অযোধ্যা মামলা নিয়ে মন্তব্য করা থেকে দূরে থাকলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

৯ নভেম্বর অযোধ্যা মামলার রায় দেয় শীর্ষ আদালত।

অযোধ্যা মামলা নিয়ে মন্তব্য করা থেকে দূরে থাকলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
কলকাতা:

অযোধ্যা মামলার রায়দানের (Ayodhya verdict) ছদিন পরেও, কয়েকদশকের পুরানো এই মামলার রায় নিয়ে কোনও মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। ৬দিন আগে অযোধ্যা মামলা রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সাইক্লোন বুলবুলের ত্রাণকাজ নিয়ে তিনি খুবই ব্যস্ত বলে জানালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। ৯ নভেম্বর অযোধ্যা মামলার রায় দেয় শীর্ষ আদালত। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা তৃণমূলের কোনও নেতাই অযোধ্যা মামলার রায় নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি। প্রশাসনিক বৈঠকের পর, সাংবাদিক সম্মেলন চলাকালীন তিনি বলেন, “যেহেতু এটা সরকারি অনুষ্ঠান এবং আমি সাইক্লোনের ত্রাণের কাজ নিয়ে খুবই ব্যস্ত, সেই কারণে, আমি এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাই না”।

"না বলাটা আরো শক্তিশালী বলা": অযোধ্যা রায়ের দিন “না বলা” কবিতা লিখলেন মমতা

সাইক্লোনের ফলে রাজ্যে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ৬ লক্ষ মানুষ, পাঁচ লক্ষেরও বেশী বাড়ি ভেঙে পড়েছে। শনিবার পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়ায় আছড়ে পড়ে ঘুর্ণিঝড় বুলবুল। ঘুর্ণিঝড়ের প্রভাবে এক মৎস্যজীবীসহ ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, মৃত মৎস্যজীবীদের দেহ উদ্ধার করেন উপকূলরক্ষীবাহিনীর কর্মীরা।

তৃণমূল সূত্রের খবর, অযোধ্যা নিয়ে “কোনও বাক্য উচ্চারণ” না করার “কড়া নির্দেশ” দেওয়া হয়েছে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে। তৃণমূলের এক শীর্ষ নেতা শনিবার বলেন, “বিষয়টি নিয়ে আমাদের কোনও মন্তব্য না করতে বলা হয়েছে। প্রয়োজনে একমাত্র কথা বলবেন আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অথবা তাঁর নির্ধারিত কোনও নেতা কথা বলবেন”।

"মসজিদের জন্য ৫ একর জমি অবশ্যই ..." কী দাবি করলেন মুসলিম নেতারা?

 শনিবার সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে, তা নিয়ে তৃণমূলের নীরবতা বিতর্কিত জায়গায় রামমন্দিরের পক্ষেই গিয়েছে। এই নিয়ে রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিজেপি ও কংগ্রেস।  

অযোধ্যা মামলা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নীরবতায় প্রশ্ন তোলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, পাশাপাশি বলেন, যখনই সামাজিক এবং জাতীয় স্বার্থের প্রসঙ্গ থাকে, সেই বিষয়েই নীরব থাকে রাজ্যের শাসকদল।    

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতেে ক্লিক করুন: 

ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং অপেক্ষিত রায় করে সুপ্রিম কোর্টের প্রধানবিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। সর্বসম্মত রায়ে আদালত, অযোধ্যার বিতর্কিত জায়গায় রামমন্দির তৈরির সম্মতি দিয়েছে, পাশাপাশি মসজিদ নির্মাণের জন্য সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর জমি দিতে বলা হয়েছে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News