দিল্লির তিহার জেল থেকে ছাড়া হল জেসিকা লাল হত্যাকারী মনু শর্মাকে

Jessica Lal Murder Case: দিল্লি সরকারের, দিল্লি শাস্তি বিধান সম্পর্কিত বোর্ডের সিদ্ধান্তের পরেই তাতে স্বাক্ষর করেন উপরাজ্যপাল অনিল বায়জল

দিল্লির তিহার জেল থেকে ছাড়া হল জেসিকা লাল হত্যাকারী মনু শর্মাকে

পার্টিতে ড্রিঙ্ক সার্ভ না করায় জেসিকা লালকে খুন করে মনু শর্মা

নয়াদিল্লি:

জেসিকা লাল (Jessica Lal) হত্যায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজাপ্রাপ্ত মনু শর্মাকে (Manu Sharma) ছাড়া হল। সোমবার আরও অন্যান্য ১৮ জন অপরাধীর সঙ্গেই সোমবার দিল্লির তিহার জেল (Tihar Jail) থেকে ছাড়া হয় দেশের অন্যতম হাইপ্রোফাইল অপরাধের এই সাজাপ্রাপ্তকে। দিল্লি সরকারের, দিল্লি শাস্তি বিধান সম্পর্কিত বোর্ডের সিদ্ধান্তের পরেই তাতে স্বাক্ষর করেন উপরাজ্যপাল অনিল বায়জল। দিল্লির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনের নেতৃত্বে একটি বৈঠকে গতমাসে মনু শর্মাকে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ইতিমধ্যেই জেলে ১৭ বছর কাটিয়েছে মনু শর্মা, করোনা ভাইরাসের কারণে জেলের ভিড় এড়াতে মনু শর্মাকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়।

দিল্লির ট্যামারিন্ড কোর্ট রেস্তোঁরায় একটি পার্টিতে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিনোদ শর্মার ছেলে মনু শর্মাকে ড্রিঙ্ক সার্ভ করতে অস্বীকার করেন মডেল জেসিকা লাল, ১৯৯৯ সালের ৩০ এপ্রিল খুন হতে হয় এই মডেলকে। ২০০৬ সালে তাঁর সাজা হয়।  

নিম্ন আদালত তাঁকে খুনের অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়, তবে রায় স্থগিত রাখে হাইকোর্ট এবং তাঁকে যাবজ্জীবন সাজা দেয়। ২০১০ সালে সুপ্রিম কোর্টে সাজা আরও নিশ্চিত হয়।

"ভাল ব্যবহারের" জন্য খোলা জেলে রাখা হয়েছিল মনু শর্মাকে, সকাল ৮টায় কাজের জন্য বেরিয়ে সন্ধে ৬টায় ঢুকে পড়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল তাকে। জেলবন্দিদের পুনর্বাসন নিয়ে কাজে সঙ্গে যুক্ত মনু শর্মা।

২০১৮ সালে জেসিকা লালের ছোটো বোন শবরিনা লাল জানান, মনু শর্মাকে ক্ষমা করে দিয়েছেন তিনি এবং তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হলেও কোনও আপত্তি নেই তাঁর। NDTV কে শবরিনা লাল বলেন, “আমি সত্যি করেই বিশ্বাস করিজেলে তিনি ভাল কাজ করেছেন...এটা আমার বুকের বোঝা কমাবে এবং আমি নিজে শান্তি পয়েছে”।

এই স্পর্শকাতর অপরাধটিকে কেন্দ্র করে সিনেমা হয়, তারফলে অর্থ ও প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে খুনের মতো অপরাধ করা নিয়ে প্রশানকে নাড়া দেয়।