যোগীর ‘মোদীজির সেনা’ মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় রাজনৈতিক মহল

Lok Sabha Election 2019: গাজিয়াবাদের নির্বাচনী সভা থেকে ভারতীয় সেনার কথা বলতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ‘মোদীজির সেনা’ কথাটির ব্যবহার করেছেন।

Lok Sabha Election 2019: কংগ্রেসের কাছে অসম্ভব ছিল মোদীজি সেটাকেই সম্ভব করে দেখিয়েছেনঃ যোগী

হাইলাইটস

  • উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ‘মোদীজির সেনা’ কথাটির ব্যবহার করেছেন
  • সেনা বাহিনীর উদ্দেশে এমন শব্দ ব্যবহার করার প্রতিবাদ করেছেন মমতা
  • কংগ্রেসের তরফে প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী বলেছেন, যোগীর ক্ষমা চাওয়া উচিত
গাজিয়াবাদ:

গাজিয়াবাদের নির্বাচনী সভা (Lok Sabha Election 2019) থেকে ভারতীয় সেনার কথা বলতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী  (UP Chief Minister)‘মোদীজির সেনা' কথাটির ব্যবহার করেছেন। কংগ্রেস এবং তৃণমূল থেকে  শুরু করে  অন্য দল গুলি  এই মন্তব্যের সমালোচনা করেছে। প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়াও (West Bengal Chief Minister) । তাছাড়া ভাষণে একাধিকবার ‘ কংগ্রেসের লোক' শব্দটিও প্রয়োগ করেছেন যোগী।তিনি বলেন, 'কংগ্রেসের লোকেরা জঙ্গিদের বিরিয়ানি খাওয়াত। আর মোদীজির সেনা সন্ত্রাসবাদীদের উদ্দেশে শুধু গুলি খরচ করে। এটাই ফারাক।' কংগ্রেসের লোকজন মাসুদ আজাহারকে সম্বোধন করে ‘জি' শব্দ ব্যবহার করেন আর ঘরে ঢুকে আক্রমণ করে জঙ্গিদের দুর্বল করে দিচ্ছে  বিজেপির সরকার।যেটা কংগ্রেসের কাছে অসম্ভব ছিল মোদীজি সেটাকেই সম্ভব করে দেখিয়েছেন।

সেনা বাহিনীর উদ্দেশে এমন শব্দ ব্যবহার করার প্রতিবাদ করেছেন মমতা।  তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যে শব্দ ব্যবহার করেছেন সেটা ভারতীইয় সেনা বাহিনীর কাছে  অবমাননাকর। কংগ্রেসের তরফে প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী বলেছেন, যোগীর ক্ষমা চাওয়া উচিত। এটা ভারতের সশস্ত্র বাহিনীকে অপমান করার নামান্তর। সশস্ত্র বাহনী ভারতের বিষয়,কোনও দলের ব্যক্তিগত নয়। আদিত্যনাথের ক্ষমা চাওয়া উচিত। এর আগে জইশ-ই- মহম্মদের প্রধান মাসুদ আজাহারকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠান নিয়ে বিজেপির দিকে প্রায় একই অভিযোগ তুলেছিল কংগ্রেস। সভাপতি রাহুল গান্ধী;সভা থেকে  এ নিয়ে সরব  হন। তাছাড়া এ প্রসঙ্গে  জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা  অজিত দোভালের একটি পুরনো সাক্ষাৎকারকে হাতিয়ার করে কংগ্রেস। তাদের দাবি ২০১০ সালের ওই সাক্ষাৎকারে দোভাল ১৯৯৮ সালের কান্দাহার কাণ্ডে মাসুদকে ছাড়ার প্রসঙ্গে তৎকালীন বিজেপি সরকারের সমালোচনা করেন। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, অজিত দোভাল বলেছেন মাসুদকে ছেড়ে দেওয়া একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছিল। রাহুল বলেন, দেশের মানুষকে আপনি (প্রধানমন্ত্রী ) বলুন আপনাদের সরকারই মাসুদ আজাহারকে মুক্তি দিয়েছিল। কান্দাহার বিমান অপহরণ কাণ্ডের কথা  তুলে ধরে  তিনি বলেন, দেশের মানুষকে  প্রধানমন্ত্রী জানান কারা  মাসুদ আজাহারকে পাকিস্তানে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছিল? আমি মোদীজির কাছে জানতে চাই পুলওয়ামায়  সিআরপিএফ জওয়ানদের কারা  হত্যা করল? জইশ-ই মহম্মদের প্রধানের নাম কী? তার নাম মাসুদ আজাহার। এই মাসুদকে  ১৯৯৯ সালের কান্দাহার বিমান অপহরণ কাণ্ডে বিজেপি সরকার মুক্তি দিয়েছিল। এ ব্যাপারে  আপনি কোনও কথা  বলছেন না কেন? কেন বলছেন না  বিজেপি-ই মাসুদকে পাকিস্তানে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছিল! মোদীজি  আমরা আপনার মতো নই। আমরা সন্ত্রাসবাদের সামনে নতি স্বীকার করি না।  দেশের মানুষের কাছে সত্যটা তুলে ধরুন।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com