কাশ্মীর নিয়ে চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মন্তব্য, পাল্টা জবাব ভারতের

Jammu and Kashmir:কাশ্মীর প্রসঙ্গ নিয়ে চিনের প্রেসিডেন্ট ইমরান খানকে আশ্বস্ত করেছেন যে তাঁদের "মূল স্বার্থ" এক হওয়ায় পাকিস্তানকে সমর্থন করবেন তাঁরা

চেন্নাইয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে বৈঠকে বসবেন Xi Jinping

হাইলাইটস

  • অন্য দেশগুলি অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কথা বলবে এটা চাইছে না ভারত
  • চিনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তোলেন ইমরান খান
  • "মূল স্বার্থ" এক হওয়াতে পাকিস্তানকে সমর্থন করবে তাঁরা, জানাল চিন
নয়া দিল্লি:

কাশ্মীর ইস্যুতে ফের পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ানোয় চিনকে লক্ষ্য করে কড়া জবাব দিল ভারত। কাশ্মীর পরিস্থিতির দিকে তিনি নজর রাখছেন এই বলে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে আশ্বস্ত করেছেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তবে চিনের প্রেসিডেন্টের (Xi Jinping) বক্তব্যের পাল্টা উত্তর দিয়ে ভারত (India) স্পষ্ট জানিয়েছে, কাশ্মীর ইস্য়ুটি (Jammu and Kashmir) পুরোপুরিই অভ্যন্তরীণ বিষয়, তাই অন্য দেশগুলি যদি এর মধ্যে নাক না গলায় তাহলে তাতে সবারই ভালো। "পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের বৈঠকের বিষয়ে জানতে পেরেছি। আমরা জেনেছি যে তাঁদের বৈঠকে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে", বলেন ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রভীশ কুমার। "এ বিষয়ে ভারতের অবস্থান স্পষ্ট এবং অনড় রয়েছে। আমরা আগেই বলেছি যে জম্মু ও কাশ্মীর আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। চিনও আমাদের এই অবস্থান ভাল করেই জানে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে অন্য কোনও দেশ কথা বলুক এটা আমরা চাই না", স্পষ্ট জানান তিনি।

১১-১২ অক্টোবর চেন্নাইয়ে দ্বিতীয় বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মোদির মুখোমুখি হবেন শি জিনপিং

পাকিস্তানের "সব সময়ের বন্ধু" বলে দাবি করা চিন জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের দাবিকে বরাবরই সমর্থন করে এসেছে। ৫ অগাস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদের পরেই তা নিয়ে আপত্তি জানায় পাকিস্তান। আর সেই সময় ইমরানের দেশের পাশে দাঁড়িয়ে কাশ্মীর ইস্যুটি রাষ্ট্রসংঘে উত্থাপন করে চিন। যদিও কিছুদিন আগেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান স্বীকার করে নেন যে, কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিক স্তরে বিশ্ব নেতাদের থেকে পাকিস্তানের পক্ষে সমর্থন জোগাড়ে ব্যর্থ তিনি।

বুধবার চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠকে ফের কাশ্মীর প্রসঙ্গ ওঠায় চিনের প্রেসিডেন্ট ইমরান খানকে আশ্বস্ত করেছেন যে তাঁদের "মূল স্বার্থ" এক হওয়ায় পাকিস্তানকে সমর্থন করবেন তাঁরা।

চিনের সংবাদসংস্থা জিনহুয়া জানিয়েছে, চিনের প্রেসিডেন্ট নাকি এমন কথাও বলেছেন যে কাশ্মীর ইস্যুতে "ঠিক এবং বেঠিক" দুই বিষয় নিয়েই ভারত ও পাকিস্তানের শান্তিপূর্ণ বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করা উচিত।

ফের পাকিস্তানের দিক থেকে পাঞ্জাবে প্রবেশ করল ড্রোন, তল্লাশি শুরু

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো, ভারতের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক শীর্ষ সম্মেলনে বসার আগেই কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়ে ওই ধরণের মন্তব্য় করলেন চিনের প্রেসিডেন্ট। এই শীর্ষ সম্মেলন সম্পর্কে সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয় যে, "আসন্ন শীর্ষ সম্মেলনে দুই নেতাই দ্বিপাক্ষিক, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কথা বলবেন। ভারত-চিন পারস্পরিক বোঝাপড়ার উন্নতিতেও আলোচনা করা হবে ওই বৈঠকে"।

ইমরান খানের সঙ্গে শি জিনপিংয়ের বৈঠকের পর একটি যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয় যে, "ইতিহাসে বরাবরই কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে সমস্যা আছে, এই সমস্যাগুলি রাষ্ট্রসংঘের নীতি মেনে সঠিক এবং শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান করা উচিত"।

দেখুন ০৯.১০.২০১৯-এর গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি:

More News