সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘরে হামলা চালানোর পূর্ণ অধিকার আছে: নতুন সেনা প্রধান

সেনা প্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে বলেছেন, আমার সবার প্রথম কাজ হবে, বাহিনীকে এমন ভাবে প্রস্তুত করা যাতে যে কোনও শত্রুকে ওরা সহজেই দমন করতে পারে।

সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘরে হামলা চালানোর পূর্ণ অধিকার আছে: নতুন সেনা প্রধান

সেনা প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর নিজের দফতরে এমএম নারাভানে

নয়াদিল্লি:

সেনা প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিয়েই পাকিস্তানকে সমঝে রাখলেন জেনারেল এম এম নারবানে (M M Naravane)।  'সন্ত্রাসবাদের (terrorism) আঁতুড়ঘরে হামলা চালানোর পূর্ণ অধিকার আমাদের আছে।' মঙ্গলবার নতুন সেন প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর সংবাদসংস্থা পিটিআইকে এমন সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। সেই সাক্ষাৎকারে পড়শি দেশকে, ফের একবার বিশ্ব সন্ত্রাসের মদতদাতা হিসেবে ঘুরিয়ে কটাক্ষ করেন জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারবানে। এদিন তিনি বলেন, 'জঙ্গি দমনের কৌশল আমাদের জানা। কিন্তু রাষ্ট্র কিংবা পাকিস্তানের মদতে চলা সন্ত্রাসবাদ দমনের জবাব দিতেও আমরা সমানভাবে প্রস্তুত।' সেনা প্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে বলেছেন, আমার সবার প্রথম কাজ হবে, বাহিনীকে এমন ভাবে প্রস্তুত করা যাতে যে কোনও শত্রুকে ওরা সহজেই দমন করতে পারে।  


দেশের বর্তমান সেনাপ্রধান গত সেপ্টেম্বরে বাহিনীর উপ-প্রধান পদে যোগ দিয়েছিলেন। সে সময় তিনি বর্তমান সিডিএস বিপিন রাওয়াতের ডেপুটি ছিলেন। তার আগে ইস্টার্ন কমান্ডের প্রধান পদ সামলেছেন তিনি। যে কমান্ডকে প্রায় ৪০০০-কিলোমিটার দীর্ঘ ইন্দো-চিন সীমান্ত পাহারা দিতে হয়।এদিন পাকিস্তানের প্রতি কড়া মনোভাব দেখিয়ে সেনা প্রধান বলেন, "মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদ দমনে আমাদের পর্যাপ্ত কৌশল আছে। যদি পাকিস্তান সেই কাজ বন্ধ না করে, তাহলে সন্ত্রাসবাদ দমনে ওদের ওপর হামলা চালানোরও পূর্ণ অধিকার আমাদের আছে।" তিনি অভিযোগ করেছেন, সন্ত্রাসবাদকে রাষ্ট্রনীতি হিসেবে দত্তক নিতে চেষ্টা করছে আমাদের পড়শি দেশ। যেটা আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করে ওরা (Pakistan) ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে যেতে চায়। কিন্তু এই কৌশল দীর্ঘদিন চলতে পারে না। সবসময় আপনারা মানুষকে বোকা বানাতে পারবেন না, বলেও দাবি তাঁর। 

যেহেতু এখন বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে সন্ত্রাসবাদের শিকার, ফলে তারা ওয়াকিবহাল বিশ্বের কাছে ঘোষিত শত্রু আদতে কে? সংবাদসংস্থা এএনআই-এর কাছেও এই প্রশ্ন তুলে পাকিস্তানকে পরোক্ষে দুষেছেন তিনি। সেনা প্রধান বলেছেন, পাক সেনা, রাষ্ট্র-মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। সেই প্রচেষ্টা বিফলে গেছে। সত্যিটা কী, সকলের কাছেই স্পষ্ট। ওরা (Pakistan Army) সন্ত্রাসবাদীদের বলে সীমান্তে (LOC) অপেক্ষা করতে। সুযোগ পেলেই ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটাতে ওরা জঙ্গিগোষ্ঠীগুলিকে মদত জোগায়। কিন্তু আমরা প্রস্তুত। কোনও ভাবেই ওদের সফল হতে দেব না, সংবাদসংস্থা এএনআইকে এ কথাও জানিয়েছেন জেনারেল এম এম নারবানে।    

Newsbeep

aurjqrro

সেনা প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর নিজের দফতরে এমএম নারাভানে

এ বিষয়ে ইতিমধ্যে রাষ্ট্র-মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী একটা মঞ্চ, বিশ্বব্যাপী গড়তে উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আপাতত এফএটিএফ গোষ্ঠীতে কালো তালিকাভুক্ত পাকিস্তান। সন্ত্রাসে মদত দেওয়া বন্ধ না করলে, ইসলামাবাদের ওপর সেই নিষেধাজ্ঞা উঠবে না, স্পষ্ট করেছে ওই গোষ্ঠী।

 (PTI, ANI থেকে সংগৃহীত)