প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে সংঘাতে মায়াবতী, কংগ্রেসের সমর্থন পেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Loksabha Election 2019: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে(Mamata Banerjee) সমর্থন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ সহ অন্যান্য বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে বাংলায় মুখ্যমন্ত্রীকে “পরিকল্পিতভাবে টার্গেটে”র করার অভিযোগ করেছেন মায়াবতী।

প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে সংঘাতে মায়াবতী, কংগ্রেসের সমর্থন পেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বহু নেতা নির্বাচন কমিশনের (Election Commission)বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ক্ষোভকে সমর্থন করেন।

নিউ দিল্লি:

লোকসভা নির্বাচনের(Loksabha Election 2019) আবহে বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়িয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) । আর তাতে তিনি পাশে পেয়েছেন কংগ্রেসসহ বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতীকেও।তারজন্য ধন্যবাদ জানালেন তৃণমূল নেত্রী। রাজ্যের প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার মধ্যে প্রচার শেষ করতে হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে তারা। তার জন্য মমতা তোপ দেগেছেন তৃণমূলনেত্রী (Mamata Banerjee) । মুখ্যমন্ত্রী ট্যুইট করেন, “ধন্যবাদ ও মায়াবতী, অখিলেশ যাদব, কংগ্রেস সহ অন্যান্য নেতাদের বাংলার প্রতি সহমর্মিতা দেখানোর জন্য কৃতজ্ঞ। বিজেপির ইঙ্গিতে নির্বাচন কমিশের পক্ষপাত্ত্বিত্ত গণতন্ত্রের ওপর আঘাত। এর যোগ্য জবাব দেবে সাধারণ মানুষ”।

শেষ দফায় ভোটপ্রচারের সময় কমিয়ে দেওয়া নিয়ে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিষয়টিকে, “অনৈতিক এবং অসাংবিধানিক” বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি এই সিদ্ধান্ত “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জন্য উপহার” বলেও মন্তব্য করেন তিনি।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এও বলেন, “আপনি রাজীব গান্ধীকে দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা বলেছেন।  সনিয়াজীকেও দুর্নীতিগ্রস্ত বলেছেন। প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকেও বলেছেন। মায়াবতী, এমনকী, আমাকেও বলেছেন। অরবিন্দ কেজরিওয়ালকেও বলেছেন। আপনাকে কে দুর্নীতিগ্রস্ত বলবে না”। বৃহস্পতিবার মমতার পাশে দাঁড়ালেন তাঁরা।

Lok Sabha Elections 2019:আপনার থেকে মূর্তির টাকা নেওয়ার চেয়ে গলায় দড়ি দেওয়া ভাল, মোদীকে কটাক্ষ মমতার

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে(Mamata Banerjee) সমর্থন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ সহ অন্যান্য বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে “পরিকল্পনা মাফিক আক্রমণের” অভিযোগ তোলেন মায়াবতী। তিনি বলেন, “এটা দেশের প্রধানমন্ত্রীর থেকে কাম্য নয়”।

নির্বাচন কমিশনের(Election Commission) পদক্ষেপকে “ক্ষমার অযোগ্য সংবিধান লঙ্ঘন” বলে মন্তব্য করেছে কংগ্রেস। পাশাপাশি তাদের অভিযোগ, “মোদী-অমিত শাহ যুগলের হাতের খেলনায় পরিণত হয়েছে” নির্বাচন কমিশন। দলের মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা বলেন, “শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী মোদীর সভার জন্য সময় দেওয়া হয়েছে”। একইসঙ্গে মডেল কোড অফ কনডাক্টকে “মোদী কোড অফ কনডাক্ট” বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

লোকসভা নির্বাচনের(Loksabha Elections 2019) ভোটপ্রচারে রাজ্যে হিংসার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো চলাকালীন বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে সংঘর্ষ হয়, ভাঙা পড়ে বিদ্যাসাগরের মূর্তি(Vidyasagar Statue Vendalism)। ঘটনায় একে অপরের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছে বিজেপি-তৃণমূল।