গান্ধীনগরের প্রার্থী বদল, ‘ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ’ আদবানীর

তাঁর ঘনিষ্ঠ একজন বলেছেন, ‘ লোকসভায়  যেতে না পারাটা কোনও বড় বিষয় নয়। কিন্তু যে কায়দায় গোটা  পক্রিয়াটা হয়েছে সেটা চরম অসম্মানের। কোনও বড় নেতা তাঁর সঙ্গে  যোগাযোগ করেননি।’                           

গান্ধীনগরের প্রার্থী বদল, ‘ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ’ আদবানীর

দলের শীর্ষ নেতাদের তাঁর সঙ্গে  যোগাযোগ করা  উচিত ছিল বলে মনে করেন আদবানী,

হাইলাইটস

  • গান্ধীনগর আসন থেকে লড়বেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ
  • এবারই প্রথমে লোকসভা নির্বাচনে লড়বেন গুজরাট থেকে উঠে আসা এই নেতা
  • গোটা প্রক্রিয়া সম্পর্কে ঘনিষ্ঠ মহলে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদবানী
নিউ দিল্লি:

লোকসভা  নির্বাচনে (Lok Sabha Election 2019) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না  বিজেপির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য তথা দেশের প্রাক্তন উপ প্রধানমন্ত্রী  লালকৃষ্ণ আদবানী ()L K Advani। তাঁর  বহু দিনের গান্ধীনগর আসন  থেকে লড়বেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ (BJP Chief Amit  Shah)। এবারই প্রথমে লোকসভা নির্বাচনে লড়বেন গুজরাট থেকে উঠে আসা এই নেতা। গোটা প্রক্রিয়া সম্পর্কে ঘনিষ্ঠ  মহলে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদবানী। তাঁর ঘনিষ্ঠ একজন বলেছেন, ‘ লোকসভায়  যেতে না পারাটা কোনও বড় বিষয় নয়। কিন্তু যে কায়দায় গোটা  পক্রিয়াটা হয়েছে সেটা চরম অসম্মানের। কোনও বড় নেতা তাঁর সঙ্গে  যোগাযোগ করেননি।'

বয়স ৭৫ বা তার বেশি এমন দশ জন প্রবীণ নেতাকে এবার টিকিট দেয়নি বিজেপি। সেই কারণেই আদবানীকে  বাদ দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে দলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণার কয়েকদিন আগে বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) রামলাল এই নেতাদের সঙ্গে  যোগাযোগ করে নিজেদের অবসরের কথা  ঘোষণা করে  দিতে বলেন। এই প্রস্তাবে রাজি হননি জীবনের ৯১টি বসন্ত পার করে আসা আদবানী। তিনি  জানান, দলের শীর্ষ নেতাদের তাঁর সঙ্গে  যোগাযোগ করা  উচিত ছিল।

স্ত্রীয়ের কাছে ২ কিলো কেন ২ গ্রাম সোনা ছিল প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবঃ অভিষেক

আদবানী ছাড়াও শান্তা কুমার, হুকুমদেও যাদব, কলরাজ মিশ্র, বি সি খান্ডুরি, করিয়া মুণ্ডার মতো নেতাদের নিজেদের অবসরের কথা জানিয়ে দিতে বলা  হয়। এর মধ্যে  হিমাচলের সাংসদ শান্তা কুমার এবং উত্তরপ্রদেশের দেওরিয়ার সাংসদ কলরাজ মিশ্র অবসরের কথা প্রকাশ্যে জানাতে রাজি হয়েছেন বলে খবর। সাংসদ হওয়ার পাশাপাশি হরিয়ানা বিজেপির পর্যবেক্ষকের দায়িত্বও সামলান কলরাজ। একই সঙ্গে লোকসভার অধ্যক্ষ সুমিত্রা মহাজন ভোটে দাঁড়াবেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। তাঁর বয়সও ৭৫ পেরিয়েছে। তাঁর নিজের রাজ্য মধ্যপ্রদেশের প্রার্থী তালিকা থেকে বাদ পড়েছে  সুমিত্রার নাম।  অন্য কোনও রাজ্য থেকে তিনি লড়বেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। একই সঙ্গে বিজেপির আরেক প্রবীণ নেতা তথা  অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের মন্ত্রী  মুরলী মনোহর যোশীও  ভোটে দাঁড়াবেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। উত্তরপ্রদেশের কানপুর আসন থেকে জিতে এসেছেন  তিনি। এবার এখনও এই আসনের জন্য কোনও প্রার্থী ঘোষণা করেনি বিজেপি।