একশো শতাংশ ভিভিপ্যাট গোনার দাবি ‘হাস্যকর’, মত সুপ্রিম কোর্টের

Loksabha Elections 2019: চেন্নাইয়ের একটি সংস্থা দাবি করে ইভিএমের সঙ্গে ১০০ শতাংশ ভিভিপ্যাট ( Voter Verifiable Paper Audit Trail) মিলিয়ে দেখতে হবে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

Loksabha Elections 2019:কমিশনের সিদ্ধান্ত প্রত্যেকটি ইভিএমের সঙ্গে ৫ শতাংশ করে ভিভিপ্যাট মিলিয়ে দেখা হবে।


নিউ দিল্লি: 

হাইলাইটস

  1. ইভিএমের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে বিরোধীরা
  2. এরই মধ্যে একটি আবেদন জমা পড়ে সুপ্রিম কোর্টে
  3. একটি সংস্থা দাবি করে ইভিএমের সঙ্গে ১০০ শতাংশ ভিভিপ্যাট মিলিয়ে দেখতে হবে

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে (General Elections 2019 ) ভোট পর্ব মিটতেই না মিটতেই নতুন করে ইভিএমের (Electronic Voting Machine) স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে বিরোধীরা। নির্বাচন কমিশনের (Election Commission) সঙ্গে সাক্ষাৎ করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে বিরোধীদের তরফে। এরই মধ্যে একটি আবেদন জমা পড়ে সুপ্রিম কোর্টে। চেন্নাইয়ের একটি সংস্থা দাবি করে ইভিএমের সঙ্গে ১০০ শতাংশ ভিভিপ্যাট ( Voter Verifiable Paper Audit Trail) মিলিয়ে দেখতে হবে। এই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত (Apex Court) ।  বিচারপতি অরুণ মিত্রের নেতৃত্বাধীন অবসরকালীন বেঞ্চ (Vacation Bench) জানাল এমন  দাবি হাস্যকর (Nonsense)। তাই তা নিয়ে  শুনানির কোনও প্রয়োজন নেই।

বিশেষ বেঞ্চ তৈরির জন্য রাজীব কুমারের আর্জি খারিজ সুপ্রিম কোর্টে

চেন্নাইয়ের ওই সংস্থা দাবি করেছিল ইভিএম মেশিনের সঙ্গে একশো শতাংশ   ভিভিপাট (VVPAT) মিলিয়ে দেখতে হবে। একই সঙ্গে দাবি করা হয়েছিল পরবর্তী নির্বাচনে ইভিএমের বদলে অপটিক্যাল ব্যালাট স্ক্যান মেশিন ব্যবহার করতে হবে। এই মেশিন আগেকার মতো ভোটারদের একটি নির্দিষ্ট প্রতীকে ছাপ দিতে হয়এবং সেখানেই স্ক্যান করার ব্যবস্থা থাকে। যাতে কাকে ভোট  দেওয়া হল সেটা সংগ্রহ করে  রাখা যায়।              

সুপ্রিম কোর্ট যেদিন যেদিন মামলা খারিজ করছে  তার কয়েক দিন আগেই ২১ টি  বিরোধী দলের আবেদন খারিজ করেছে সর্বোচ্চ আদালত। বিরোধী দলগুলির তরফে দাবি করা হয়েছিল ইভিএমের সঙ্গে ২৫ শতাংশ ভিভিপ্যাট মিলিয়ে দেখা হোক। কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি আদালত। আদালত জানিয়েছে কমিশন যা সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেভাবেই কাজ করতে হবে। কমিশনের সিদ্ধান্ত প্রত্যেকটি ইভিএমের সঙ্গে ৫ শতাংশ করে ভিভিপ্যাট মিলিয়ে দেখা হবে। 

মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ! ফের জয়জয়কার জেলার, ৬৯৪ পেয়ে প্রথম পূর্ব মেদিনীপুরের সৌগত

মামলা খারিজ করে এদিন বিচারপতিরা বলেন, ‘দেশের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের ডিভিশন বেঞ্চ ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত রায় দিয়ে দিয়েছে। তাই নতুন করে এ ব্যাপারে শুনানির প্রয়োজন নেই। এভাবে একই মামলা বারবার দায়ের হতে থাকলে গণতন্ত্র ধাক্কা খাবে। এই আবেদন হাস্যকর।'

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................