Lockdown 4.0: ৩১ মে পর্যন্ত লকডাউন বৃদ্ধির সম্ভাবনা, ছাড় পেতে পারে মেট্রো পরিবহন

Lockdown 4.0: সম্ভবত সামাজিক দূরত্বের কঠোর নিয়মের সাপেক্ষে মেট্রো ভ্রমণের অনুমতিও দেওয়া হবে এবার।

Lockdown 4.0: ৩১ মে পর্যন্ত লকডাউন বৃদ্ধির সম্ভাবনা, ছাড় পেতে পারে মেট্রো পরিবহন

Lockdown 4.0 Guidelines: লকডাউন আগামী ৩১ মে পর্যন্ত, অর্থাৎ আরও দু'সপ্তাহ স্থায়ী হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

নয়াদিল্লি:

আগামীকাল, সোমবার, ১৮ মে থেকে চতুর্থ দফার দেশব্যাপী লকডাউন শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে। তবে, বিশেষ করে গণপরিবহনের ক্ষেত্রে অনেকটা শিথিলতা কেন্দ্র দেখাতে পারে বলেই সূত্রের খবর। গত সপ্তাহ থেকে সীমিত সংখ্যক যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করছে, এবার মেট্রো পরিষেবা সহ বিমান চলাচল এবং সড়ক পরিবহনেও কিছুটা বিধিনিষেধ শিথিল হওয়ার আশা করা হচ্ছে। এই চতুর্থ পর্বের জন্য আজ নির্দেশিকা ঘোষণা করা হবে। চতুর্থ দফার লকডাউন আগামী ৩১ মে পর্যন্ত, অর্থাৎ আরও দু'সপ্তাহ স্থায়ী হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

গত সপ্তাহে লকডাউন বৃদ্ধির ঘোষণা করার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন যে, এটি নতুন নিয়মে একটি সম্পূর্ণ ভিন্ন রূপে আসবে। “করোনা দীর্ঘদিন আমাদের সঙ্গে থাকবে তবে আমাদের জীবন করোনাকে ঘিরেই সারাক্ষণ চলতে পারে না। আমরা মাস্ক পরব, আমরা দু' গজ (ছয় ফুট দূরত্ব) দূরত্ব অনুসরণ করব, তবে আমরা করোনাকে আমাদের আক্রমণ করতে দেব না,” জোর দিয়ে বলেছিলেন মোদি।

তিনি রাজ্যগুলিকে লকডাউন এবং ধীরে ধীরে লকডাউন অপসারণের জন্য তাদের কী চিন্তাভাবনা তার প্রাথমিক খসড়া জমা দিতে বলেছিলেন। সূত্রের খবর, সম্ভবত সরকার মল এবং দোকান বাজারগুলি আংশিক খোলার অনুমতি দেবে, যা জোড়-বিজোড় ভিত্তিতে হতে পারে। লকডাউনের প্রথম ধাপে প্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রির জন্য খোলা ছিল সামান্য কিছু দোকান। সেই তুলনায় এক ধাপ এগিয়ে একক অবস্থানের দোকানগুলিও খোলা হয়েছে দুই সপ্তাহ আগেই।

সম্ভবত সামাজিক দূরত্বের কঠোর নিয়মের সাপেক্ষে মেট্রো ভ্রমণের অনুমতিও দেওয়া হবে এবার। শহরগুলিতে নির্মাণের কার্যকলাপ সম্পূর্ণরূপে ফের শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে- তবে তা সংক্রমিত অঞ্চলগুলি বাদে।

লকডাউনের চতুর্থ দফা শুরু হতে চলেছে এমন একটা সময় যখন করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯০,০০০ অতিক্রম করে। একদিনেই ৪,৯৮৭ জন নতুন রোগীর রেকর্ড মিলেছে, যার ফলে সব মিলিয়ে সংখ্যাটা ৯০,৯২৭। এর মধ্যে ২,৮৭২ জন মারা গিয়েছেন এবং ৩৪,০০০ এরও বেশি রোগী সেরে উঠেছেন।

চারটি রাজ্য- মহারাষ্ট্র, দিল্লি, তামিলনাড়ু এবং গুজরাটে ভারতের মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক আক্রান্তের ঘটনা সামনে এনেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মধ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা এই রাজ্যগুলিতে বেড়েছে নিমেষে।