This Article is From Dec 06, 2019

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে কড়া নিয়ম অনাবাসী ভারতীয়দের জন্য

The Citizenship (Amendment) Bill: রাজ্যসভায় ওই বিল পাশ হওয়া কঠিন। যদিও অতীতে বিজেপি একাধিক কঠিন বিল উচ্চ কক্ষে পাশ করাতে সক্ষম হয়েছে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে কড়া নিয়ম অনাবাসী ভারতীয়দের জন্য

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা সিএবি (CAB) সোমবার পেশ করা হবে সংসদে।

নিউ দিল্লি:

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা সিএবি (CAB) কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ছাড়পত্র পেয়েছে বুধবার। সোমবার তা পেশ করা হবে সংসদে। ওই বিলে যে যে প্রস্তাব রয়েছে তার অন্যতম হল, অনাবাসী ভারতীয় বা ওসিআই (Overseas Indians) কার্ডধারীদের মধ্যে যাঁরা নাগরিকত্ব আইন ভঙ্গ করবেন বা অন্য কোনও আইন ভঙ্গ করবেন তাঁদের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করে দেওয়া হবে। ওই বিলের খসড়ায় উত্তর-পূর্ব ভারতকে এর থেকে বাদ রাখা হয়েছে, যেখানে এই নিয়ে প্রবল প্রতিবাদ হয়েছে। এর পাশাপাশি এই বিলের ফলে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের অমুসলিম নাগরিকদের ভারতের নাগরিকত্ব পাওয়ার সুগম হবে।

যদি এই বিলটি পাশ হয়, তাহলে এটাই হবে প্রথম বিল যেখানে ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। জানুয়ারিতে এই বিলের আর একটি সংস্করণ লোকসভায় পাশ হলেও রাজ্যসভায় আটকে যায়।

পশ্চিমবঙ্গে অবৈধ অভিবাসীর সংখ্যা নিয়ে তথ্য নেই কোনও: সংসদে জানাল কেন্দ্র সরকার

বিরোধীরা এই বিলের বিরোধিতা করেছেন। তাঁদের অনেকগুলি আপত্তির একটি হল, এই বিলে মুসলিমদের প্রতি বৈষম্য রয়েছে। বুধবার বিরোধীরা এই বিলের প্রতিবাদ করেন। কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর এই বিলকে ‘‘মূলগত ভাবে আসংবিধানিক'' বলে অভিযোগ করেন। তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েন অভিযোগ করেন, বিজেপি ‘‘সস্তা ও সংকীর্ণ'' রাজনৈতিক লাভের জন্য এই বিল পাশ করাতে চাইছে।

১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইনে বলা হয়েছিল এই দেশের নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আবেদন করার আগের ১২ মাস এদেশে বসবাস করতে হবে এবং গত ১৪ বছরের মধ্যে ১১ বছর এদেশে বসবাস করতে হবে। সংশোধন হলে দ্বিতীয় শর্তের সময়সীমা ৬ বছর হবে ওই তিনদেশের অমুসলিম নাগরিকদের ক্ষেত্রে।

"আইকে গুজরালের পরামর্শে যদি গুরুত্ব দেওয়া হতো...":শিখ বিরোধী হিংসায় বললেন মনমোহন সিং

ওই বিলে বলা হয়েছে আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন‌, পার্সি ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের যাঁরা ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৪-র আগে এদেশে এসেছেন এবং ধর্মীয় নিপীড়নের ফলে বাধ্য হয়েছেন এদেশে আশ্রয় নিতে, তাঁরা ভারতীয় নাগরিকত্ব পেতে আবেদন করতে পারবেন।

জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির কন্যা সানা ইলতিজা এই বিল প্রসঙ্গে টুইট করে জানিয়েছেন ‘ভারত— মুসলিমদের দেশ নয়।'' এদিকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর মন্ত্রিসভায় জানিয়েছেন, মানুষ এই বিলকে স্বাগত জানাবে, কারণ এই বিল তৈরি হয়েছে দেশের স্বার্থে।

নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল সংসদে পেশ হলে তা লোকসভায় পাশ হয়ে যাওয়ায় সমস্যা হবে না। কেননা লোকসভায় বিজেপি সংখ্যাগুরু হওয়ার ফলে ওই বিল পাশ হয়ে যাবে। মঙ্গলবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিংহ দলের সব সাংসদকে বিল পেশের দি‌ন উপস্থিত থাকতে বলেছেন।

তবে রাজ্যসভায় ওই বিল পাশ হওয়া কঠিন। যদিও অতীতে বিজেপি একাধিক কঠিন বিল উচ্চ কক্ষে পাশ করাতে সক্ষম হয়েছে।

(তথ্যসূত্র: পিটিআই)