দফতর বণ্টনে লাভবান এনসিপি, স্বরাষ্ট্রে ভাবনা অনিল দেশমুখ

ইতিমধ্যে উপ-মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার। এর পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র, অর্থ, সেচ আর আবাসন দফতর যেতে পারে এনসিপির কোটায়

মন্ত্রিত্বের দফতর বণ্টনের নিরিখে শরদ পাওয়ারের দলের পাল্লা বেশি

হাইলাইটস

  • মহারাষ্ট্রের মহা-অঘোরী জোটে সবচেয়ে লাভবান শরিক এনসিপি (NCP)।
  • শিবসেনার ১৫ জন বিধায়ক মন্ত্রিত্ব পাবেন, এনসিপি পেতে পারে ১৬জন মন্ত্রী।
  • এনসিপির অনিল দেশমুখ পেতে পারেন স্বরাষ্ট্র, নগর-উন্নয়ন থাকতে পারে শিবসেনার
মুম্বই:

মহারাষ্ট্রের মহা-অঘোরী জোটে সবচেয়ে লাভবান শরিক এনসিপি (NCP)। মন্ত্রিত্বের দফতর বণ্টনের নিরিখে শরদ পাওয়ারের দলের পাল্লা বেশি। সে রাজ্যের বেশিরভাগ গুরুত্বপূর্ণ দফতর পেতে পারেন এনসিপি বিধায়করা। ইতিমধ্যে উপ-মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার। এর পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র (home), অর্থ, সেচ আর আবাসন দফতর যেতে পারে এনসিপির কোটায়। জানা গেছে, যেখানে শিবসেনার ১৫ জন বিধায়ক মন্ত্রিত্ব পাবেন, সেখানে এনসিপি পেতে পারে ১৬জন মন্ত্রী।  
সূত্রের খবর, এনসিপির অনিল দেশমুখ পেতে পারেন স্বরাষ্ট্র, নগর-উন্নয়ন থাকতে পারে শিবসেনার একনাথ শিণ্ডের কাছে। শিল্প দফতরের ভার যেতে পারে শিবসেনারই সুভাষ দেশাইয়ের ঘাড়ে।

মহারাষ্ট্র মন্ত্রিসভার বেশীরভাগই পরিবারতান্ত্রিক, তালিকার শীর্ষে কংগ্রেস

কংগ্রেসের বালাসাহেব থোরাত পেতে পারেন রাজস্ব, শ্রম আর আবগারি যৌথ ভাবে যেতে পারে এনসিপির দিলীপ ওয়ালসের কাছে। আবাসন দফতরের জন্য ভাবা হয়েছে এনসিপির জিতেন্দ্র আহবাদ আর কংগ্রেসের বর্ষা গাইকোয়ার পেতে পারেন মেডিক্যাল শিক্ষার দায়িত্ব।পূর্ত দফতর পেতে পারেন সে রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চহ্বাণ। সামাজিক ন্যায় পেতে পারেন এনসিপির ধনঞ্জয় মুণ্ডে আর অর্থ দফতরের অতিরিক্ত ভার যেতে পারে উপ-মুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ারের কাছে। জানা গেছে, বালাসাহেব থোরাত, বর্ষা গাইকোয়ার আর অশোক চহ্বাণের দফতর মোটামুটি নিশ্চিত। কংগ্রেসের অন্য বিধায়কের দফতর বণ্টন ঝুলে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের চূড়ান্ত সিলমোহরের ওপর।  

অজিত পাওয়ার অর্থ আর অশোক চহ্বাণ পেতে পারেন পূর্ত দফতর: সূত্র

জোট সূত্রে খবর যেহেতু, কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা (৪৪) কম, তাই তাদের মন্ত্রিত্বের সংখ্যাও কম।৫৬ ও ৫৪টি বিধায়ক নিয়ে শিবসেনা আর এনসিপির ঘরে ১২-এর বেশি মন্ত্রী, দাবি করেছে ওই সূত্র। তবে কংগ্রেসের তরফে কৃষি ও বিদ্যুৎ, এই দুটো দফতরের আবদার করা হয়েছে। যদিও মহারাষ্ট্রের নিরিখে গুরুত্বপূর্ণ কৃষি নিজেদের হাতে রেখে বিদ্যুৎ দফতর কংগ্রেসকে ছাড়তে পারে শিবসেনা বলে খবর।