“আপস করব না”, হিন্দি নিয়ে অমিত শাহের মন্তব্যে বললেন বিএস ইয়েদুরাপ্পা

দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে প্রথমাগতভাবে হিন্দি ভাষার ব্যবহার করে না, হিন্দিকে তারা উত্তর ভারতের চাপিয়ে দেওয়া বলে মনে করে

সোমবার ট্যুইটে বিএস ইয়েদুরাপ্পা লেখেন, কর্ণাটকের মূল ভাষা হল কন্নড় (ফাইল)

হিন্দি (Hindi ) দিবসের ভাষণে, “হিন্দি ভাষাকে দেশের রাষ্ট্রীয় ভাষা” করার ডাক দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সোমবার সেই প্রসঙ্গে দাক্ষিণাত্যের অন্যতম নেতা তথা কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা (BS Yediyurappa) অমিত শাহের প্রস্তাবের “দৃঢ়ভাবে” না করে দিলেন। গত সপ্তাহে, এই আন্দোলনে যুক্ত হন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনরাই বিজয়ন এবং অভিনেতা রাজনীতিবিদ কমল হাসান। ট্যুইটে তিনি লেখেন, “আমাদের দেশের সমস্ত সরকারি ভাষাই সমান। যাইহোক,  কর্ণাটক বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন, কন্নড় হল মূল ভাষা। তার গুরুত্বের সঙ্গে আমরা কখনই আপোষ করব না এবং কন্নড় ভাষা এবং রাজ্যের সংস্কৃতি তুলে ধরতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ”।

দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে প্রথমাগতভাবে হিন্দি ভাষার ব্যবহার করে না, হিন্দিকে তারা উত্তর ভারতের চাপিয়ে দেওয়া বলে মনে করে। এই বিরোধিতায় যোগ দিয়েছে বিরোধী দল কংগ্রেস এবং বামেরা। এই ইস্যুতে যোগ দিয়ে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনরাই বিজয়ন বলেন, “হিন্দি দেশকে একত্রিত করতে পারে, এই দাবি অবান্তর”। ট্যুইটে তিনি লেখেন, “ওই ভাষাটি বেশীরভাগ  ভারতীয়েরই মাতৃভাষা নয়। তাদের অনুগত করে তোলার জন্যই হিন্দি চাপিয়ে দেওয়ার পদক্ষেপ। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্য, অহিন্দিভাষীদের মাতৃভাষার বিরুদ্ধে যুদ্ধের ডাক”।

অমিত শাহের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন অভিনেতা-রাজনীতিবিদ কমল হাসান। তিনি বলেন, “বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য, ভারত প্রজাতন্ত্র হওয়ার সময়েই আমরা শপথ নিয়েছিলাম। এখন কোনও শাহ, সুলতান বা সম্রাটই সেই শপথ ভাঙতে পারবেন না”।

শনিবার, দেশজুড়ে পালিত হয় হিন্দি দিবস, সেদিনই ট্যুইটে, হিন্দিভাষাকে আপও ব্যাপক এবং দেশের একটি কমন ভাষা হিসেবে তুলে ধরার আহ্বান জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

তিনি ট্যুইটে লেখেন, “ভারত অনেকগুলি ভিন্ন ভিন্ন ভাষার দেশ, এবং প্রত্যেক ভাষার নিজস্ব গুরুত্ব আছে, তবে বিশ্বজুড়ে ভারতের যাতে পরিচিতি তৈরি হয়, তারজন্য একটি কমন ভাষার প্রয়োজন...আজ, যদি কোনও ভাষার ক্ষমতা থাকে, যা দেশকে একত্র করার ক্ষমতা থাকে, সেটা হল হিন্দি ভাষা, এই ভাষা দেশে সবচেয়ে বেশী কথা বলা এবং বোঝা যায় এমন ভাষা”।