ভারতের প্রথম নিশাচর চিড়িয়াখানা কোনটি? দিনের আলোতেও এখানে গহন আঁধার...

২০১৭ সালে নির্মিত হয় এই চিড়িয়াখানা। বিশেষ করে নিশাচর প্রাণিদের ঠাঁই এখানে। যেমন শজারু, জঙ্গলের বিড়াল এবং ডোরাকাটা হায়না, যারা অন্ধকারেই বেশি সক্রিয়

ভারতের প্রথম নিশাচর চিড়িয়াখানা কোনটি? দিনের আলোতেও এখানে গহন আঁধার...

২০১৭ সালে তৈরি হয় কঙ্কারিয়া নিশাচর চিড়িয়াখানা (Kankaria Nocturnal Zoo)

আহমেদাবাদ:

চিড়িয়াখানা তো কম ঘোরেননি? এমনকি জাতীয় অভয়ারণ্যেও বার কয়েক ঘোরা হয়েছে অনেকের। তবে অনেকেই জানেন না এই দেশে রয়েছে এমন একটি চিড়িয়া খানা যেখানে দিনের বেলা গেলেও আপনার মনে হবে মধ্য রাত্রে হেঁটে ফিরছেন গহন অরণ্যে। এই দেশের প্রথম নিশাচর চিড়িয়াখানা (India''s first nocturnal zoo) হল গুজরাটের কঙ্কারিয়া (Kankaria)। সম্প্রতি জানা গিয়েছে ভারতের প্রথম নিশাচর চিড়িয়াখানার বার্ষিক আয় ৩ কোটি টাকা! 

নির্বাচনের মাসেই নরেন্দ্র মোদিকে সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান দিচ্ছে রাশিয়া!

চিড়িয়াখানাটি ২ তলা। দিনের আলোতে রাত্রির মতো পরিবেশ তৈরি করার জন্য বিশেষ ভাবে নকশা করা হয়েছে এর। রাতের বেলা গেলে আবার মনে হবে দুপুরের ঝকঝকে রোদে বন্যপ্রাণ দর্শনে বেরিয়েছেন। এমন অভিনব চিড়িয়াখানার পরিচালক আরকে সাহু বলেন, “চিড়িয়াখানা নির্মাণে ব্যয় করা হয়েছিল ১৭ কোটি টাকা। আমরা মোটামুটি গড়ে ৩.৬ কোটি টাকা বার্ষিক পেয়ে থাকি।”

২০১৭ সালে নির্মিত হয় এই চিড়িয়াখানা। বিশেষ করে নিশাচর প্রাণিদের ঠাঁই এখানে। যেমন শজারু, জঙ্গলের বিড়াল এবং ডোরাকাটা হায়না, যারা অন্ধকারেই বেশি সক্রিয়। 

দিল্লির ‘শবরীমালা'? এই পারসি মন্দিরেও পিরিয়ডের সময় মহিলাদের প্রবেশ নিষেধ

বায়ু চলাচলের জন্য এখানে একটি জিওথার্মাল (geothermal) ব্যবস্থা রয়েছে। প্রাণি এবং দর্শকদের জন্য ভারতে প্রথম এমন ব্যবস্থা চালু করা হয়। এটি আসলে এমন একটি বিশেষ ব্যবস্থা যাতে দিনের বেলাতেই রাতের মতো পরিবেশ তৈরি করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন আরকে সাহু।

পুরো অঞ্চলটিকেই জঙ্গলের মতো করে সাজানো হয়েছে। সাধারণ মানুষও এমন জিনিস প্রথম উপলব্ধি করছেন বলে তাঁদের প্রতিক্রিয়াও বেশ ভালো বলেই দাবি কর্তৃপক্ষের।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)