কেরলে দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানটির চালকদের আগেই খারাপ আবহাওয়ার বিষয়ে সতর্ক করা হয়

সিভিল অ্যাভিয়েশনের মহানির্দেশক অরুণ কুমার সোমবার এনডিটিভিকে জানান, এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানচালকদের সতর্ক হয়েই অবতরণ করার কথা বলা হয়েছিলো

Air India Express: শুক্রবার কেরলে ওই বিমান দুর্ঘটনাটি ঘটে

হাইলাইটস

  • শুক্রবার কেরলের কোঝিকোড় বিমানবন্দরে ঘটে দুর্ঘটনা
  • রানওয়ে ছাড়িয়ে পাশের খাদে পড়ে যায় এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের একটি বিমান
  • ওই দুর্ঘটনা কীভাবে ঘটলো তার তদন্ত চলছে, উঠে আসছে নানা তথ্য
নয়া দিল্লি:

কেরলের (Kerala) কোঝিকোড় (Kozhikode) বিমানবন্দরে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমান দুর্ঘটনার (Air India Express Crash) পর উঠে আসছে নানা রকম তথ্য। এরই মধ্যে জানা গেল যে, বিমানটি অবতরণের আগে ওই এলাকার খারাপ আবহাওয়া সম্পর্কে পাইলটদের সতর্কও করা হয়েছিলো। সিভিল অ্যাভিয়েশনের মহানির্দেশক অরুণ কুমার সোমবার এনডিটিভিকে জানান, এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানচালকদের সতর্ক হয়েই অবতরণ করার কথা বলা হয়েছিলো। তবে সেই সঙ্গে অবশ্য এই প্রশ্নও উঠছে যে, একটি বিমান নিরাপদভাবে অবতরণের ক্ষেত্রে রানওয়ের দৈর্ঘ্যটি যথেষ্ট ছিলো কি? কারণ দেখা যায়, শুক্রবার অবতরণের সময় টেবিলটপ রানওয়ের সীমানা ছাড়িয়ে বিমানটি এগিয়ে গিয়ে বিমানবন্দরের পাশে থাকা খাদে গিয়ে পড়ে এবং সেটি দু'টুকরো হয়ে যায়। অনেকেই এই দুর্ঘটনার (Plane Crash) পিছনে খারাপ আবহাওয়াকেই দায়ী করছেন। 

দেশে এপর্যন্ত করোনার কবলে ২২ লক্ষেরও বেশি মানুষ, তবে সুস্থতার হার ৬৯%

কিন্তু সিভিল অ্যাভিয়েশনের মহানির্দেশক অরুণ কুমার বলেন, "এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের পক্ষ থেকে বিমানেক চালকদের তখনকার থারাপ আবহাওয়া সম্পর্কে আগেও জানানো হয়েছিলো... এরপর কিন্তু বিমানটি নামবে কিনা বা বিমানবন্দরের কাছাকাছি যাবে কিনা সেবিষয়ে চালককেই সিদ্ধান্ত নিতে হয়।" 

আজ রিয়া চক্রবর্তীকে সপরিবারে হাজিরা দিতে হবে ইডির দফতরে

বিমানটি যে নির্ধারিত গতিপথ থেকে অনেকটা দূরে অবতরণ করছে সে সম্পর্কে পাইলটকে সতর্ক করা হয়েছিলো কিনা এবিষয়ে জানতে চাওয়া হলে অরুণ কুমার বলেন যে এটিসির তরফ থেকে সতর্ক করা হয়েছিলো। এমনকী বিমান দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই উদ্ধারকারী দল ও দমকলকর্মীদেরও সতর্ক করা হয় এবং তাঁরাও সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে।

"তাঁরা বিমানটিকে নামতেও দ্যাখে কিন্তু তারপরেই অ্যালার্ম বেজে ওঠে এবং সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধার কাজ শুরু হয়", বলেন তিনি। মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান উদ্ধারকারীরা, একথাও বলেন অরুণ কুমার।

বিমানটি রানওয়েতে অবতরণের পরেও এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে বিমানের যোগাযোগ ছিলো কিনা জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, তদন্তের পরে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের ওই বিমানটি বৃষ্টির মধ্যেই অবতরণ করতে গিয়ে রানওয়ে ছাড়িয়ে ১ কিলোমিটারেরও বেশি এগিয়ে যায় ও খাদে গিয়ে পড়ে। ডিজিসিএ-র সূত্র যদিও জানিয়েছে যে, বিমানটি নিরাপদে অবতরণের জন্য ওই রানওয়ের  দৈর্ঘ্য যথেষ্ট ছিল কি না সে সম্পর্কে তাঁরা অনুসন্ধান করছে।

তবে বিষয়টি হলো যে বিমানটি অবতরণের সময় যেহেতু রানওয়ে ভেজা ছিল, তাই অনেকেই মনে করছেন যে, বিমানটির চাকা রানওয়ে স্পর্শ করার পরে ব্রেকটি ঠিকভাবে কাজ না করাতেই ওই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমানের দুর্ঘটনায় মারা যান ২ বিমান চালক এবং ১৮ জন যাত্রী। ওই দুর্ঘটনার সময় বিমানে ১৭৪ জন প্রাপ্তবয়স্ক এবং ১০ জন শিশু সহ মোট ১৮৪ জন যাত্রী ছিলেন। মৃতদের মধ্যে ৪ জন শিশুও ছিলো।