This Article is From Feb 25, 2019

কাশ্মীরের শহিদ জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতি করছেন প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সরকার: মমতা

কাশ্মীরের পুলওয়ামার হানা  সম্পর্কে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী  মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়।

কাশ্মীরের শহিদ জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতি করছেন প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সরকার: মমতা

জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতিতে বিজেপির বেশি আগ্রহ: মমতা

হাইলাইটস

  • পুলওয়ামার হানা সম্পর্কে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী
  • হামলা যে হবে সে কথা জানা ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের, দাবি মমতার
  • জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতিতে বিজেপির বেশি আগ্রহঃ মমতা
Kolkata:

কাশ্মীরের পুলওয়ামার হানা সম্পর্কে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, হামলা যে হবে সে কথা জানা ছিল  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং তাঁর সরকারের। কিন্তু হামলা  রুখতে ব্যবস্থা নেয়নি সরকার। আসলে  জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতিতে বিজেপির বেশি আগ্রহ।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘হামলার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে  খবর ছিল। গোয়েন্দা সংস্থা মারফৎ সেই খবর এসে পৌঁছেছিল। এরপর কেন ব্যবস্থা নিলনা সরকার? সরকারে থাকা দল জওয়ানদের মৃতদেহ নিয়ে রাজনীতি করবে বলে তাঁদের মরতে দেওয়া হল।'

এ রাজ্যে ইভিএম মেশিন হ্যাক করা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন মমতা

গত ১৪ তারিখ  কাশ্মীরে ভয়াবহ জঙ্গি  হামলা হয়। জম্মু থেকে শ্রীনগর যাওয়ার সময় সিআরপিএফের কন ভয়ে ভয়াবহ জঙ্গি হামলা হয়। তাতে প্রাণ হারান চল্লিশের জনের বেশি সেনা জওয়ান।

এই ঘটনার পর ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়। শুরু হয়েছে বাকযুদ্ধও। মাত্র দুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন পাঠানের সন্তান হলে  পুলওয়ামায় নিহত জওয়ানদের পরিবারের সঙ্গে অন্যায় হতে  দেবেন না  ইমরান খান। তাঁরা যাতে সুবিচার পান সেটা  তিনি দেখবেন  । তার পাল্টা হিসেবে মোদীর উদ্দেশে  বার্তা দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, শান্তি শান্তি স্থাপনের সুযোগ দিন। তাছাড়া  পুলওয়ামার    হামলা  সম্পর্কে যদি ভারত পাক যোগের প্রমাণ দিতে পারে তাহলে  ব্যবস্থা  নেবে  পাকিস্তান।