লোকসভা নির্বাচনের জন্য থিম সং ও স্লোগান প্রকাশ করল কংগ্রেস

লোকসভা  নির্বাচনের (Lok Sabha Elections 2019)  জন্য আনুষ্ঠানিক ভাবে থিম সং (Theme Song) এবং স্লোগান প্রকাশ করল কংগ্রেস। থিম সংয়ের নাম দেওয়া  হয়েছে ন্যায় (NAYA Scheme)।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
লোকসভা নির্বাচনের জন্য থিম সং ও স্লোগান প্রকাশ করল কংগ্রেস

গত সপ্তাহে ইস্তেহার প্রকাশ করে কংগ্রেস।


হাইলাইটস

  1. লোকসভা নির্বাচনের জন্য থিম সং ও স্লোগান প্রকাশ করল কংগ্রেস
  2. থিম সংয়ের নাম দেওয়া হয়েছে ন্যায়
  3. কিছুদিন আগে এই নামে একটি প্রকল্পের কথা ঘোষণা করে কংগ্রেস

লোকসভা  নির্বাচনের (Lok Sabha Elections 2019)  জন্য আনুষ্ঠানিক ভাবে থিম সং (Theme Song) এবং স্লোগান প্রকাশ করল কংগ্রেস। থিম সংয়ের নাম দেওয়া হয়েছে  নেয়া স্কিম (NAYA Scheme)।  কিছুদিন আগে এই নামে একটি  প্রকল্পের কথা  ঘোষণা করে  কংগ্রেস। তারা জানায় ক্ষমতায় এলে এই প্রকল্প লাগু করা হবে। এর ফলে কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে দেশের সবচেয়ে  গরিব ২০ শতাংশ মানুষকে মাসে  ৬ হাজার টাকা  হিসেবে  বছরে ৭২ হাজার টাকা দেওয়া  হবে। সেই প্রকল্পের কথা বলেই ভোট চাইছে  কংগ্রেস। এবার এই নামেই থিম সং প্রকাশ করল তারা। পাশাপাশি এই শব্দটি ব্যবহার করে কংগ্রেস বোঝাতে চাইছে বিজেপির আমলে দেশে অন্যায় হয়েছে।

মোদীকে মহম্মদ বিন তুঘলকের ঠাকুরদা বলে কটাক্ষ করলেন মমতা

সাংবাদিক সম্মেলন করে কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী আনন্দ শর্মা বলেন, মোদী সরকার কী করেনি তা নিয়েই আলোচনা হচ্ছে। আমরা সেই বিষয়টিই গানের মাধ্যমে  তুলে  ধরেছি। শুধু মানুষের প্রত্যাশা  পূরণে  ব্যর্থ হওয়া নয় মোদী সরকার সংবিধানের মূল ধারায় আঘাত হেনেছে  বলে  তিনি দাবি করেন। গানটি  লিখেছেন জাভেদ আখতার। এর পাশাপাশি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে নিখিল আদবানীকে।  

টুইটারে গানের বিভিন্ন অংশ পোস্ট করেছে কংগ্রেস। গত সপ্তাহে ইস্তেহার প্রকাশ করে কংগ্রেস। ইস্তেহার প্রকাশ করে  রাহুল বলেন, এই ইস্তাহারে মানুষের চাহিদাকে  সম্মান করা হয়েছে, মতামতকে  গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান তাঁদের সরকার ক্ষমতায় আসার পর কোনও কৃষক  যদি ঋণ মেটাতে না পারেন তাহলে ফৌজদারি মামলা হবে না।  মানে  তাঁকে জেলে যেতে হবে না। ইস্তেহার  প্রকাশের সময় রাহুলের পাশে ছিলেন দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং  এবং  ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী। ছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয়  অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। রাহুল বলেন বছর খানেক আগে যখন আমরা ইস্তেহার তৈরির কাজ শুরু করেছিলাম তখনই আমি বলেছিলাম অসম্ভব কোনও কথা ইস্তেহারে রাখা হবে না।   কারণ এমনিতেই প্রতিদিন আমাদের এত মিথ্যা কথা শুনতে হয়।  ইস্তেহারে বলা  হয়েছে আগামী মার্চ মাসের মধ্যে  ২২ লাখ চাকরির ব্যবস্থা করা হবে। তাছাড়া একশো দিনের কাজের সংখ্যা আরও বাড়াবার কথা  বলা  হয়েছে। রেল বাজেটের মতো কৃষকদের জন্য আলাদা বাজেট করার কথা  বলা হয়েছে ইস্তেহারে। মোদী সরকারকে আক্রমণ করে  রাহুল বলেন, এখন  দেশে আর্থিক জরুরি অবস্থা চলছে। আর তা থেকে রক্ষা পেতে শকি থেরাপি প্রয়োজন বলেও জানিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি। প্রধানমন্ত্রী  আচ্ছে দিনের কথা বলেছিলেন এখন দেখা যাচ্ছে চৌকিদারই চোর।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................