গণনার ঠিক আগে ভোটযন্ত্র নিয়ে বিতর্কের মাঝে অমিত শাহর ৬টি প্রশ্ন

Election Results 2019: অমিত শাহ(Amit Shah) বলেন, বিরোধী দলগুলি নির্বাচন কমিশনকে ‘হ্যাকাথন’-এর চ্যালেঞ্জ করেনি, এমনকী, সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা আনতে ভিভিপ্যাটও নিয়ে আসা হয়।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

Election Results 2019: তিনি সুপ্রিম কোর্টের ব্যাপারেও আবেদন করেন, যার দ্বারা ইভিএম ইস্যুটির আইন মোতাবেক মীমাংসা করা হয়েছে।


নিউ দিল্লি: 

হাইলাইটস

  1. বিরোধীদের ইভিএম বিকৃত করার অভিযোগ নস্যাৎ করলেন অমিত শাহ
  2. বললেন,, ‘‘কোলাহলটা বেশি উগ্র হয়ে উঠেছে এগজিট পোলের ফল আসার পর থেকে"
  3. তিনি বলেন, বিরোধী দলগুলি নির্বাচন কমিশনকে ‘হ্যাকাথন’-এর চ্যালেঞ্জ করে নি

বিজেপি (BJP) সভাপতি অমিত শাহ (Amit Shah) বিরোধীদের তোলা ইভিএম (EVM) বিকৃত করার অভিযোগকে নস্যাৎ করতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ পাল্টা অভিযোগ করলেন, ‘‘কোলাহলটা বেশি উগ্র হয়ে উঠেছে এগজিট পোলের (Exit Polls) ফল জানার পর থেকে।'' আগামিকাল ভোট গণনা শুরুর আগে নির্বাচন কমিশন (Election Commission) ভিভিপ্যাটের স্লিপের সঙ্গে ইভিএম মিলিয়ে দেখার বিরোধীদের দাবিকে উড়িয়ে দিয়েছে। এ ব্যাপারে বিরোধীদের জেদকে অবজ্ঞা করার পাশাপাশি বিভিন্ন রাজ্যে পাহারাহীন ভোটযন্ত্র স্থানান্তরিত করার ব্যাপারটিকেও উড়িয়ে দিচ্ছে বিজেপি (BJP)। বেশির ভাগ বিজেপি নেতাই বলেছেন,, বিরোধীরা যখন কোনও নির্বাচনে জেতে তখন তারা ইভিএম কারচুপির কথা বলে না। 

এই বক্তব্যই ধরা পড়েছে অমিত শাহর(Amit Shah) হিন্দিতে টুইট করা ‘ছ'টি প্রশ্ন'-তেও।  শুরুতেই তিনি অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে কটাক্ষ করেন যাঁর আম আদমি পার্টি ‘দিল্লিতে ৭০-এ ৬৭টি আসন পেয়ে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছিল।' তিনিও তাঁর টুইটে এও লেখেন— ‘যদি ইভিএম সন্দেহজনক হত, তাহলে এই দলগুলি কেন অফিসে আসেনি?' অরবিন্দ কেজরিওয়াল ইভিএম(EVM) ইস্যুতে অন্যতম প্রধান জোরালো বক্তা, যিনি ২০১৭ সালে ইভিএম বিতর্ক শুরু হওয়ার পরে ব্যালট পেপারে ফিরে যেতে মায়াবতীর সুরে সুর মিলিয়েছিলেন। সেবার উত্তরপ্রদেশ ও আরও চার রাজ্যে বিধানসভা ভোটের পরে বিরোধীরা দাবি করেছিলেন ভোটযন্ত্রকে বিজেপির অনুকূলে নিয়ে আসা হয়েছে কারচুপি করে। বিজেপি সেবার উত্তরপ্রদেশের পাশাপাশি উত্তরাখণ্ডেও অনায়াস জয় পেয়েছিল। 

