তিনজন মন্ত্রীকে মন্ত্রীসভা থেকে সরিয়ে দিয়ে দলের কাজকর্মে মন দিতে বললেন মমতা

খ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মন্ত্রীসভা থেকে তিনজন মন্ত্রীর ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক কাজের দিকে মন দিতে বললেন। 

তিনজন মন্ত্রীকে মন্ত্রীসভা থেকে সরিয়ে দিয়ে দলের কাজকর্মে মন দিতে বললেন মমতা

তৃণমূলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ওঞ্চায়েত ভোটে তত ভালো ফল করতে না পারার জন্যই এই সিদ্ধান্ত।

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মন্ত্রীসভা থেকে তিনজন মন্ত্রীর ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক কাজের দিকে মন দিতে বললেন। 

এই তথ্য স্বীকার করে নিয়ে মমতা মিডিয়াকে জানালেন, "ওই তিনজন মন্ত্রীকে দলের সাংগঠনিক কাজকর্মে মন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।"

মন্ত্রীসভা থেকে যে তিনজন অপসারিত হয়েছেন, তাঁরা হলেন চূড়ামণি মাহাতো, জেমস কুজুর এবং অবনী জোয়ারদার। এঁদের মধ্যে অবনী জোয়ারদারের কোনও দফতর ছিল না।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মন্ত্রীসভা থেকে তিনজন মন্ত্রীর ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক কাজের দিকে মন দিতে বললেন। 

এই তথ্য স্বীকার করে নিয়ে মমতা মিডিয়াকে জানিয়েছেন, "ওই তিনজন মন্ত্রীকে দলের সাংগঠনিক কাজকর্মে মন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে"।

মন্ত্রীসভা থেকে যে তিনজন অপসারিত হয়েছেন, তাঁরা হলেন — ব্যাকওয়ার্ড ক্লাস ওয়েলফেয়ার মিনিস্টার চূড়ামণি মাহাতো, ট্রাইবাল ডেভেলপমেন্ট মিনিস্টার জেমস কুজুর এবং অবনী জোয়ারদার, যার কোনও দফতর ছিল না।

প্রত্যেক মন্ত্রীই তাঁদের পদত্যাগপত্র মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠিয়ে দিয়েছেন। জানিয়েছে রাজ্য সচিবালয়। অবনী আগে ছিলেন সংশোধানাগার এবং শরণার্থী পুনর্বাসন মন্ত্রী। যদিও স্বাস্থ্যের কারণে এখন তাঁর কাছে কোনও দফতর নেই।

মন্ত্রীসভাতে কোনও নতুন মুখ আনা হবে কি না, এই প্রশ্নের উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী জানান, “সেটা আমাদের নিজেদের চিন্তাভাবনার বিষয়। এই ব্যাপারে আপনাদের না ভাবলেও চলবে”।

মন্ত্রীদের অপসারণের প্রকৃত কারণ না জানা গেলেও দলের অভ্যন্তর থেকে জানা গিয়েছে, সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ততটা ভালো ফল না করতে পারার কারণেই এই সিদ্ধান্ত। 


(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)