ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা কমাতে শনিবার দুই দেশের মধ্যে সামরিক পর্যায়ে আলোচনা

India-China Border: ৯ মে ভারতের তরফ থেকে অভিযোগ করা হয় যে, ভারত-চিন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডের অভ্যন্তরে প্রবেশের চেষ্টা করেছে চিনের সেনাবাহিনী

ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা কমাতে শনিবার দুই দেশের মধ্যে সামরিক পর্যায়ে আলোচনা

India-China Border Problem: ভারত ও চিন দু'দেশই চাইছে আলোচনার মধ্যে দিয়ে সমস্যা মেটাতে

হাইলাইটস

  • ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা কমাতে দুই দেশই আলোচনায় বসতে চায়
  • দুুই দেশের সীমান্তবর্তী এলাকা চুশুল-মোলদোয় সামরিক পর্যায়ে বৈঠক হবে
  • ৬ জুন অর্থাৎ শনিবার বৈঠকে বসছেন ভারত ও চিনের সামরিক আধিকারিকরা
নয়া দিল্লি:

ভারত-চিন (India-China) সীমান্তে পূর্ব লাদাখ অঞ্চলে উত্তেজনা কমাতে আগামী ৬ জুন অর্থাৎ শনিবার দুই দেশের মধ্যে সামরিক পর্যায়ে আলোচনা হবে, জানা গেছে সীমান্তবর্তী এলাকাতেই ওই আলোচনায় (India-China Border Problem) বসবেন দুই দেশের শীর্ষ আধিকারিকরা। গত ৯ মে, একটি ভারতীয় টহলদারী দলের কমপক্ষে ১৫ থেকে ২০ জন কর্মীর সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে চিনা সেনারা। ভারতের তরফ থেকে অভিযোগ করা হয় যে, ভারত-চিন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডের অভ্যন্তরে প্রবেশের চেষ্টা করে চিনের সেনাবাহিনী। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে তখনই জানানো হয় যে মোটরচালিত নৌকাগুলির সাহায্যে পানগং হ্রদে ঘোরাফেরা করছে তাঁরা। ভারত এবং চিনের মধ্যে প্রায় ৩,৫০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত এলাকা রয়েছে। ইদানিং সেই সীমান্ত এলাকাতেই দুই দেশের সেনার মধ্যে চাপানউতোর তৈরি হয়েছে।

"কী ঘটছে দেশকে খুলে বলুন": ভারত-চিন দ্বন্দ্ব নিয়ে কেন্দ্রের কাছে রাহুল গান্ধির প্রশ্ন

ভারত এবং চিনের মধ্যে প্রায় ৩,৫০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত এলাকা রয়েছে। ইদানিং সেই সীমান্ত এলাকাতেই দুই দেশের সেনার মধ্যে চাপানউতোর তৈরি হয়েছে।

এদিকে ভারত ও চিনের পারস্পরিক বিরোধের সমাধানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মধ্য়স্থতা করতে চাইলেও দু'দেশই সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে।

ভারতের বিরুদ্ধে চিনের আগ্রাসনের নিন্দায় সরব মার্কিন বিদেশ মন্ত্রক

৬ জুন ভারত ও চিনের মধ্যেকার সীমান্তবর্তী এলাকা চুশুল-মোলদোতে দুই দেশের সামরিক পর্যায়ের ওই বৈঠকটি হবে। ভারতই মূলত সীমান্ত সমস্যার সমাধানে আলোচনা করার জন্যে চিনের প্রতি আহ্বান জানায়, তাতে সাড়া দিয়েছে শি জিনপিংয়ের দেশ।

ভারতের তরফ থেকে সামরিক আলোচনার নেতৃত্বে থাকবেন ফোরটিন কর্পসের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং। সূত্রের খবর, দুই দেশের মধ্যে ওই আলোচনা পারস্পরিক দ্বন্দ্ব মেটাতে একটা "ইতিবাচক ইঙ্গিত" বলেই মনে করা হচ্ছে।

তবে এর আগেও ভারত-চিন সীমান্তে তৈরি হওয়া উত্তেজনা কমানোর বিষয়ে চেষ্টা করা হয়নি তা কিন্তু নয়। ৯ মে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ার পর থেকে একাধিকবার স্থানীয় পর্যায়ের আলোচনা হলেও কোনও সমাধান সূত্র মেলেনি।

এর আগে ২০১৭ সালে ডোকালাম সীমান্ত নিয়েও দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা প্রায় ৩ মাস ধরে চলেছিল। ১৯৬২ সালে চিনের সঙ্গে সামরিক সংঘাতেও জড়িয়ে পড়েছিল ভারত।