অমিত শাহ(Amit Shah) এও বলেন, বিরোধী দলগুলি নির্বাচন কমিশনকে ‘হ্যাকাথন'-এর চ্যালেঞ্জ করেনি। এমনকী, সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা আনতে ভিভিপ্যাটও নিয়ে আসা হয়। তিনি একথা বলে জানতে চান, ‘‘গোটা পদ্ধতিকে বারবার প্রশ্ন করাটা কতটা শোভনীয়?'' তিনি বলেন, গণনার দু'দিন আগে গণনা পদ্ধতি পরিবর্তন করার বিরোধী দলের দাবিটি ‘অসাংবিধানিক', কেননা তা সব রাজনৈতিক দলের কাছে সম্মতি ও গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। 
তিনি এও বলেন, এগজিট পোল বিজেপির জয়ের সম্ভাবনা কথা বলার পরেই বিরোধীরা এই ইস্যুটি তুলে ধরেছে। দলীয় সহকর্মী ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলির কথারই প্রতিধ্বনি তুলে তিনি বলেন, ‘‘আমি বিরোধীদের বলতে চাই এগজিট পোল তৈরি হয় বিভিন্ন ব্যক্তির সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে, ইভিএম যন্ত্রের ভিত্তিতে নয়। বিরোধীরা কীভাবে এগজিট পোলের ব্যাপারে ইভিএম নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে?''

Election 2019: ‘‘ভয় পাবেন না'': ‘নকল এগজিট পোল' নিয়ে রাহুল গান্ধীর বার্তা দলকে

একটি টুইটে তিনি সুপ্রিম কোর্টের ব্যাপারেও আবেদন করেন, যার দ্বারা ইভিএম ইস্যুটির আইন মোতাবেক মীমাংসা করা হয়েছে। তিনি টুইটে লেখেন— ‘সুপ্রিম কোর্ট তিনটি ভিন্ন জনস্বার্থে মামলায় বিচার করে ইভিএম নিয়ে তাদের মত জানিয়েছে। বলা হয়েছে, প্রতিটি বিধানসভা নির্বাচনক্ষেত্রে ৫টি ভিভিপ্যাট গণনা করা হবে। তার মানে বিরোধীরা কি সুপ্রিম কোর্টের জ্ঞান নিয়েও প্রশ্ন তুলছে?' সব শেষে উপেন্দ্র কুশওয়াহার মতো যাঁরা বিজেপি ‘ভোট লুঠ' করে জিততে চেষ্টা করলে প্রতিহিংসা ছড়ানোর কথা বলেছেন তাঁদের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অমিত(Amit Shah) । তিনি টুইটে লেখেন— ‘কোনও কোনও রাজনৈতিক দল প্রতিহিংসা ছড়ানোর হুমকি দিয়েছে ভোটের ফল তাদের আশানুরূপ না হলে। এই ধরনের বক্তব্য অত্যন্ত আপত্তিকর। আমি বিরোধীদের বলতে চাই, হিংসার কোনও জায়গা নেই। আমি বিরোধীদের কাছে জানতে চাই এই ধরনের অগণতান্ত্রিক মন্তব্য করে তারা কাকে চ্যালেঞ্জ করতে চাইছে?'

আগে  ভিভিপ্যাট পরীক্ষার দাবি  খারিজ করল নির্বাচন কমিশন   

পাহারাবিহীন ইভিএমের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পরে উপেন্দ্র কুশওয়াহা, যিনি গত ডিসেম্বরে এনডিএ ছেড়েছেন, তিনি বলেন, ‘‘আমাদের ভোটের সঙ্গে আমাদের সম্মান, আমাদের বেঁচে থাকার সঙ্গে যুক্ত। ঠিক যেমন আমাদের অধিকার রয়েছে আত্মরক্ষার। জীবনের রক্ষার্থে হাতে অস্ত্র পর্যন্ত তুলে নেওয়ার অধিকার রয়েছে, তেমনই নিজেদের ভোটের জন্যও আমাদের তা করার অধিকার রয়েছে।''

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................