শত্রুঘ্ন সিনহার পদত্যাগের পর সোনাক্ষী বললেন “আগেই ছাড়া উচিৎ ছিল”

সাংবাদিকদের সোনাক্ষী বলেন, “আমি মনে করি, বাবা একটু বেশিই দেরি করেছেন সিদ্ধান্ত নিতে। অনেক আগেই বাবার এটা করা উচিত ছিল।” 

শত্রুঘ্ন সিনহার পদত্যাগের পর সোনাক্ষী বললেন “আগেই ছাড়া উচিৎ ছিল”

সোনাক্ষী জানিয়েছেন, “আমি মনে করি, আপনার চারপাশে সব যেভাবে চলছে সে বিষয়ে আপনি যদি খুশি না হন তবে সেখান থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে লজ্জা করার কোনও মানে নেই! বাবা তাই করেছেন!"

হাইলাইটস

  • বৃহস্পতিবার শত্রুঘ্ন জানান, বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যাবেন তিনি
  • বাবার সিদ্ধান্ত সমর্থন করেছেন সোনাক্ষী সিনহা
  • আরও আগেই বাবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ ছিল বলে মনে করেছেন তিনি
নিউ দিল্লি:

অনেক জটিলতার অবসান ঘটিয়ে শেষমেশ বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন বলিউড অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা (Shatrughan Sinha)। তাঁর কন্যা অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা (Bollywood actor Sonakshi Sinha) শুক্রবার জানিয়েছেন, ভারতীয় জনতা পার্টি পদত্যাগ ও কংগ্রেসে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্তের জন্য বাবা শত্রুঘ্নকে পূর্ণ সমর্থন করেন তিনি। সঙ্গে আরও বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত আরও আগেই নেওয়া উচিৎ ছিল তাঁর।

সাংবাদিকদের সোনাক্ষী বলেন, “কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বাবার সিদ্ধান্ত। জেপি নারায়ণ, অটল বিহারী এবং আডবানী জি'র সময় থেকেই বাবা বিজেপির সদস্য! দলের সদস্য হিসেবে আমার বাবাকে দলের মধ্যে অনেক সম্মান আছে এবং আমি মনে করি এই পুরো দলটিকেই বিজেপি যথাযোগ্য সম্মান দিতে পারেনি। আমি মনে করি, বাবা একটু বেশিই দেরি করেছেন সিদ্ধান্ত নিতে। অনেক আগেই বাবার এটা করা উচিত ছিল।” 

‘কেন আমার ধর্ম কী জানতে চাওয়া হচ্ছে' প্রশ্ন উর্মিলা মাতন্ডকারের

কংগ্রেসের প্রধান রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকের পর বৃহস্পতিবার বিজেপিতে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন শত্রুঘ্ন সিনহা (Shatrughan Sinha)। অনেকদিন ধরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপির জাতীয় সভাপতি অমিত শাহের প্রকাশ্যে সমালোচনা করেছেন শত্রুঘ্ন। গত ১০ বছর ধরে বিহারের পটনা সাহেব আসনের দায়িত্ব সামলেছিলেন শত্রুঘ্ন সিনহা। কিন্তু এই বছর দলের হয়ে ওই আসনে প্রার্থী হয়েছেন রবি শংকর প্রসাদ। এই ঘোষণার কয়েকদিন পরেই দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত শত্রুঘ্ন সিনহা।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে সোনাক্ষী জানিয়েছেন, “আমি মনে করি, আপনার চারপাশে সব যেভাবে চলছে সে বিষয়ে আপনি যদি খুশি না হন তবে সেখান থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে লজ্জা করার কোনও মানে নেই! বাবা তাই করেছেন!" দল ছাড়ার আগে শত্রুঘ্ন টুইট করেন যে, “দুঃখজনকভাবে বিজেপি থেকে বেরিয়ে আসতে হল... কিন্তু আশা করছি আমার প্রিয় বন্ধু লালু যাদবের গতিশীল নেতৃত্বের অধীনে এবং নেহরু গান্ধী পরিবারের থেকে সর্বাধিক আলোচিত নেতা সত্যিকারের জাতির নির্মাতা পরিবারের ছায়ায় সঠিক দিশাতেই যাচ্ছি! আগামী ৬ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসে যোগ দেবেন তিনি। 

বিজেপি শেষ, ক্ষমতায় আসছে মমতার নেতৃত্বাধীন ধর্মনিরপেক্ষ সরকার: অভিষেক

শত্রুঘ্ন বলেন, “এখন আমি বিজেপি ছেড়ে যাচ্ছি কারণ সেখানে একনায়কতন্ত্র চলছে। তাই, আমি জাতির পক্ষের কংগ্রেস দলে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি"। সম্ভবত পটনা সাহেব থেকে বিরোধী মহাগটবন্ধনের (opposition's grand alliance from Patna Sahib) প্রতিনিধিত্ব করবেন তিনি। ২০০৪ এবং ২০০৯ সালে এই লোকসভা আসন থেকে নির্বাচিত হন তিনি।

More News