বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপালের ক্ষমতা কমানোর পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের

বিধানসভায় পেশ করা নথিতে বলা হয়েছে, “রাজ্যের সাহায্যপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে যে কোনও সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে জানাতে হবে উচ্চশিক্ষা দফতরকে”।

বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপালের ক্ষমতা কমানোর পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের

রাজ্যপালের বিরুদ্ধে "সমান্তরাল সরকার" চালানোর অভিযোগ তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কলকাতা:

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ক্ষেত্রে নয়া নিয়ম আনতে চলেছে রাজ্য সরকার। এই নিয়ম অনুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাজ্যপালের সঙ্গে পরামর্শ ছাড়াই তাদের সর্বোচ্চ কমিটির বৈঠক ডাকতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। মঙ্গলবার বিলটি পেশ করা হয় বিধানসভায়। গত কয়েকমাসে একাধিক ইস্যুতে রাজ্য সরকারের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। রাজ্যপালের অভিযোগ, রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিটির নেওয়ার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে তাঁর সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। বিধানসভায় পেশ করা নথিতে রাজ্যের তরফে বলা হয়েছে, “রাজ্যের সাহায্যপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে যে কোনও সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে জানাতে হবে উচ্চশিক্ষা দফতরকে”। সেখানে আরও বলা হয়েছে, এখন থেকে আচার্য নয়, উচ্চশিক্ষা দফতরের সঙ্গে আলোচনা করে সর্বোচ্চ কমিটির বৈঠক ডাকতে পারবেন উপাচার্য।

রাজ্যের উচ্চশিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিকদের বলেন, যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে যেহেতু রাজ্যপালের ক্ষমতা রয়েছে, সেখানে কোনও প্রভাব ফেলবে না নয়া নিয়ম।  

একাধিকবার রাজ্যপালের বিরুদ্ধে "সমান্তরাল সরকার" চালানোর অভিযোগ তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News