আসছে ঘূর্ণিঝড় "নিসর্গ", জারি রেড অ্যালার্ট, মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা

Cyclone NISARGA: ঘূণিঝড় "নিসর্গ"-এর নামকরণ করেছে বাংলাদেশ, এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে মহারাষ্ট্র সহ গোয়া ও কেরল, দমন ও লাক্ষাদ্বীপের বিস্তীর্ণ এলাকা

আসছে ঘূর্ণিঝড়

NISARGA: ধেয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন নিসর্গ, মহারাষ্ট্রে জারি লাল সতর্কতা

হাইলাইটস

  • আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মহারাষ্ট্রে আছড়ে পড়তে পারে মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়
  • নিসর্গ নামের ওই সুপার সাইক্লোনের আশঙ্কায় জারি সতর্কতা
  • বাংলাদেশ ওই ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করেছে "নিসর্গ"
কলকাতা:

আমফানের (Amphan)রেশ কাটতে না কাটতেই এবার ভারতের দিকে প্রবল বেগে ধেয়ে আসছে আরও একটি মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়, "নিসর্গ" (NISARGA)। দেশের আবহাওয়া দফতর মুম্বইয়ে লাল সতর্কতা জারি করে জানিয়েছে যে আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে আরও প্রবল শক্তিশালী হয়ে ওঠার সম্ভাবনা ওই ঘূর্ণিঝড়টির (Cyclone NISARGA)। আগামী ৬ ঘণ্টার মধ্যে "নিসর্গ" (Cyclone) আরও শক্তি সঞ্চয় করে ধেয়ে যাবে উত্তর দিকে এবং আগামীকাল অর্থাৎ বুধবারের মধ্যে প্রবল গতিতে সে আছড়ে পড়তে পারে মহারাষ্ট্র উপকূলে। তারপর উত্তর মহারাষ্ট্র হয়ে পার্শ্ববর্তী দক্ষিণ গুজরাট উপকূল ধরে ওই ঝড় যেতে পারে দমনের দিকে, এমনই পূর্বাভাস দিচ্ছে আবহাওয়া দফতর। ইতিমধ্যেই এই প্রবল ঘূর্ণিঝড় থেকে বাঁচতে মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী অঞ্চল ফাঁকা করে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে নিসর্গ মোকাবিলায় কেন্দ্রের তরফ থেকে সবরকম সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এদিকে সোমবারই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীও আসন্ন সুপার সাইক্লোন মোকাবিলায় রাজ্যের প্রস্তুতি পর্যালোচনা করেছেন বলে জানা গেছে। সেখানকার মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে প্রবল ওই ঘূর্ণিঝড়ের ধাক্কায় অন্যান্য ক্ষতির পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী এলাকায় ব্যাপক ভূমিধসের আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

দেশে করোনা আক্রান্ত ১.৯৮ লক্ষ মানুষ, মৃত্যু ৫,৫৯৮ জনের

ঘূণিঝড় "নিসর্গ"-এর নামকরণ করেছে বাংলাদেশ।

ভারতীয় আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, মুম্বই থেকে ৬৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ও সুরাট থেকে  ৯২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে গভীর নিম্নচাপ হিসেবে অবস্থান করছে নিসর্গ। ধীরে ধীরে শক্তি বৃদ্ধি করে সাইক্লোনের রূপ নেবে এই নিম্নচাপ।

শুরুতে আরব সাগর হয়ে উত্তর দিকে বয়ে যাবে "নিসর্গ"। তারপর উত্তর পূর্বে বাঁক নিয়ে সেটি উত্তর মহারাষ্ট্র ও দক্ষিণ গুজরাটের সমুদ্র উপকূলের মাঝখানে হরিহরেশ্বরে আছড়ে পড়বে। এই প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে মহারাষ্ট্র সহ গোয়া ও কেরল, দমন ও লাক্ষাদ্বীপের বিস্তীর্ণ এলাকা।

করোনা সতর্কতা বজায় রেখে খুলে দেওয়া হল রাজ্যের মন্দির-মসজিদ-গির্জা

বুধবার সন্ধ্যায় যখন সমুদ্র উপকূল গ্রাস করবে নিসর্গ, তখন হাওয়ার গতিবেগ থাকার সম্ভাবনা সর্বোচ্চ ১১৫ থেকে ১২৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়। যার ফলে গোয়া, মহারাষ্ট্র, গুজরাট ও কেরল প্রবল বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

২০ মে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আছড়ে পড়ে সুপার সাইক্লোন আমফান। এর ফলে এরাজ্যে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এখনও সেই পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি রাজ্য।

তবে নিসর্গের প্রভাব সরাসরি পশ্চিমবঙ্গে না পড়লেও আবহওয়া দফতরের তথ্য অনুযায়ী, এই ঘূর্ণিঝড়ের জেরে ঝোড়ো হাওয়া ও ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে এরাজ্যেও।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)