PPF Account: কোনও কর ছাড়াই ২৮ লক্ষ টাকা ঘরে তুলতে পারবেন আপনি

PPF Account Interest Rate: পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ডে বছরে সর্বাধিক দেড় লক্ষ টাকা জমা করা যেতে পারে যেখানে সুদ মিলবে বার্ষিক ৭.৯ শতাংশ হারে

PPF Account: কোনও কর ছাড়াই ২৮ লক্ষ টাকা ঘরে তুলতে পারবেন আপনি

PPF Account -এর টাকা পুরোপুরি করমুক্ত

হাইলাইটস

  • সুনিশ্চিত রিটার্ন পেতে হলে সবচেয়ে ভরসাযোগ্য আশ্রয় পিপিএফ
  • বর্তমানে পিপিএফ -এ সুদের হার ৭.৯ শতাংশ
  • মোট ১৫ বছর সর্বাধিক দেড় লক্ষ টাকার করে জমা করতে পারেন পিপিএফ অ্যাকাউন্টে
নয়া দিল্লি:

এখন সেই সময় এসে গেছে যখন অধিকাংশ চাকরিজীবি মানুষ কীভাবে কর বাঁচিয়ে বেশি টাকা ঘরে তুলবেন সেই পরিকল্পনা করে এগোন। আর ৮০ সি এর অধীনে করা সঞ্চয় এবং বিনিয়োগ করলে বিনিয়োগকারীকে কর থেকে ছাড় দেওয়া হয় এবং এর মধ্যে গৃহঋণের কিস্তিতে সুদের পাশাপাশি বীমা প্রিমিয়াম হিসাবে জমা দেওয়া টাকার পরিমাণও রয়েছে। একজন ব্যক্তি যদি প্রতি বছর নিজের পিপিএফ (PPF) অ্যাকাউন্টে সর্বাধিক দেড় লক্ষ টাকা জমা করে এবং যদি সেক্ষেত্রে বর্তমান সুদের হারে কোনও পরিবর্তন না ঘটে, তবে অ্যাকাউন্ট (PPF Account) থেকে ম্যাচিওরিটির সময় প্রায় ৪৩,৬০,৫১৭ টাকা পাবেন তিনি। বর্তমানে বার্ষিক ৭.৯ শতাংশ হারে (PPF Account Interest Rate) সুদ মেলে একটি পিপিএফ অ্যাকাউন্টে। পিপিএফে টাকা দিলে যেমন আপনার কর সাশ্রয় (Tax Free) হবে তেমনই এই ধারার অধীনে করা বিনিয়োগ আপনাকে ভবিষ্যতে আর্থিক নিরাপত্তাও দেবে।

পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড বা পিপিএফ বিনিয়োগের জন্য চাকরিজীবিদের এক অন্যতম পছন্দ। এর পিছনে বিশেষ কিছু কারণও আছে। ভালো সুদের হার, রিটার্নের নিশ্চয়তা এবং ট্যাক্সের সুবিধার কারণে অনেকেই এই প্রভিডেন্ট ফান্ডে আস্থা রাখেন। এছাড়া অবসরকালীন সময়, ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা, বিয়ে এবং অন্যান্য লং টার্ম বিনিয়োগের জন্যেও দেশবাসী এখন পিপিএফ-এর ওপরেই ভরসা রাখেন।

এসবিআইয়ের পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড (পিপিএফ)-এ টাকা রাখলে লাভবান হবেন আপনি

এই মুহূর্তে প্রভিডেন্ট ফান্ড যে পরিমাণে সুদ দেয় তা তুলনায় অন্যান্য কোনও ফিক্সড বিনিয়োগের থেকে বেশি। বর্তমানে পিপিএফে সুদের হার ৭.৯ শতাংশ। সুদ ছাড়াও, পিপিএফ এর আরও একটি দুর্দান্ত সুবিধা হল পিএফএফের উপর অর্জিত সুদ, বার্ষিক বিনিয়োগ সব কিছুই আয়কর থেকে মুক্ত হয়। ফলে একটা মোটা অঙ্কের টাকা আয়করের হাত থেকে বেঁচে যায়।

সবচেয়ে বেশি সুদ পেতে হলে, আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে আপনার পিপিএফ অ্যাকাউন্টে সরকার কীভাবে সুদ জমা করে। পিপিএফ অ্যাকাউন্ট বছরে গণনা করা হয় এবং বছরের শেষে টাকা জমা করা হয়। পিএফ-এর সুদ বছরে জমা করা হলেও, এটা গণনা করা হয় অ্যাকাউন্টে সর্বনিম্ন ব্যালেন্সের ভিত্তিতে প্রতি মাসের ৫ তারিখ থেকে মাসের শেষের দিনের মধ্যে। সুতরাং আপনি যদি মাসিক কিস্তিতে টাকা জমা রাখেন তবে প্রতি মাসের ৫ তারিখের আগে টাকা যাতে অ্যাকাউন্টে পৌঁছায় সেটা দেখা জরুরি।

যদি কোনও বিনিয়োগকারী মাসের ৫ তারিখের আগে বিনিয়োগ জমা দেন, তবে তিনি মাসের ১ থেকে ৪ তারিখের মধ্যে বিনিয়োগের উপর সুদ পেতে পারেন। আর যদি আপনি যদি বার্ষিক ভিত্তিতে পিএফ অ্যাকাউন্টে টাকা রাখেন, তবে মাত্র একটা ব্যাপারে নিশ্চিত হন, যে আপনি ৫ এপ্রিলের আগে টাকা জমা করছেন, কারণ তাহলেই আপনি সবচেয়ে বেশি সুদ পাবেন।

Budget 2020: আসন্ন বাজেটে ব্যক্তিগত আয়করে মিলতে পারে আরও ছাড়: রিপোর্ট

Newsbeep

পিপিএফ অ্যাকাউন্টে আপনি যদি ১,৫০,০০০ টাকা করে মোট ১৫ বছর জমা করেন তাহলে আপনি অ্যাকাউন্টে মোট ২২,৫০,০০০ টাকা জমা দিচ্ছেন এবং ম্যাচিওরিটির পর দেখা যাবে আপনি ২১,১০,৫১৭ টাকা সুদ পাবেন যা পুরোপুরি কর মুক্ত।

ও হ্যাঁ, আরও একটি বিষয় জেনে নিন। ১৫ বছর পর পিপিএফ-এ জমানো অর্থ ম্যাচিওর করে গেলে আপনার কাছে কিন্তু দু'টি বিকল্প খোলা থাকবে। এক, আপনি অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিতে পারেন। অথবা ৫ বছরের জন্য ওই টাকা ফের রাখতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি যদি নতুন করে কিছু টাকা রাখতে চান, তবে জানাতে হবে ব্যাঙ্কের নির্দিষ্ট শাখায়। তা নাহলে আগে যে পরিমাণ অর্থ সঞ্চয় করেছিলেন, তা নিয়েই পরবর্তী ৫ বছরের জন্য বেড়ে যাবে পিপিএফ ডিপোজিট।