ধর্ষণের ফলে গর্ভবতী সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী, পলাতক অভিযুক্ত শিক্ষক

তার পরিবারের কেউই এ ব্যাপারে কিছুই জানত না। মেয়েটির পরিবার ও পুলিশ বিষয়টি জানতে পারে যখন মেয়েটিকে হাসপাতালে চেক আপের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

ধর্ষণের ফলে গর্ভবতী সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী, পলাতক অভিযুক্ত শিক্ষক

জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে মেয়েটি জানায়, তার শিক্ষকই তাকে ধর্ষণ করেছে।

মালাপ্পুরাম:

বারো বছরের এক বালিকাকে ধর্ষণের (Rape) অভিযোগ উঠল তাঁর স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে। সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রী এখন গর্ভবতী। ঘটনা কেরলের (Kerala) মালাপ্পুরাম জেলার। অভিযুক্ত ৩০ বছর বয়সি শিক্ষক নিখোঁজ বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, ওই মেয়েটির পরিবার তাকে হাসপাতালে মেডিক্যাল চেক আপের জন্য নিয়ে গেলে তখনই তার পুরো বিষয়টি জানতে পারে তারা।

NDTV-কে এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‘ওই বালিকাকে যৌন নির্যাতন ও ধর্ষণ ‌করা হচ্ছিল প্রায় দু'মাস ধরে। কিন্তু তার পরিবারের কেউই এ ব্যাপারে কিছুই জানত না। মেয়েটির পরিবার ও পুলিশ বিষয়টি জানতে পারে যখন মেয়েটিকে হাসপাতালে চেক আপের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।''

পরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে মেয়েটি জানায়, তার শিক্ষকই তাকে ধর্ষণ করেছে। নিখোঁজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও শিশু নির্যাতনের মামলা রুজু করা হয়েছে।