদ হাতে পাচ্ছি না।"

কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের জের! শহরের একাধিক এটিএমে নগদ ঘাটতির অভিযোগ

এটিএম রিফিলিংয়ের দায়িত্বে থাকা সংস্থাগুলোর কর্মী ঘাটতিও এই সমস্যায় অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে (ফাইল ছবি)।

কলকাতা:

কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের জেরে রাজ্যে এটিএমগুলোতে নগরের ঘাটতি। এটিএম রিফিলিংয়ের দায়িত্বে থাকা সংস্থাগুলোর কর্মী ঘাটতিও এই সমস্যায় অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে। সারা ভারত ব্যাঙ্ক আধিকারিক সংগঠনের রাজ্য আহ্বায়কের তরফে এই দাবি করা হয়েছে। সংগঠনের মুখপাত্র সঞ্জয় দাস বলেছেন, "ব্যাঙ্কগুলো এই কাজ তৃতীয় সংস্থার মাধ্যমে করে থাকে। তারাই এটিএম রিফিলিং ও তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে। প্রত্যেক শুক্রবার সপ্তাহের ছুটির দিনের আগে রিফিলিং করা হয়।" তবে কোভিড-১৯ বিধি ও কর্ভী সংকোচনের জেরে এখন সপ্তাহের শেষে এই সংস্থাগুলোর ছুটি থাকছে। তাই রিফিলিংয়ে সমস্যা হচ্ছে। সোমবার জানিয়েছেন ওই ব্যাঙ্ককর্তা। তাঁর দাবি, "ব্যাঙ্ক চত্বরে যে এটিএম, সেগুলোয় পর্যাপ্ত নগদ রয়েছে। কারণ ওই রিফিলিং সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক করে থাকে।"

এদিকে, যাদবপুরের বাসিন্দা অনন্যা দাশগুপ্তার দাবি, "আজ রাখি। ভেবেছিলাম ভাইয়ের জন্য রাতের এলাহি আয়োজন করবো। গত দুদিন ধরে এটিএমে টাকার জন্য ঘুরছি। কিন্তু পর্যাপ্ত নগদ হাতে পাচ্ছি না।"



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)